রামুতে অসহায় ৪২৮ পরিবারে হাসি ফুটাতে ‘ইউনাইটেড পারপাস’ ও ‘পেনিএ্যাপিল’ ২১ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা সহায়তা

খালেদ শহীদ, রামুঃ
পবিত্র রমজানে মহামারি করোনায় গ্রামের কর্মহীন দরিদ্র ও অসহায় পরিবারে হাসি ফুটাতে কাজ করছে আন্তর্জাতিক সংস্থা ‘ইউনাইটেড পারপাস’ ও ‘পেনিএ্যাপিল’। গতকাল বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) দুপুরে রামু উপজেলার রাজারকুল ইউনিয়নের দরিদ্র ও অসহায় ৫০টি পরিবারের মাঝে ‘ইউনাইটেড পারপাস’ ও ‘পেনিএ্যাপিল’র উদ্যোগে ফিতরানার অর্থ বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধন করা হয়েছে। পবিত্র রমজানে ইফতার ও বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর মর্যাদার সাথে উদযাপনে দরিদ্র ও অসহায় পরিবার গুলোর চাহিদা পূরণ্যের লক্ষ্যে, এ সহায়তা দিতে ‘ইউনাইটেড পারপাস’ এর ‘স্মাইল’ প্রকল্প কাজ করছে। এই প্রকল্প বাস্তবায়নে আর্থিক সহায়তা দিচ্ছে ‘পেনিএ্যাপিল’। ‘ফিড আওয়ার ওয়ার্ল্ড ২০২১’ এর আওতায় কক্সবাজারের রামু উপজেলার রাজারকুল ইউনিয়নে পর্যায়ক্রমে ৪২৮ দরিদ্র ও অসহায় পরিবারকে শর্তহীন আর্থিক সহায়তা হিসেবে ২১ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা দেয়া হবে। মোবাইল ব্যাংকিং ‘নগদ’ এর মাধ্যমে প্রতি পরিবারকে ৫ হাজার টাকা প্রদান করা হচ্ছে। আগামী ৫ মে ২০২১ এর মধ্যে দরিদ্র ও অসহায় পরিবারকে এই সহায়তা প্রদান সম্পন্ন করা হবে।

রামু উপজেলার পূর্ব রাজারকুল ‘নছরত আছিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে’ অনুষ্ঠিত দরিদ্র ও অসহায় পরিবারের মাঝে নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন, আর্থিক সহায়তা প্রদানকারী সংস্থা ‘পেনিএ্যাপিল’ এর কান্ট্রি ডিরেক্টর আবদুল্লাহ আল হাসান। বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন, প্রকল্প বাস্তায়নকারী সংস্থা ‘ইউনাইটেড পারপাস’ এর ডিজাস্টার রিস্ক ম্যানেজমেন্ট ইউনিটের প্রধান মাসুদ রানা ও প্রজেক্ট ম্যানেজার সুনিল জীবন চাকমা, রাজারকুল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মুফিজুর রহমান, সাংবাদিক খালেদ শহীদ ও ইউপি সদস্য লিটন বড়ুয়া।

রাজারকুল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মুফিজুর রহমান বলেন, বাড়ি বাড়ি গিয়ে, যাচাই-বাছাই করে প্রকৃত গরীব-অসহায় পরিবারগুলাকে সনাক্ত করা হয়েছে। আমি খোঁজ নিয়েছি জেনেছি, প্রকৃত অসহায় পরিবারগুলোকে এই আর্থিক সহায়তা দেয়া হচ্ছে। যারা বিভিন্নভাবে সরকারি সহয়তা পেয়েছেন বা পাচ্ছেন, তাদেরকে এই তালিকায় রাখা হয়নি। তিনি ‘ইউনাইটেড পারপাস’ ও ‘পেনিএ্যাপিল’কে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, রাজারকুলের গরীব-অসহায় মানুষদের ভালোবেসে করোনার এই ক্রান্তিকালে আর্থিক সহায়তা দেয়ায়, রাজারকুল বাসীর পক্ষথেকে ‘ইউনাইটেড পারপাস’ ও ‘পেনিএ্যাপিল’কে আমি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

আর্থিক সহায়তা প্রদানকারী সংস্থা ‘পেনিএ্যাপিল’ এর কান্ট্রি ডিরেক্টর আবদুল্লাহ আল হাসান বলেন, পবিত্র রমজান ও ঈদুল ফিতরকে কেন্দ্র করে এই আর্থিক সহয়তা প্রদান করা হচ্ছে। কক্সবাজারের রামু উপজেলার রাজারকুল ইউনিয়নের ৪২৮ পরিবার ও সাতক্ষিরায় ৪২৭ দরিদ্র ও অসহায় পরিবারকে এই সহায়তা দেয়া হচ্ছে। প্রথম পর্যায়ে বাংলাদেশের এই দুই জায়গায় ৮৫৫ পরিবার এককালীন এই আর্থিক সহায়তা পাচ্ছে। প্রতি পরিবারকে শর্তহীনভাবে ৫ হাজার টাকা করে দেয়া হচ্ছে। রামু উপজেলার রাজারকুল ইউনিয়নের ৪২৮ পরিবার পাচ্ছেন ২১ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা। এই কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে মাত্র। আমাদের চেষ্টা থাকবে আরও বেশী পরিবার যেন এই সহায়তা পায়। রামুর অন্যান্য ইউনিয়নের আমাদের কার্যক্রম পরিচালিত হবে।