ঘরের মাঠে নয় বছর পর ধবলধোলাই বাংলাদেশ

ক্রীড়া ডেস্কঃ
ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে ২০১৮ সালে, নিউজিল্যান্ডে ২০১৯ সালে এবং ভারতের বিপক্ষে অ্যাওয়ে ম্যাচে ২০২০ সালে ধবলধোলাই হয়েছে বাংলাদেশ। টেস্ট সিরিজে জয়হীন থেকে মাঠ ছাড়া বাংলাদেশের জন্য নতুন কোন খবর নয়। তবে ঘরের মাঠের সিরিজ হলে বড় তো বটেই খবরের শিরোনামও।

কারণ ঘরের মাঠে ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্ট জিতেছে বাংলাদেশ। হারেনি সিরিজ। ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ক্রিকেটের এলিট ফরম্যাটে ধবলধোলাই করেছে টাইগাররা। রুখে দিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা, ভারতকে পর্যন্ত। অথচ এবার ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে দুই টেস্টের সিরিজের দুটিতেই হতাশার হার ‘উপহার’ দিয়েছে বাংলাদেশ।

দীর্ঘ নয় বছর পরে দেশের মাটিতে ধবলধোলাই হওয়ার লজ্জায় ডুবেছে। এর আগে ২০১২ সালে ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুই ম্যাচের সিরিজের একটিতে ১০ উইকেটে এবং অন্যটিকে ৭৭ রানে হেরেছিল বাংলাদেশ। তখন টেস্টে বাংলাদেশ না পেত তেমন জয়ের দেখা, না পারতো অতটা লড়াই করতে।

এছাড়া নয় বছর আগের ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলে ছিলেন ক্রিস গেইল, শিবনারায়ন চন্দ্রপল, মারলন স্যামুয়েলসদের মতো ক্রিকেটার। অথচ এবার বাংলাদেশ ‘আধা অভিজ্ঞ’ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে মেনে নিল হতাশার হার।

এই নয় বছরে বাংলাদেশ ঘরের মাঠে ১৪টি টেস্ট সিরিজ খেলেছে। এর মধ্যে ছয়টি সিরিজে ড্র করেছে বাংলাদেশ। হেরেছে পাঁচটিতে। তবে ঘরের মাঠে আফগানিস্তানের বিপক্ষে এক টেস্টের সিরিজ বাইরে রাখলে ওই পাঁচ সিরিজ হারের একটিও ধবলধোলাই ছিল না।

বরং ঘরের মাঠে এই সময়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ-জিম্বাবুয়েকে ধবলধোলাই করেছে বাংলাদেশ। আর এবার ঘরের মাঠে ফেবারিট তকমা নিয়ে শুরু করা সিরিজে ধবলধোলাই হলো স্বাগতিকরা। তাও কিনা নিজেদের পাতা স্পিন ফাঁদে পড়েই।

সূত্রঃ সমকাল