রামুর ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান নির্বাচিতঃ নৌকা চার, আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী সাত প্রার্থী

খালেদ শহীদ, রামুঃ
রামুতে ইউপি নির্বাচনে চার ইউনিয়নে নৌকা, সাত ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী নির্বাচিত হয়েছে। স্বতন্ত্র প্রার্থীর আড়ালের বিএনপি-জামায়াতের প্রার্থীদের ভরাডুবি হয়েছে এ নির্বাচনে। বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর) সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত রামু উপজেলার ইউপি নির্বাচনের ১০০টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। দ্বিতীয় দফায় রামুর এগার ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ নির্বাচন উৎসবমূখর পরিবেশে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ ভাবে সম্পন্ন হয়েছে বলেন জানান উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রণয় চাকমা। তিনি জানান, প্রশাসনের কড়া নিরাপত্তায় বৃহস্পতিবার ভোটগ্রহণের দিন সকালে ব্যালট পেপার ভোটকেন্দ্রে পৌঁছানো হয়। ইউপি নির্বাচনে ব্যালট পেপারের অধিকতর নিরাপত্তার জন্য ভোটগ্রহণের দিন সকালে ভোটকেন্দ্রে ব্যালট পেপার পৌঁছানোর জন্য সিদ্ধান্ত নেয় নির্বাচন কমিশন।

বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে রামুতে আওয়ামী লীগ সমর্থিত নৌকা প্রতীকে নির্বাচিত হয়েছেন, দক্ষিণ মিঠাছড়িতে খোদেস্তা বেগম রীনা, চাকমারকুল ইউনিয়নে নুরুল ইসলাম সিকদার, জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নে কামাল শামশুদ্দিন আহমেদ প্রিন্স, গর্জনিয়া ইউনিয়নে মুজিবুর রহমান বাবুল এবং আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন, কাউয়ারখোপ ইউনিয়নে শামশুল আলম, ঈদগড় ইউনিয়নে ফিরোজ আহমদ ভূট্টো, রাজারকুল ইউনিয়নে মুফিজুর রহমান, খুনিয়াপালং ইউনিয়নে আবদুল হক, ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নে সিরাজুল ইসলাম ভূট্টো, কচ্ছপিয়া ইউনিয়নে আবু মোহাম্মদ ইসমাঈল নোমান, রশিদনগর ইউনিয়নে এমডি শাহ আলম।

সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণ ভাবে গ্রহণযোগ্য নির্বাচন আয়োজনের জন্য সকল প্রকার জরুরী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছিলো বলে জানান উপজেলা নির্বাচন অফিসার মাহফুজুল ইসলাম। ভোট কেন্দ্রের বাইরে কয়েকটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ঘটলেও তা ভোটারদের মাঝে কোন প্রভাব ফেলতে পারেনি। বৃহস্পবিার রাতে রামু উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে নির্বাচনে ফলাফল ঘোষনা সম্পন্ন করেন উপজেলা নির্বাচন অফিসার সহ রিটার্নিং অফিসারা।

রামুতে বেসরকারি ভাবে নির্বাচনী ফলাফলে আওয়ামী লীগ প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন, দক্ষিণ মিঠাছড়ি ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থী ইউনিয়ন মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি খোদেস্তা বেগম রীনা (নৌকা) ৫৯১৫ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। খোদেস্তা বেগম রীনা রামু উপজেলার প্রথম মহিলা ইউপি চেয়ারম্যান হলেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দি আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী ইউনিয়ন স্বেচ্ছা সেবকলীগের সভাপতি ও বর্তমান চেয়ারম্যান মো. ইউনুচ ভূট্টো (টেবিল ফ্যান) ৩৪৩৫ ভোট পেয়েছেন। চাকমারকুল ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম সিকদার (নৌকা) ৩৯৫১ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী ব্যবসায়ী নুরুল আলম (আনারস) ৩৬৭৪ ভোট পেয়েছেন। এ ইউনিয়নে সাইফুল ইসলাম (চশমা) ৪৪৫ ভোট, আবদুল মজিদ (ঘোড়া) ২০ ভোট, আবদুর রহিম (রজনীগন্ধা) ১০ ভোট, ফজলুল ইসলাম (টেবিলফ্যান) ৯ ভোট, মুহাম্মদ আলমগীর (টেলিফোন) ৮ ভোট, আবদুর রাজ্জাক (মটরসাইকেল) ৫ ভোট পেয়েছেন। জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান কামাল শামশুদ্দিন আহমেদ প্রিন্স (নৌকা) ৪৫৬৫ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দি আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আবছার কামাল সিকদার (মোটর সাইকেল) ৩৪৪৭ ভোট পেয়েছেন। এ ইউনিয়নে গোলাম কবির (অটোরিক্সা) ৩১০০ ভোট, রাশেদুল ইসলাম (আনারস) ১৪০১ ভোট, আনছারুল আলম (চশমা) ৭৮১ ভোট, এম এম নুরুচ্ছাফা (ঘোড়া) ৩৪১ ভোট পেয়েছেন। গর্জনিয়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি মুজিবুর রহমান বাবুল (নৌকা) ৪১৮৮ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্ব›িদ্ব প্রার্থী উপজেলা বিএনপি’র উপদেষ্টা ও সাবেক চেয়ারম্যান গোলাম মৌলা চৌধুরী (মোটর সাইকেল) ২৯৭৭ ভোট পেয়েছেন। এ ইউনিয়নে ছৈয়দ নজরুল ইসলাম (টেবিলফ্যান) ২০৯৯ ভোট. আজিজ মওলা (আনারস) ২১৫ ভোট, মুহাম্মদ মুহিবুল্লাহ (রজনীগন্ধা) ৩৯ ভোট, গোলাম মওলা (চশমা) ৪১ ভোট, মো. শফিউল আলম (ঘোড়া) ১৪ ভোট পেয়েছেন।

আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন, কাউয়ারখোপ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান শামশুল আলম (মোটর সাইকেল) ২৭৭৭ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দি আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি ওসমান সরওয়ার মামুন (নৌকা) ২৭৫০ ভোট পেয়েছেন। এ ইউনিয়নে জহির উদ্দিন (আনারস) ১৯৯৬ ভোট, মোজাফ্ফর আহমদ (অটোরিক্সা) ১৯৮৩ ভোট, মোস্তাক আহমদ (গোড়া) ১০৪৪ ভোট, নুরুল হক (টেবিল ফ্যান) ৪৩৬ ভোট, সাইমুন ইসলাম (চশমা) ২৪৪ ভোট পেয়েছেন। ঈদগড় ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান ফিরোজ আহমদ ভূট্টো (আনারস) ৪৯১৬ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্ব›িদ্ব আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি হাজী নুরুল আলম (নৌকা) ৩২৯৫ ভোট পেয়েছেন। বিজয়ী প্রার্থী ফিরোজ আহমদ ভূট্টো রামু উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম-সম্পাদক। এ ইউনিয়নে ওসমান সরওয়ার (হাতপাখা) ৩০৫ ভোট, নুরুল আজিম (মটরসাইকেল) ৫৭ ভোট পেয়েছেন। রাজারকুল ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান মুফিজুর রহমান (ঘোড়া) ৫৭৬৬ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দি আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি সরওয়ার কামাল সোহেল (নৌকা) ৩৫৪৭ ভোট পেয়েছেন। এ ইউনিয়নে শাহেদ উল্লাহ আনছারী (আনারস) ২১১ ভোট, তাজুল ইসলাম (হাতপাখা) ১৯৫ ভোট পেয়েছেন। খুনিয়াপালং ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি আবদুল হক (চশমা) ৮৯৬৪ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান আবদুল মাবুদ (নৌকা) ৮৯১৬ ভোট পেয়েছেন। এ ইউনিয়নে মো. হাবিবুর রহমান (আনারস) ১৭৬ ভোট, কবির আহমদ (হাতপাখা) ১১৫ ভোট, কামাল উদ্দিন (টেলিফোন) ২৫ ভোট, রহিম উল্লাহ (মোটর সাইকেল) ১৭ ভোট, দেলোয়ার হোসেন (অটোরিক্সা) ১৬ ভোট, হোছাইন আহামদ (ঘোড়া) ৫ ভোট পেয়েছেন। ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বঞ্চিত সাবেক চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম ভূট্টো (আনারস) ৬৩৪৯ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্ব›িদ্ব আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নুরুল হক চৌধুরী (নৌকা) ৪৭৩৩ ভোট পেয়েছেন। এ ইউনিয়নে ফরিদুল আলম (মোটর সাইকেল) ৪০৯৪ ভোট পেয়েছেন। কচ্ছপিয়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান আবু মো. ইসমাঈল নোমান (আনারস) ৩৭২৬ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্ব›িদ্ব জামায়াত নেতা মো. তৈয়ব উল্লাহ (চশমা) ৩৪২৫ ভোট পেয়েছেন। এ ইউনিয়নে নুরুল আমিন (নৌকা) ২৮৬৪ ভোট, জয়নাল আবেদীন (মোটর সাইকেল) ২৭৯৬ ভোট, মুহাম্মদ শফিকুল আকবর হেলাল (ঘোড়া) ২৭৫ ভোট, মো. আবু তালেব সিকদার (রজনীগন্ধা) ৩৫ ভোট, শাহেনা আকতার (টেবিলফ্যান) ১৫ ভোট পেয়েছেন। রশিদনগর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান এম ডি শাহ আলম (আনারস) ৩৯৯৯ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত মো. হান্নান সিদ্দিকী (মোটর সাইকেল) ৩৯২৪ ভোট পেয়েছেন। এ ইউনিয়নে মো. মোয়াজ্জম মোর্শেদ (নৌকা) ৮৫৪ ভোট পেয়েছেন।

রামু উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রণয় চাকমা জানান, রামুর এগার ইউনিয়নের নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ ভাবে সম্পন্ন হয়েছে। উপজেলার ১০০টি কেন্দ্রে সুন্দর ব্যবস্থাপনা ও শৃংখলার মধ্যদিয়ে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। প্রশাসনিক কর্মকর্তারা আন্তরিকতা ও কঠোর নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন। কোন প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনার আশংকার কথা শুনার সাথে সাথেই, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে মোবাইল স্ট্রাইকিং ফোর্স ছুটে গিয়েছে ভোটকেন্দ্রে। তিনি বলেন, কিছুটা গুজব ছড়ানোর চেষ্টা করা হয়েছিলো। কোথাও কোথাও অপ্রীতিকর ঘটনার কথা জানিয়েছিলো, প্রার্থীদের কয়েকজন। কিন্তু আমরা সাথে সাথে ভোট কেন্দ্রে ছুটে গিয়ে আশংকাজনক কোন কিছু দেখিনি। তিনি নির্বাচন শান্তিপূর্ণ ভাবে সম্পন্ন করতে পারায়, সকল প্রার্থী ও ভোটারদের ধন্যবাদ জানান তিনি।