‘নারী সুরক্ষা’য় হিন্দু যুবকদের অস্ত্র হাতে নিতে বললেন বিজেপি নেতা

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ
মাঝে মাঝেই বিতর্কিত মন্তব্য করে আলোচনার জন্ম দেন ভারতের ক্ষমতাসীন বিজেপির সাংসদ ও দলের পশ্চিমবঙ্গের সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এবার নারীদের সম্মান বাঁচাতে হিন্দু যুবকদের সরাসরি হাতে অস্ত্র তুলে নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। বুধবার (৩০ ডিসেম্বর) এক জনসভায় তিনি এমন নির্দেশ দেন বলে দেশটির সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে।

জানা গেছে, এদিন পশ্চিম মেদিনীপুরের গড়বেতায় হিন্দু জাগরণ মঞ্চের একটি অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছিলেন দিলীপ ঘোষ। সেসময় এই বিতর্কিত মন্তব্য করে বসেন তিনি। দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘ভগবান রামচন্দ্র ছোট থেকে অস্ত্র তুলেছেন, মা-বোনেদের সম্মান রক্ষার্থে হিন্দু যুবকদের এক হতে হবে। প্রয়োজনে হলে অস্ত্র ধরতে হবে। সংবিধান আমাদের সেই অধিকার দিয়েছে। ধর্ম রক্ষার্থে, সম্মান রক্ষার্থে, প্রাণ রক্ষার্থে অস্ত্র ধরাটা আইনের চোখে কোনও অপরাধ নয়। আমরা সেটাই করব।’

তিনি আরও বলেন, ‘আগে প্রতিশোধ নিতে হবে, তারপর থানায় যেতে হবে।’

এর আগে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেনকেও তীব্র আক্রমণ করেন দিলীপ ঘোষ। অমর্ত্য সেন সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘বিশ্বভারতীর জায়গায় তার নাকি জমি রয়েছে। তিনি এ বিষয়ে জবাব দিন। না হলে মামলা করুন। কোনও সম্মানীয় ব্যক্তির বিরুদ্ধে এ ধরনের অভিযোগ যদি ভুল হয় সেটা ঠিক নয়। আর জমি যদি সত্যিই কব্জা করা হয়ে থাকে। তাহলে কি তিনি নোবেল পুরস্কার ফেরত দেবেন? উনি ভুল প্রমাণিত হলে কি বলা হবে জমি চোরকে নোবেল প্রাইজ দেয়া হয়েছে?’

তিনি আরও বলেন, ‘দেশ তাকে অনেক কিছু দিয়েছে। তিনি কি দিয়েছেন?’ এরপর মুখ্যমন্ত্রী মমতা মমতা ব্যানার্জিকে উদ্দেশ্য করে দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘মুখ্যমন্ত্রীর এই বিষয়ে তথ্য প্রমাণ দেয়া উচিত। তিনি (মমতা) ওখানে ছুটে গিয়ে ঝোল টানছেন।’

অমর্ত্য সেন সম্পর্কে তার এমন মন্তব্যের কঠোর সমালোচনা করেছে তৃণমূল এবং সিপিএম।

সূত্রঃ জাগোনিউজ