রামুর প্রজ্ঞামিত্র বনবিহারে কঠিন চীবর দানোৎসবে বক্তারা : দানের মাধ্যমে মানবজাতির মঙ্গল সাধিত হয়

নীতিশ বড়ুয়া, রামুঃ
কক্সবাজারের রামুর উত্তর মিঠাছড়ি প্রজ্ঞামিত্র বনবিহারে দানোত্তম শুভ কঠিন চীবর দানোৎসব ও প্রয়াত সংঘমনিষা প্রজ্ঞামিত্র মহাথের’র ১৪ তম প্রয়াণ দিবসের ধর্মালোচনা সভায় বক্তারা বলেছেন, প্রজ্ঞামিত্র মহাথের ছিলেন বহুগুণে গুনান্বিত একজন সমাজ সংস্কারক বৌদ্ধ মনিষা। তাঁর জীবনাচার থেকে শিক্ষা নিয়ে সমাজ সংস্কারে ভিক্ষু ও দায়ক-দায়িকাদের অগ্রনী ভূমিকা পালন করতে হবে। তিনি সারাজীবন আত্মমুক্তি ও পরকল্যাণে নিজেকে উৎসর্গ করে গেছেন। তিনি প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে মানুষের অন্তরে বেঁচে থাকবেন।

বৌদ্ধ ভিক্ষুরা ধর্মদেশনায় বলেছেন, দানের মাধ্যমে মানুষের নির্লোভ চরিত্র ও ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধা ফুটে উঠে। প্রত্যেক ধর্মেই দানকর্মকে শ্রেষ্টকর্ম হিসেবে উৎসাহিত করা হয়েছে। দানের মাধ্যমে মানবজাতির মঙ্গল সাধিত হয়। দানের মধ্যে সর্বশ্রেষ্ঠ দান হচ্ছে চীবর দান।

বৃহষ্পতিবার (১৮ নভেম্বর) উপজেলার জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নের উত্তর মিঠাছড়ি প্রজ্ঞামিত্র বন বিহারে দিনব্যাপী দানানুষ্টানে বক্তারা উপরোক্ত কথা বলেন।

ধর্মানুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন, চট্টগ্রামের চন্দনাইশ জামিজুরি সুমনাচার বিদর্শনারামের অধ্যক্ষ ভদন্ত শীলরক্ষিত মহাথের। প্রধান ধর্মদেশক ছিলেন সুচিয়া সুখানন্দ বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত অতুলানন্দ মহাথের । এতে স্বাগত ধর্মদেশনার মাধ্যমে অনুষ্ঠানের শুভ উদ্বোধন করেন, প্রজ্ঞামিত্র বন বিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত সারমিত্র মহাথের।

কক্সবাজার জেলা বৌদ্ধ সুরক্ষা পরিষদের সভাপতি ভদন্ত প্রজ্ঞানন্দ ভিক্ষু’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত ধর্সমভায় ধর্মদেশনা করেন রামু উত্তর মিঠাছড়ি বিমুক্তি বিদর্শন ভাবনা কেন্দ্র ও একশ ফুট সিংহশয্যা গৌতম বুদ্ধমূর্তির প্রতিষ্ঠাতা ভদন্ত করুণাশ্রী মহাথের, রাংকুট বনাশ্রম বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ কে শ্রী জ্যোতিসেন থের, রামু কেন্দ্রীয় সীমা মহাবিহারের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ভদন্ত শীলপ্রিয় মহাথের, উখিয়ার ভদন্ত নন্দবংশ মহাথের, ভদন্ত জ্যোতিপ্রজ্ঞা থের, উত্তর ফতেখাঁরকুল বিবেকারাম বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত শীলমিত্র থের প্রমুখ ।

অনুষ্ঠানে জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান কামাল শামসুদ্দিন আহমদ প্রিন্স ও ১,২,৩ নং ওয়ার্ড়ের নবনির্বাচিত সংরক্ষিত মহিলা সদস্য মনোয়ারা বেগম মুন্নীকে সংবর্ধিত করা হয়।

দানোৎসবে দিনব্যাপী কর্মসূচীর মধ্যে ছিল বিশ্বশান্তি কামনায় পবিত্র ত্রিপিটক থেকে সুত্রপাঠ, বুদ্ধপুজা, সকালে ভিক্ষুসংঘের প্রাতঃরাশ, জাতীয় ও ধর্মীয় পতাকা উত্তোলন, সংঘদান, অষ্টপরিস্কারদান, ধর্মসভা, অতিথি ভোজন, বিকালে কঠিন চীবর ও কল্পতরু সহকারে গ্রাম প্রদক্ষিণ, দানোত্তম কঠিন চীবর বিষয়ক আলোচনা সভা, চীবর পরিক্রমা, কঠিন চীবর ও কল্পতরু উৎসর্গ ও উত্তর মিঠাছড়ি প্রজ্ঞামিত্র বন বিহারের প্রয়াত অধ্যক্ষ ভদন্ত প্রজ্ঞামিত্র মহাথের মহোদয়ের নির্বাণসুখ কামনা এবং বাংলাদেশসহ বিশ্বের সকল প্রাণীর সুখ-শান্তি কামনায় সমবেত প্রার্থনা।

প্রজ্ঞামিত্র বনবিহারের উন্নয়নে বিশেষ অবদান রাখায় স্থানীয় রাজু বড়ুয়া, চট্রগ্রামের অমল বড়ুয়া ও কন্ঠশিল্পী রাজিব বড়ুয়াকে ক্রেষ্ট দিয়ে সম্মাননা জানানো হয় বিহার পরিচালনা কমিটি ও গ্রামবাসির পক্ষ থেকে।

প্রজ্ঞামিত্র বন বিহার পরিচালনা কমিটির সভাপতি, বিহারাধ্যক্ষ ভদন্ত সারমিত্র মহাথের, সাধারণ সম্পাদক টিটু বড়ুয়া ও সর্দার বাবুল বড়ুয়া শতাধিক বৌদ্ধ ভিক্ষু-শ্রামণসহ জাতি, ধর্ম,বর্ণ নির্বিশেষে হাজার হাজার মানুষের অংশ গ্রহনে আয়োজিত এ বছরের সর্বশেষ দানানুষ্ঠান সফল ভাবে সম্পন্ন হওয়ায় প্রশাসনের আইন শৃংখলা রক্ষাকারীসহ সকলের প্রতি গ্রামবাসির পক্ষ থেকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।