শ্রীলঙ্কাকে ১২ গোল দিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশ

ক্রীড়া ডেস্কঃ
ম্যাচ জুড়েই খেলা হয়েছে শ্রীলঙ্কার অর্ধে। দ্বিতীয় মিনিটে গোল পাওয়ার পর বাংলাদেশ কেবল ছুটেছেই। মুড়ি-মুড়কির মতো গোল করে শ্রীলঙ্কাকে উড়িয়ে মেয়েদের সাফ অনূর্ধ্ব-১৯ চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে উঠেছে গোলাম রব্বানী ছোটনের দল।

কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে রোববার রাউন্ড রবিন লিগে নিজেদের শেষ ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে ১২-০ গোলে হারায় বাংলাদেশ। প্রথমার্ধে চার গোল করার পর দ্বিতীয়ার্ধে আরও ৮ গোল করেন রিপা-ঋতুরা।

দলের বড় জয়ে হ্যাটট্রিক উপহার দিয়েছেন আফিদা খন্দকার প্রান্তি ও শাহেদা আক্তার রিপা। জোড়া গোল করেন ঋতুপর্না চাকমা, আনুচিং মোগিনী। বাকি দুই গোলদাতা আঁখি খাতুন ও উন্নতি খাতুন।

চার ম্যাচে তিন জয় ও এক ড্রয়ে ১০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষ দল হিসেবে ফাইনালে উঠল বাংলাদেশ। দিনের অন্য ম্যাচে নেপালকে ১-০ গোলে হারানো ভারত ৯ পয়েন্ট নিয়ে উঠেছে ফাইনালে। আগামী বুধবার শিরোপা লড়াইয়ে মুখোমুখি হবে দল দুটি।

নেপালের বিপক্ষে ভারতের জয়ে বাংলাদেশের সমীকরণ কিছুটা কঠিন হয়ে গিয়েছিল। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হার এড়াতেই হতো দলকে। শঙ্কার মেঘ সরে যাওয়ার শুরু দ্বিতীয় মিনিট থেকেই। ডান দিক দিয়ে দুই ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে রিপার বাঁ পায়ের শট গোলরক্ষকের গ্লাভস ছুঁয়ে ক্রসবারে লেগে ফিরে। সামনে থাকা আনুচিংয়ের ফিরতি শট গোলরক্ষকের হাত ছুঁয়ে জালে জড়ায়।

পাঁচ মিনিট পর মারিয়া মান্ডার থ্রু বল ধরে বক্সে ঢুকে নিখুঁত কোনাকুনি শটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন ঋতুপর্না। ষোড়শ মিনিটে সতীর্থের লং পাস ধরে গায়ের সঙ্গে সেঁটে থাকা দুই ডিফেন্ডারের প্রতিরোধ ভেঙে নিখুঁত শটে জাল কাঁপান রিপা।

৩৪তম মিনিটে স্বপ্না রানীর শট ফিরে ক্রসবার কাঁপিয়ে। ৪২তম মিনিটে আঁখির লম্বা পাস পেয়ে নিখুঁত চিপ শটে ব্যবধান বাড়ান ঋতুপর্না। চার গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় বাংলাদেশ।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে আঁখির দুর্দান্ত গোলে ম্যাচে চালকের আসনে বসে যায় বাংলাদেশ। প্রায় ৪০ গজ দূর থেকে এই ডিফেন্ডারের উঁচু শট লাফিয়ে ওঠা গোলরক্ষকের হাত ছুঁয়ে জালে জড়ায়। ৪৯তম মিনিটে আঁখির লম্বা পাসে রিপার প্লেসিং শটে পরাস্ত গোলরক্ষক।

৫৪তম মিনিটে প্রান্তির দূরপাল্লার শট শ্রীলঙ্কা গোলরক্ষকের মাথার উপর দিয়ে জালে জড়ায়। ৬৯তম মিনিটে দূরপাল্লার শটে এই ডিফেন্ডার আবারও লক্ষ্যভেদ করলে বড় জয়ের পথে ছুটতে থাকে বাংলাদেশ।

৭৭তম মিনিটে আনুচিংয়ের লক্ষ্যভেদের পর ৮৩তম মিনিটে প্রান্তি দুরপাল্লার শটে ব্যবধান আরও বাড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে হ্যাটট্রিকও পূরণ করেন। ৮৫তম মিনিটে উন্নতি গোল করার পর শেষ দিকে রিপা শ্রীলঙ্কার কফিনে দ্বাদশ পেরেকটি ঠুকে হ্যাটট্রিক পূরণ করেন।

চলতি আসরে সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকায় শীর্ষে উঠে এলেন রিপা। সব মিলিয়ে ৫ গোল হলো তার।

সূত্রঃ বিডিনিউজ