করোনা ভাইরাস রোধে একলাবের সচেতনতামূলক কর্মকান্ড অব্যাহত

প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ
একলাব ইউনিসেফ প্রকল্পের আওতায় মহেশখালী উপজেলার শাপলাপুর ও ছোট মহেশখালী ইউনিয়নে কোভিড-১৯ সংক্রমন মোকাবেলায় সচেতনতামূলক কর্মকান্ড অব্যাহত রয়েছে। এ লক্ষ্যে রবি ও সোমবার (১১-১২ এপ্রিল) শাপলাপুর ও ছোট মহেশখালী ইউনিয়ন পরিষদে ইউনিসেফ এর আর্থিক সহযোগিতায় জনসচেতনতা বৃদ্ধির জন্য কমিউনিটি কনসাল্টটেশন আয়োজন করা হয়।

গত ১১ এপ্রিল শাপলাপুর ইউনিয়ন সভাকক্ষে এ্যাডভোকেট আব্দুল খালেক চৌধুরীর সভাপতিত্বে কোভিড-১৯ সংক্রামন মোকাবেলায় জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতির বক্তব্যে ইউপি চেয়ারম্যান বলেন, “কোভিড-১৯ মহামারি মোকাবেলায় মহেশখালীতে একলাব প্রশংসনীয় কার্যক্রম পরিচালনা করেছে। একলাব মাঠ পর্যায়ের কর্মীদ্বারা ঘরে ঘরে সঠিকভাবে মাস্ক ব্যবহার ও কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন গ্রহনের জন্য সুরক্ষা এ্যাপস এর মাধ্যমে নিবন্ধন করতে জনগনকে উৎসাহিত করছে। তিনি একলাবের সচেতনতামূলক কাজে সহযোগিতা করার জন্য মসজিদের ইমাম, স্কুলের শিক্ষকদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।

সভায় স্বাগত বক্তব্যে প্রকল্পের কমিউনিটি এ্যানগেইজমেন্ট অফিসার তারেকুল হাসান রাসেল বলেন- সরকারের নিদের্শনা অনুযায়ী লকডাউন ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে এ মহামারী থেকে নিজেদের সুরক্ষিত ও অন্যকেও সুরক্ষিত রাখতে হবে।

এছাড়া সোমবার (১২ এপ্রিল) ছোট মহেশখালী ইউনিয়ন পরিষদ সভাকক্ষে প্যানেল চেয়ারম্যান রেজাউল করিম এর সভাপতিত্ব কোভিড-১৯ সংক্রমন প্রতিরোধে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন- প্রকল্পের কমিউনিটি এ্যানগেজমেন্ট অফিসার তারেকুল হাসান রাসেল।

এতে বর্তমান কোভিড-১৯ পরিস্থিতি ও ইউনিয়ন পরিষদের ভূমিকা নিয়ে কথা বলেন- ডেপুটি প্রোগ্রাম ম্যানেজার সাখাওয়াত আমীন। তিনি বাংলাদেশের সরকারের লকডাউনের প্রাক্কালে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার উপর গুরুত্বারোপ করেন। এজন্য জনপ্রতিনিধি শিক্ষক ও স্থানীয় দোকান মালিক সমিতির সমন্বয়ে কমিটি করা জন্য পরামর্শ দেন। উপস্থিত সবাই এই কমিটির মাধ্যমে ছোট মহেশখালী ইউনিয়ন এলাকায় কোভিড-১৯ এর প্রাদুর্ভাব হ্রাস করার জন্য সবাই ঐক্যমত প্রকাশ করেন। ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের পক্ষ থেকে দৈনিক ৫ বার আযানের পরে মুসল্লিদের মসজিদের আগমনের সময় স্বাস্থ্যবিধি সম্পর্কে মাইকে প্রচার করার জন্য পরামর্শ প্রদান করেন।

উন্মুক্ত আলোচনায় স্থানীয় মাধ্যমিক স্কুলের প্রধান শিক্ষক অরুন কান্তি দে বলেন- কোভিড-১৯ সচেতনতা বৃদ্ধিতে সকলকে যার যার অবস্থানে থেকে কাজ করতে হবে। লম্বাঘোনা বাজার দোকান মালিক সমিতির সভাপতি আব্দুল হাকিম দোকান ও বাজার ব্যবস্থাপনায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে ব্যবসা পরিচালনার জন্য সকলের প্রতি অনুরোধ জানান।

সভায় ছোট মহেশখালী ইউনিয়নের মহিলা কাউন্সিলর খুরশীদা বেগম, বাজার মসজিদের ইমাম মাওলানা আব্দুর রশিদ ধর্ম মন্ত্রণালয়ের কোভিড-১৯ সংক্রমনকালীন মসজিদে তারাবির নামাজ ব্যবস্থাপনার উপর পরিপত্র পাঠ করেন এবং এ সরকারী পরিপত্র অনুযায়ী মসজিদ কমিটিকে ভূমিকা নেয়ার জন্য আহবান জানান। এছাড়া স্থানীয় মাদ্রাসার প্রিন্সিপালও সভায় উপস্থিত ছিলেন।