করোনা টিকা নেওয়ার পর ‘কোভিড আর্ম’ হওয়ার কারণ কী?

লাইফস্টাইল ডেস্কঃ
কোভিড ভ্যাকসিন নেওয়ার পর অনেকেই কোভিড আর্ম সমস্যায় ভুগছেন। কোভিড আর্ম হলো- টিকা নেওয়ার স্থানে লালচে ভাব, শক্ত হয়ে যাওয়া, ফোলা, চুলকানি, র্যাশসহ প্রচণ্ড ব্যথা হওয়া। অনেকেই টিকা নেওয়ার পর এ সমস্যার সম্মুখীন হয়েছেন। তবে এমনটি হওয়ার কারণ কী?

বিশেষজ্ঞদের মতে, প্রথম বা দ্বিতীয় টিকা নেওয়ার পর অনেকের মধ্যেই কোভিড আর্ম দেখা দিয়েছে। যদিও এটি সবার ক্ষেত্রে হয় না। তবে এটি ক্ষতিকর নয়। যারা মডার্না ভ্যাকসিন নিচ্ছেন; তাদের ক্ষেত্রেই কোভিড আর্ম বেশি লক্ষণীয় বলে জানা গেছে গবেষণায়। অন্যদিকে ফাইজার-বায়োটেক ভ্যাকসিনও কোভিড আর্মের কারণ হতে পারে; তবে সম্ভাবনা কম।

আসলে যাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম; তাদের কোভিড আর্ম হওয়ার ঝুঁকি বেশি। কোভিড আর্ম হলো একটি বিলম্বিত অতি সংবেদনশীল ত্বকের প্রতিক্রিয়া। যা ইনজেকশন নেওয়ার স্থান ও এর আশেপাশে ঘটে থাকে। শরীরে যাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম; তাদের ক্ষেত্রেই বেশি দেখা দিচ্ছে কোভিড আর্মের লক্ষণ।

টিকা নেওয়ার পর ৩-৫ দিন পর্যন্ত কোভিড আর্মের সমস্যাটি থাকতে পারে। এক গবেষণায় দেখা গেছে, অনেকিই প্রথম টিকা নেওয়ার পরবর্তী ৫ দিন পর্যন্ত কোভিড আর্মে ভুগেছেন। আবার কারও ক্ষেত্রে দ্বিতীয় টিকা নেওয়ার পর ২ দিনের মধ্যেই সেরে গেছে কোভিড আর্ম।

কোভিড আর্মের লক্ষণসমূহ-

>> তীব্র চুলকানি
>> লাল বা বিবর্ণ ফুসকুড়ি
>> ফুসকুড়ি আপনার হাত বা আঙ্গুলেও ছড়িয়ে যেতে পারে
>> ফোলা ও শক্ত ভাব
>> প্রচণ্ড ব্যথা
>> টিকার স্থান গরম থাকা
>> শক্তপিণ্ডের মতো বোধ করা।

বিশেষজ্ঞদের মতে, কোভিড আর্ম একটি ইমিউন সিস্টেম প্রতিক্রিয়া। এটি দেখা দিলে বোঝা যায় যে, আপনার ইমিউন কোষগুলো পেশী কোষে সাড়া দিচ্ছে। ম্যাসাচুসেটস জেনারেল হাসপাতালের (এমজিএইচ) অ্যালার্জিস্টদের একটি দল এমআরএনএ কোভিড ভ্যাকসিন নেওয়া ৪৯ হাজার ১৯৭ জনের উপর গবেষণা করেন।

তারা দেখেন, ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ নেওয়া ৪০ হাজারের মধ্যে মাত্র ৭৭৬ জন কোভিড আর্মে ভুগেছেন। তারা সবাই ইনজেকশন নেওয়ার স্থান ও এর আশেপাশে ব্যথা, ফুসকুড়ি, চুলকানি অনুভব করেছেন। যারা এই প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন; তাদের গড় বয়স

গবেষণায় আরও জানা যায়, কোভিড আর্মে পুরুষের তুলনায় নারীরা বেশি ভুগছেন। তবে অন্যান্য দেশের নারীদের তুলনায় আবার আফ্রিকান নারীরা কোভিড আর্মের সমস্যায় কম ভুগছেন।

কোভিড আর্ম হলে করণীয়

কোভিড আর্ম হলে ঘরোয়া উপায়েই এর চিকিৎসা করতে পারেন। ফলে ব্যথা, ফোলা এবং চুলকানি কমবে। জেনে নিন করণীয়-

>> বরফ ঘষুন ওই স্থানে।
>> স্টেরয়েড ব্যবহার করতে পারেন।
>> ব্যথার ওষুধ খেতে পারেন।
>> ওরাল অ্যান্টিহিস্টামাইন গ্রহণেও ব্যথা কমবে।
>> টিকা নেওয়ার স্থানটিতে কখনও জোরে চাপ প্রয়োগ করবেন না।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কোভিড আর্ম হওয়া মারাত্মক কোনো লক্ষণ নয়। এটি ৩-৫ দিনের মধ্যে সেরে যায়। প্রথম ডোজ নেওয়ার পরে কোভিড আর্ম হওয়ায় দ্বিতীয় ডোজ নিবেন না, এমনটি করা যাবে না। অবশ্যই টিকা নিতে হবে।

মনে রাখবেন, বিশ্বের সব দেশের মানুষের উপরই এসব টিকা প্রয়োগ করা হচ্ছে। কোভিড আর্ম করোনা টিকার একটি সাধারণ পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়া। তবে যদি বেশি সমস্যা হয়, তাহলে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

সূত্রঃ জাগোনিউজ