করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধির কারণে রামুর সাতদিন ব্যাপী বঙ্গবন্ধু উৎসব স্থগিত

প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ
বঙ্গবন্ধুর বাংলা বিজয়ের ৫০ বছর ও জন্মশতবার্ষিকীতে কক্সবাজারের রামুতে অনুষ্ঠিতব্য সাতদিন ব্যাপী ‘বঙ্গবন্ধু উৎসব’ আপাতত স্থগিত ঘোষনা করা হয়েছে। করোনা ভাইরাসজনিতরোগ (কোভিড-১৯)-এর বিস্তার রোধকল্পে সরকার ঘোষিত বিধি-নিষেধ আরোপে “কোভিড আক্রান্তের হার ক্রমবর্ধমান হওয়ায় উম্মুক্তস্থানে সর্বপ্রকার সামাজিক, রাজনৈতিক, ধর্মীয় অনুষ্ঠান এবং সমাবেশ সমুহ বন্ধ রাখার নির্দেশনা” থাকায় রামুর বঙ্গবন্ধু উৎসব উদযাপন পরিষদ সাতদিন ব্যাপী এ উৎসব সাময়িক ভাবে স্থগিত ঘোষনা করেন। তবে করোনা পরিস্থিতি উন্নত হলে আগামী মার্চ মাসের প্রথম সপ্তাহে বঙ্গবন্ধু উৎসব উদযাপিত হবে।

এবিষয়ে গত সোমবার (১০ জানুয়ারি) সন্ধ্যা ৭ টায় রামু এভারেষ্ট টিচিং ইনষ্টিটিউট মিলনায়তনে এক জরুরী সভা বঙ্গবন্ধু উৎসব উদযাপন পরিষদের চেয়ারম্যান, কক্সবাজার-৩(সদর-রামু-ঈদগাঁও) আসনের সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। উদযাপন পরিষদের মহাসচিব, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সালাহ উদ্দিনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত জরুরী সভায় বঙ্গবন্ধু উৎসব উদযাপন পরিষদের কর্মকর্তা নাট্যকার মাস্টার মো.আলম, সংগীত প্রযোজক বশিরুল ইসলাম, এভারেষ্ট টিচিং ইনষ্টিটিউটের অধ্যক্ষ রাজু বড়ুয়া, রামু উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক তপন মল্লিক, যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নীতিশ বড়ুয়া, শিল্পী পুলক বড়ুয়া, এইচবি পান্থ, ইসকান্দর মীর্জা, অধ্যাপক নীলোৎপল বড়ুয়া, সোনিয়া বড়ুয়া, মানসী বড়ুয়া, মিনা মল্লিক, নিরুপমা বড়ুয়া, জয়শ্রী বড়ুয়া, সংগীত বড়ুয়া প্রমুখ নেতৃবৃন্দ অংশ নেয়।

বঙ্গবন্ধু উৎসব উদযাপন পরিষদের চেয়ারম্যান সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি জানান, আগামী ১৮ জানুয়ারি থেকে ২৪ জানুয়ারি পর্যন্ত রামু স্টেডিয়ামে সাতদিন ব্যাপী অনুষ্ঠিতব্য বর্ণাঢ্য এ উৎসব উদযাপনের সকল প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন হয়েছিল।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে কক্সবাজারের রামু উপজেলার বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও রামুর বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক, ক্রীড়া, সাহিত্য, সাংবাদিক এবং পেশাজীবী সংগঠনের দায়িত্বশীলদের সমন্বয়ে ৫০১ সদস্য বিশিষ্ট ‘বঙ্গবন্ধু উৎসব’ উদযাপন পরিষদ এবং ৫০ সদস্য করে আরো ২১ টি উপ-পরিষদ গঠন করা হয়।

তিনি জানান, ইতোমধ্যে সাতদিন ব্যাপী বঙ্গবন্ধু উৎসবের মঞ্চে প্রতিদিনের আলোচনা সভার জন্য বীর মুক্তিযোদ্ধা, বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্টজন, মন্ত্রী পরিষদের মাননীয় সদস্য, সংসদ সদস্য, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয়, জেলা ও উপজেলার নেতৃবৃন্দসহ সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দকে আমন্ত্রণ জানানো ছাড়াও সাংস্কৃতিক ও নাট্যানুষ্ঠানের কাজ সম্পন্ন। করোনা পরিস্থিতি উন্নত হলে আগামী মার্চ মাসের প্রথম সপ্তাহে বঙ্গবন্ধু উৎসব উদযাপিত হবে।