বার্সার জার্সিতে আর কি দেখা যাবে মেসিকে?

ক্রীড়া ডেস্কঃ
মাঝে দারুণ ধারাবাহিকতায় লিগ শিরোপা জয়ের স্বপ্ন জাগালেও তা ইতোমধ্যে ভেস্তে গেছে। কোপা দেল রে দিয়ে দুই বছরের শিরোপা খরা কাটলেও মৌসুমের শেষটা হতাশায় ঘেরা বার্সেলোনার। ভবিষ্যৎ ভাবনায় যা হতে পারে আরও খারাপ; লিওনেল মেসিকে ঘিরে অনিশ্চয়তা যে কাটেনি এখনও।

লা লিগার শেষ রাউন্ডে শনিবার এইবারের মাঠে খেলবে বার্সেলোনা। শিরোপা লড়াই থেকে আগেই ছিটকে পড়ায় ম্যাচটিতে তেমন কিছু পাওয়ার নেই রোনাল্ড কুমানের দলের। তাই হয়তো, কোচের অনুমতি নিয়ে ম্যাচটি না খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মেসি। আর তাতেই প্রশ্নটি মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে, বার্সেলোনার জার্সিতে আর কখনও দেখা যাবে ছয়বারের বর্ষসেরা ফুটবলারকে?

লিগে শুরুর মতো শেষটাতেও ধুঁকছে বার্সেলোনা। শেষ পাঁচ ম্যাচে তাদের জয় মাত্র একটি, দুটি করে হার ও ড্র। সবশেষ সেল্তা ভিগোর বিপক্ষে আগের রাউন্ডে হেরে শিরোপা লড়াই থেকে ছিটকে যায় তারা।

২০১৯-২০ মৌসুম শেষে গত বছরের অগাস্টে হঠাৎ করে চুক্তির একটি ধারা কার্যকর করে ফ্রি ট্রান্সফারে বার্সেলোনা ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন মেসি। কিন্তু ক্লাব তাতে রাজি না হওয়ায় অনিচ্ছাসত্ত্বেও চুক্তির শেষ পর্যন্ত থেকে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন মেসি। অবশেষে সেই সময়ও সন্নিকটে, চলতি মৌসুম দিয়েই শেষ হবে কাতালান ক্লাবটির সঙ্গে আর্জেন্টাইন তারকার চুক্তির মেয়াদ।

সাবেক সভাপতি জোজেপ মারিয়া বার্তোমেউ চলে যাওয়ায় এবং নতুন সভাপতি হিসেবে হুয়ান লাপোর্তা দায়িত্ব নেওয়ায় মেসির আগামীতেও কাম্প নউয়ে থাকার সম্ভাবনা জাগে। লাপোর্তাও অনেকবার আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে বলেছেন, মেসিকে রাজি করাতে পারবে ক্লাব। কিন্তু এখন পর্যন্ত তা আলোর মুখ দেখেনি।

দল ছাড়ার সিদ্ধান্তের পেছনে ক্লাবের তেমন কোনো ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা না থাকার কথা বলেছিলেন মেসি। সাফল্য খরাও যার মধ্যে অন্যতম। এক যুগের মধ্যে গত বছরই প্রথম শিরোপাশূন্য মৌসুম কাটায় ক্লাবটি। অনেক চড়াই-উতরাই পেরিয়ে গত এপ্রিলে দলটি কোপা দেল রে শিরোপা জিতলে হাসি ফোটে তাদের মুখে। তখন লিগ শিরোপা সম্ভাবনাও বেশ উজ্জ্বল ছিল তাদের। সব কিছু মিলিয়ে মেসিকে বোঝানোর মতো অনেক উপকরণই হাতে ছিল স্পেনের দ্বিতীয় সফলতম ক্লাবটির।

কিন্তু মৌসুমের শেষে এসে আবারও পরিস্থিতি পাল্টে গেছে। এখন সর্বোচ্চ তৃতীয় হয়েই লিগ শেষ করতে পারবে তারা। এইবারের মাঠে শনিবার বাংলাদেশ সময় রাত ১০টায় খেলবে বার্সেলোনা। দলটির বিপক্ষে প্রথম লেগে ১-১ গোলে ড্র করেছিল তারা। আবার তেমন কোনো হোঁচট খেলে ভেস্তে যেতে পারে তৃতীয় হওয়ার সম্ভাবনাও।

এর মধ্যেই এলো ম্যাচটিতে মেসির না থাকার খবর। শুক্রবার ক্লাবের ওয়েবসাইটে দেওয়া বিবৃতিতে তার আগাম ছুটিতে যাওয়ার কথা জানায় ক্লাব কর্তৃপক্ষ।

কিশোর বয়সে ২০০০ সালে বার্সেলোনায় পাড়ি জমিয়েছিলেন মেসি। যুব দলে রাঙিয়ে ২০০৪ সালে তার অভিষেক হয় মূল দলে। এরপর শুধুই সামনে ছুটে চলা। গত এক যুগের বেশি সময় ধরে ক্লাবটির সাফল্যের নায়ক মেসি। এখানে চারটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও ১০টি লা লিগাসহ জিতেছেন রেকর্ড ৩৫টি শিরোপা।

চলতি মৌসুমের শুরুর দিকে দলের মতো মেসিও ব্যক্তিগত পারফরম্যান্সে নিজের নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেননি। পরে ঘুরে দাঁড়ান দুর্দান্তভাবে। সব প্রতিযোগিতা মিলে ৪৭ ম্যাচে করেছেন ৩৮ গোল। এবারের লা লিগায় তার ৩০ গোল এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ। অষ্টম পিচিচি পুরস্কার প্রায় নিশ্চিতই বলা চলে তার।

এই মৌসুমেই বার্সেলোনার হয়ে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলার রেকর্ড গড়েছেন তিনি। ছাড়িয়ে গেছেন চাভি এরনান্দেসের ৭৬৭ ম্যাচের আগের কীর্তি। বার্সেলোনার জার্সিতে এখন মেসির মোট ম্যাচ সংখ্যা ৭৭৮।

আরেকটি মাইলফলকও স্পর্শ করেন ৩৩ বছর বয়সী মেসি। একই ক্লাবের হয়ে সবচেয়ে বেশি গোল করার রেকর্ডে টপকে গেছেন কিংবদন্তি পেলেকে। বার্সেলোনার হয়ে এখন তার গোল সংখ্যা ৬৭২।

সূত্র: বিডিনিউজ