কক্সবাজারে র‍্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ কিশোর গুলিবিদ্ধ

অনলাইন ডেস্কঃ
কক্সবাজার সদরের লিংকরোড এলাকায় র‍্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে মেহেদী হাসান বাবু নামের এক কিশোর গুলিবিদ্ধ হয়েছে। এ ঘটনায় তরিকুল ইসলাম (১৯) নামে একজনকে অস্ত্র ও মাদকসহ আটক করা হয়েছে।

গুলিবিদ্ধ বাবু কক্সবাজার সদরের ঝিলংজা দক্ষিণ মুহুরিপাড়ার আব্দুল্লাহর ছেলে। আর আটক তরিকুল রামু খাইম্যারঘোনা এলাকার আব্দুল করিমের ছেলে।

গুলিবিদ্ধ বাবুর পরিবারের দাবি- তার বয়স ১৪ বছর এবং সে ইলিয়াস মিয়া চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্র। আর র‍্যাব-১৫’র দাবি- বাবুর বয়স ১৭ বছর।

বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) বিকেল তিনটার দিকে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন র‍্যাব-১৫-এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আবু সালাম চৌধুরী।

তিনি বলেন, ‘ঝিলংজার লিংকরোড মেরিনসিটি কমপ্লেক্সের সামনে মাদক কারবারিরা ইয়াবা লেনদেন করতে জড়ো হয়েছে; এমন খবরে র‌্যাব অভিযানে গেলে মাদক ব্যবসায়ীদের সঙ্গে র‍্যাবের বন্দুকযুদ্ধ হয়। এসময় মেহেদী হাসান বাবু নামে একজন গুলিবিদ্ধ হয় এবং তরিকুল ইসলাম নামে একজন ইয়াবা ও অস্ত্রসহ র‍্যাবের হাতে আটক হয়।’

এদিকে র‍্যাবের দাবি- গুলিবিদ্ধ বাবু ও তরিকুল উভয়েই ইয়াবা ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। ঘটনাস্থল থেকে ৪ হাজার পিস ইয়াবা, ২ রাউন্ড তাজা কার্তুজ এবং একটি দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়।

অন্যদিকে গুলিবিদ্ধ বাবুর পরিবার বলছে, সে ইলিয়াস মিয়া চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্র। পাশাপাশি সে রংমিস্ত্রী হিসেবে দিন মজুরের কাজ করতো।

সর্বশেষ পাওয়া তথ্যমতে, র‍্যাবই গুলিবিদ্ধ বাবুকে দ্রুত উন্নত চিকিৎসার জন্য নিজ খরচে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

এদিকে, গুলিবিদ্ধ বাবুর প্রাথমিক চিকিৎসা চলাকালে কক্সবাজার সদর হাসপাতাল চত্বরে তার স্বজনরা কান্নায় ভেঙে পড়েন। তারা উপস্থিত সাংবাদিকদের জানান, বাবু ইয়াবা ব্যবসায়ী নয় এবং সে একজন নিয়মিত স্কুলছাত্র।

সূত্রঃ জাগোনিউজ