ঢাকা টেস্ট দেখেই অধিনায়ক নিয়ে চিন্তা করবে বিসিবি!

ক্রীড়া ডেস্কঃ
বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন আজ বুধবার বিকেলে দেশের ক্রীড়াকেন্দ্র বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে আন্তঃওয়ার্ড ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, ক্রিকেট ও ফুটবল টুর্নামেন্টর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসেছিলেন।

সেখানে তার সাথে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা সিটি কর্পোরেশন দক্ষিণের মেয়র ফজলে নুর তাপস। ওই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিসিবি বিগ বস পাপন উপস্থিত সাংবাদিকদের সাথে বাংলাদেশের ক্রিকেট নিয়েও কথা বলেন।

সেখানে জাতীয় দলের ও ক্রিকেটারদেও ভ্যাকসিন প্রদান , বর্তমান টেস্ট পারফরমেন্স , টেস্ট দলের প্রস্তুতি, চলতি বছর তিন জাতি ক্রিকেট আয়োজন এবং অধিনায়ক মুমিনুল হক এবং হেড কোচ রাসেল ডোমিঙ্গোর পারফরমেন্স নিয়েও কথা বলেন পাপন।

কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন
ভ্যাকসিন দেওয়ার কথা আমরা অলরেডি বলে রেখিছি। আমরা আজকেই প্লেয়ারদের সঙ্গে কথা বলে ডেটটা ঠিক করবো, যে কবে (ভ্যাকসিন দেয়া হবে)। আমরা জায়গাটাও ঠিক করে রেখেছি, তালিকাও তৈরি আছে আমাদের কাছে। এখন শুধু কবে করবো সেটা। একটাই অপশন আছে যে, ১৫ তারিখে খেলা শেষ হওয়ায় আগে হচ্ছে না। টেস্ট ম্যাচ শেষ হওয়ার সাথে সাথে আমরা ভ্যাকসিন দেবো। বিষয়টা কাল-পরশুর মধ্যে আপনাদের জানাতে পারবো বলে আশা করছি।

জাতীয় দল নিয়ে
আজকে সাড়ে ছয়টা পুরো টিমের সঙ্গে জুম মিটিং আছে (এরই মধ্যে হয়ে গেছে)। আমি তাদের সঙ্গে কথা বলব। সিনিয়র প্লেয়ারদের সঙ্গে ইতোমধ্যে কথা হয়েছে, রেগুলারই হচ্ছে। এখন এখানে ডিমোটিভেট হওয়ার কোনো কারণ নেই। প্রথম কথা হচ্ছে ওয়েস্টইন্ডিজ ভালো খেলেছে। অস্বীকার করার উপায় নেই। ফিফথ ডেতে ডাবল সেঞ্চুরি করা অসম্ভব, এটা আমি মনে করি ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়ার মতো শক্তিশালী দেশও কখনও করতে পারেনি। কিন্তু ওরা করেছে, কিন্তু এর সাথে এটাও সত্যি যে আমরা যে পরিমাণ সুযোগ নষ্ট করছি, সে পরিমাণ সুযোগ নষ্ট করা যায় না। নষ্ট করলে যে (জয়) হাত ছাড়া হয়ে যায়, এটা হলো সবচেয়ে বড় বিষয়। আমি মনে করি যে এ বিষয়টাতে আমাদের আরো নজর দিতে হবে।

টেস্টের প্রস্তুতি
টেস্টের জন্য প্রস্তুতি নিব কী…? আমরা বলেছিলাম যে সামনের বছরটা আমরা টেস্টের জন্য সবচেয়ে বেশি মনযোগ দেবো। টেস্টে যাতে ইম্প্রুভমেন্ট হয়। ওই বছরটা তো করোনার জন্য আটকা। তাছাড়া হঠাৎ করেই তো আর হবে না। এক বছর পিছিয়ে গেছে। আমার দৃঢ় বিশ্বাস এই এক বছর টেস্টে জন্য আরও অনেক আমরা ভালো জায়গায় যেতে পারব।

ত্রিদেশীয় সিরিজ
অস্ট্রেলিয়ানরা সেপ্টেম্বর আসবে আমাদের এখানে খেলতে, এর আগে নিউজিল্যান্ড আসবে। এখন আমরা কথা বলে চেষ্টা করে দেখতে পারি একটা ট্রাই-নেশন করা যায় কি না। কিন্তু ওরা দুটা টিম আসবে এখন পর্যন্ত এতটুকু আমরা বলতে পারি।

কোচ ও অধিনায়ক প্রসঙ্গে
এই মুহূর্তে এসব নিয়ে আলোচনা করা ঠিক না, কারণ একটা সিরিজ চলছে। তাছাড়া আমার মনে হয় না, একটা খেলা দেখে একটা ম্যাচের পারফরম্যান্স দেখে এ রকমের কঠিন সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিৎ। একটা জিনিস মনে রাখবেন- এই ওয়েস্ট ইন্ডিজ টিমকে কিন্তু আমরা ওডিআইতে হোয়াইটওয়াশ করেছি মাত্র। কাজেই ওরা তো জিততেই পারে টেস্ট একটা। সেকেন্ড টেস্টে আমরা যাতে ভালো খেলি সেটাই হচ্ছে বড় কথা।

সূত্রঃ জাগোনিউজ