দ্বিতীয়-নবম শ্রেণিতে ভর্তিতেও বয়স নির্ধারণ হচ্ছে

অনলাইন ডেস্কঃ
দ্বিতীয় থেকে নবম শ্রেণিতে ভর্তির ক্ষেত্রেও ‘জাতীয় শিক্ষানীতি-২০১০’ অনুযায়ী শিক্ষার্থীদের বয়স নির্ধারণ করা হবে। এক্ষেত্রে শিক্ষানীতিতে সংশোধনী আনা হয়েছে, যা আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকে কার্যকর হবে।

সোমবার (৩ জানুয়ারি) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) উপসচিব আলমগীর হুছাইনের সই করা সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী ভর্তির সংশোধিত নীতিমালা জারি করা হয়।

জানা গেছে, বর্তমানে শুধু প্রথম শ্রেণিতে ভর্তির ক্ষেত্রে ‘জাতীয় শিক্ষানীতি-২০১০’ অনুযায়ী বয়স নির্ধারণ করা হয়। প্রথম শ্রেণিতে ভর্তির ক্ষেত্রে ন্যূনতম ছয় বছর বয়স হতে হবে। নির্দেশনা অনুসারে পরবর্তী শ্রেণিতে শিক্ষার্থী ভর্তির বয়স নির্ধারণ করা হলেও অনেক শিক্ষার্থী ভর্তি হতে পারছিলেন না।

পরে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা জানিয়েছিলেন, সরকারি স্কুলে প্রথম শ্রেণি ছাড়া অন্যান্য শ্রেণিতে ভর্তির বয়সে বাধ্যবাধকতা নেই। সে নির্দেশনা অনুসারে অনেক স্কুলে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হয়েছে। চলতি শিক্ষাবর্ষে ভর্তি প্রক্রিয়া শেষ হওয়ার পর জাতীয় শিক্ষানীতি অনুসারে দ্বিতীয় থেকে নবম শ্রেণিতে ভর্তির বয়স নির্ধারণের নির্দেশনা দিয়ে সংশোধিত নীতিমালাটি জারি করলো মাউশি।

সংশোধিত নীতিমালা অনুযায়ী, জাতীয় শিক্ষানীতি-২০১০ অনুযায়ী প্রথম শ্রেণিতে ভর্তির জন্য শিক্ষার্থীর বয়স ছয় বছর বেশি হতে হবে। তবে ভর্তির বয়সের ঊর্ধ্বসীমা সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয় নির্ধারণ করবে। শিক্ষার্থীর বয়স নির্ধারণের জন্য ভর্তির আবেদন ফরমের সঙ্গে অনলাইনে জন্মনিবন্ধন সনদের সত্যায়িত কপি জমা দিতে হবে।

সরকারি স্কুলে শিক্ষার্থী ভর্তি প্রক্রিয়া ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে শেষ করার নির্দেশনা দিয়েছিল সরকার। সে অনুযায়ী বেশিরভাগ সরকারি স্কুলে শিক্ষার্থী ভর্তির প্রক্রিয়া শেষ। ফলে আগামী শিক্ষাবর্ষে ভর্তির ক্ষেত্রে এ নীতিমালা কার্যকর হবে।

সূত্রঃ জাগোনিউজ