এইচএসসি পরীক্ষা নিতে কেন্দ্র ঠিক করার উদ্যোগ

অনলাইন ডেস্কঃ
মহামারীর কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এখনও বন্ধ থাকলেও ‘স্বাস্থ্যবিধি মেনে’ এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়ার পরিকল্পনা ধরে প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে ঢাকার মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড।

এরই মধ্যে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে ২০২১ সালের পরীক্ষার জন্য উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধান ও সংশ্লিষ্টদের কাছে নতুন কেন্দ্র স্থাপন এবং কেন্দ্র পরিবর্তনের আবেদন চাওয়া হয়েছে।

শিক্ষা বোর্ডের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ৩০ জুনের মধ্যে প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষকে নিজস্ব প্যাডে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক বরাবর আবেদন করতে হবে। তালিকাভুক্ত সব কেন্দ্রকে কোভিড-১৯ স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা নিতে হবে।

নতুন কেন্দ্র স্থাপনের জন্য আবেদনে তিন হাজার টাকা (অফেরতযোগ্য) এবং কেন্দ্র পরিবর্তনের জন্য আবেদনে ১ হাজার টাকা (অফেরতযোগ্য) সোনালী ব্যাংকের মাধ্যমে জমা দিতে হবে। ফি জমা দেওয়ার স্লিপ আবেদনপত্রের সঙ্গে দিতে হবে।

করোনাভাইরাসের কারণে গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। কয়েক দফা পরিকল্পনা করলেও পরিস্থিতি অনুকূলে না আসায় শ্রেণিকক্ষে পাঠদান শুরু করতে পারেনি সরকার।

ওই পরিস্থিতিতে গতবছরের এইচএসসি পরীক্ষাও নেওয়া যায়নি। এ বছরের শুরুতে শিক্ষার্থীদের জেএসসি ও এসএসসির ফলাফলের গড় করে এইচএসসির মূল্যায়ন ফল প্রকাশ করা হয়।

সবশেষ গত ২৬ মে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছিলেন, মহামারী পরিস্থিতি ‘খুব বেশি প্রতিকূল না হলে’ আগামী ১৩ জুন থেকে স্কুল-কলেজ খুলে দেওয়ার কথা তারা ভাবছেন।

এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে ৮৪ দিন ক্লাস নিয়ে দুই সপ্তাহ পরে পরীক্ষা নেওয়া হবে বলেও সে সময় জানিয়েছিলেন তিনি। মন্ত্রী বলেছিলেন, পরীক্ষার সম্ভাব্য তারিখ ক্লাস শুরুর পরে জানানো হবে।

ঢাকা বোর্ডের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, যেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত নয় এবং ভাড়া বাড়িতে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করে, পরীক্ষার কেন্দ্রের জন্য তাদের আবেদন করার প্রয়োজন নেই।

নতুন কেন্দ্র অথবা কেন্দ্র পরিবর্তনের জন্য ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইট থেকে নির্ধারিত ছক ডাউনলোড করে তার পূরণ করে আবেদনপত্রের সঙ্গে জমা দিতে হবে। সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার প্রত্যয়ন বা প্রতিবেদন জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের কাছে যথাসময়ে পাঠাতে হবে।

প্রস্তাবিত কেন্দ্রটি মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বোর্ডের অনুমোদন পেলে পার্শ্ববর্তী যেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এ কেন্দ্রে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে ইচ্ছুক, সেসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানের নিজস্ব প্যাডে পরীক্ষার্থীদের সম্ভাব্য সংখ্যা উল্লেখ করে সুস্পষ্ট ঘোষণাসহ সম্মতিপত্রের মূল কপি আবেদনপত্রের সঙ্গে জমা দিতে হবে।

১ জুন থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত দেওয়া সময়ের পর কোনো আবেদন গ্রহণ করা হবে না বলেও বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

ইতোপূর্বে যেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ২০২১ সালের এইচএসসি পরীক্ষার নতুন কেন্দ্র বা কেন্দ্র পরিবর্তনের আবেদন করেছে, তাদের নির্ধারিত ছকে পুনরায় আবেদন করতে বলা হয়েছে। আবেদনে নতুন কোনো ভেনু বা কেন্দ্র দেওয়া যাবে না।

সূত্র: বিডিনিউজ