সময়মতোই হবে এশিয়া কাপ, ভারত পাঠাবে দ্বিতীয় সারির দল!

ক্রীড়া ডেস্কঃ
করোনার কারণে গত বছর এশিয়া কাপ ক্রিকেট অনুষ্ঠিত হতে পারেনি। পিছিয়ে দেয়া হয়েছিল একবছর। আয়োজক যদিও পাকিস্তান। তবে, এবারের এশিয়া কাপ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা শ্রীলঙ্কায়। আগামী জুনে।

কিন্তু কয়েকদিন আগেই পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) চেয়ারম্যান এহসান মানি শঙ্কা প্রকাশ করেছেন, এবারও এশিয়া কাপ অনুষ্ঠিত না হওয়ার কিংবা পিছিয়ে যাওয়ার। কারণ, ওই একই সময়ে ভারত খেলবে টেস্ট বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল।

তবে এশিয়া কাপ এবং বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল দুটিই একসঙ্গে খেলার সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে ভারত। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড বিসিসিআই এশিয়া কাপে দ্বিতীয় সারির আরেকটি দল পাঠানোর চিন্তা-ভাবনা করছে। ভারতীয় মিডিয়ায় জানা গেছে এ সংবাদ।

চলতি বছরে ঠাসা ক্রীড়াসূচি ভারতীয় ক্রিকেট দলের। একে তো একের পর এক সিরিজ, তার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল। জুনের মাঝামাঝি অনুষ্ঠিত হবে এই ম্যাচটি। যেখানে ভারতের প্রতিপক্ষ নিউজিল্যান্ড।

এই ম্যাচটির কারণে টিম ইন্ডিয়ার এশিয়া কাপ খেলা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছিল। কারণ টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনাল এবং এশিয়া কাপ প্রায় একই সময়ে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। বিসিসিআই সূত্র থেকে ভারতীয় মিডিয়া জানাচ্ছে, বিসিসিআই বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে অবশ্যই টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনালকে। সে ক্ষেত্রে এশিয়া কাপে পাঠানো হতে পারে দ্বিতীয় সারির একটি ভারতীয় দল।

১৮ জুন থেকে শুরু হবে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনাল। প্রায় একই সময়ে (জুন মাসে) এশিয়া কাপ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। সর্বশেষ এশিয়া কাপ অনুষ্ঠিত হয়েছিল ২০১৬ সালে। করোনার কারণে গতবছর এই টুর্নামেন্ট পিছিয়ে দেয়া হয়েছিল।

তবে এবার টুর্নামেন্ট আয়োজনে বদ্ধপরিকর এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল। পরিকল্পনা অনুযায়ী জুন মাসে শ্রীলঙ্কায় ৬ দলের এশিয়া কাপ ক্রিকেটের আসর বসার কথা। তাতে সায় ছিল ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড বিসিসিআইয়েরও; কিন্তু সমস্যা বেধে গেছে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে ভারত ওঠার পর থেকেই। আবার ওই ম্যাচের পর ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ৫ ম্যাচের টেস্ট সিরিজ রয়েছে ভারতের। এরপর হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ।

সে কারণেই সংশয় তৈরি হয়েছে এশিয়া কাপ নিয়ে। তবে বিসিসিআই সূত্র ভারতীয় মিডিয়াকে জানিয়েছে, ‘বিসিসিআই বিকল্প ভাবনা ভেবে রেখেছে। টেস্ট দলের সদস্যদের যদি নিতান্তই ইংল্যান্ডে থেকে যেতে হয়, সে ক্ষেত্রে তাদের বাদ দিয়েই দ্বিতীয় সারির দল পাঠাতে পারে টিম ইন্ডিয়া। তখন কোহলি, রোহিত, বুমরারা খেলবেন টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনাল। আর এশিয়া কাপে পাঠানো হতে পারে তরুণদের। অধিনায়ক করা হতে পারে লোকেশ রাহুল বা শ্রেয়াস আয়ারকে।’

এদিকে ভারতীয় দলের কোচ রবি শাস্ত্রী বলে দিয়েছেন, প্রয়োজনে ভারত দুটি জাতীয় দল গঠন করতে পারবে এবং তিনি ভারতীয় নির্বাচকদের পরামর্শ দিয়েছেন, এতবেশি প্রতিভা এখন ভারতীয় ক্রিকেটে, তাতে অনায়াসে তারা একাদিক দল গঠন করতে পারে। শুধু তাই নয়, ফরম্যাট অনুযায়ী প্রতিটি ফরম্যাটের জন্যই আলাদা আলাদা দল গঠন করার প্রস্তাব দিয়েছেন শাস্ত্রি।

সূত্রঃ জাগোনিউজ