আজ ওজন মাপার দিন, জানুন কখন ও কীভাবে মাপবেন

লাইফস্টাইল ডেস্কঃ
নতুন বছর আসতেই শরীরের অতিরিক্ত ওজন কমাতে অনেকেই নিশ্চয়ই সংকল্প করেছেন! আসলে বিগত ডিসেম্বর মাসে কমবেশি ছুটি, ঘোরাঘুরি, বিয়ের অনুষ্ঠান, খাওয়া-দাওয়ায় বাড়বাড়ন্ত থাকায় ওজন বেড়ে গেছে অনেকেরই!

এ কারণে প্রতিবছর জানুয়ারি মাসের প্রথম সোমবার বিশ্বব্যাপী পালিত হয় ওজন মাপার দিন। এ দিনের বিশেষত্ব হলো, নতুন বছরের শুরুতে ওজন মাপা।

আর যাদের অতিরিক্ত ওজন আছে, তারা জীবনধারণে পরিবর্তন আনা ও যাদের কম ওজন আছে তারা কীভাবে ওজন বাড়াবে সে বিষয়ে নতুন বছরে উৎসাহ ও পরিশ্রম বাড়ানো।

মনে রাখবেন, ওজন কমাতে পুষ্টিকর খাবার ও শরীরচর্চার বিকল্প নেই। আবার যারা কম ওজনে ভুগছেন তাদেরও উচিত স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া। অন্যদিকে কী কারণে ওজন বাড়ছে না, তা জানতে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া।

অনেকেই দিনে কয়েকবার ওজন মাপেন। বিশেষ করে ওজন কমানোর চেষ্টা শুরু হলেই ওজন মাপার প্রবণতা বাড়ে। তবে জানেন কি, ওজন মাপার আছে নির্দিষ্ট সময় ও নিয়ম আছে। সেগুলো মেনেই মাপতে হবে ওজন।

ওজন মাপার সবচেয়ে ভালো সময় হলো সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর পেট খালি রেখে। তখন কোনো খাবার, পানি ও পানিজাতীয় কিছু মুখে না দিয়েই (চা, কফি, জুস) ওজন মাপতে হবে। আরও একটি বিষয় মেনে চলতে পারেন, তা হলো টয়লেট সেরে নেওয়া।

এভাবে ওজন মাপলে আপনার ওজন একেবারে সঠিক আসবে। এর কারণ হলো সারারাত না খেয়ে থাকায় আপনার পেটে তখন বাড়তি কিছু থাকার সম্ভাবনা নেই। তাই শুধু শরীরের ওজনই পাওয়া যাবে সকালে।

ওজন মাপার সময় যেসব বিষয়ের প্রতি খেয়াল রাখবেন-

>> ওজন মাপার সময় ভারী বা অতিরিক্ত কাপড় বা সঙ্গে কিছু রাখবেন না। এমনকি পায়ে জুতা পরেও ওজন মাপা যাবে না।

>> প্রতিদিন না মেপে সপ্তাহে একবার একটি নির্দিষ্ট দিনে ওজন মাপুন। আর ওই সময়টা হওয়া উচিত সকালে।

>> ওজন মাপার যন্ত্র বারবার পরিবর্তন করা যাবে না। প্রতিবার একই যন্ত্র ব্যবহার করুন। ভিন্ন যন্ত্রে ওজনে পার্থক্য হতে পারে।

>> ব্যায়াম পরে কখনো ওজন মাপবেন না। কারণ ব্যায়ামের পর ওজন আরও বাড়ে। এর কারণ হলো, তখন শরীরের পেশি বিশ্রাম পায়। দরকার হলে ব্যায়ামের আগে মাপা যেতে পারে।

>> নারীদের পিরিয়ডের সময় ওজন মাপা ঠিক নয়। তখন ওজন সঠিক না হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। কারণ এ সময় শরীরের হরমোনে অনেক ধরনের পরিবর্তন ঘটে। ফলে ওজনেও তারতম্য দেখা দেয়।

>> অনেকেই ট্রেডমিলে ওজন মাপেন। যাতে শরীরের ভারসাম্য ঠিক থাকে না। তাই ওজন মাপার নির্দিষ্ট যন্ত্রেই ওজন মাপতে হবে।

>> ওজন মাপার যন্ত্রটি সমতল স্থানে রাখুন। ওজন মাপার যন্ত্রটি যদি মোটা কার্পেট বা পাপোশের ওপর রেখে ওজন মাপেন, তাহলে ভুল ওজন দেখাতে পারে। তাই একেবারে সমতল মেঝেতে যন্ত্রে রেখে তবেই ওজন মাপুন।

এবার জেনে নিন ওজন মাপার দিবসের ইতিহাস

ডিসেম্বর মাস মানেই নানা অনুষ্ঠান ও উৎসবের আয়োজন। জানেন কি, ক্রিসমাসের আয়োজনে চিকেন বা টার্কির রোস্ট, আলুর বাহারি পদ ও ক্রিসমাস কেকের প্রচলন ঘটে মধ্যযুগে ইংল্যান্ডে।

রাজা হেনরি অষ্টম হলেন প্রথম ব্রিটিশ রাজা, যিনি ক্রিসমাসের ডিনারের জন্য রোস্ট টার্কি খেয়েছিলেন বলে জানা যায়। এরপর থেকেই এ সংস্কৃতি দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে।

ইংরেজ কবি ও কৃষক থমাস টুসার উল্লেখ করেছেন, ১৫৭৩ সালের দিকে টার্কি রোস্ট বড়দিনের উৎসবের একটি প্রধান খাদ্য ছিল।

তখন থেকেই ছুটির দিনগুলোতে প্রতিটি পরিবারে প্রচুর পরিমাণ চর্বি ও চিনিজাতীয় খাবার খাওয়ার প্রবণতা বাড়ে। এসব খাবার খাওয়ার কারণে অতিরিক্ত ওজন বেড়ে যাওয়ার সমস্যাতেও ভুগথের অনেকেই।

তাই তো নতুন বছরের শুরুতেই ওজন মাপার মধ্য দিয়ে শরীরের ওজন কমানোর উৎসাহ বাড়ানোর চেষ্টা করা হয়। এভাবেই এ দিনটির প্রচলন ঘটে।

সূত্রঃ জাগোনিউজ