রামুতে ১৮তম বার্ষিক ইছালে ছওয়াব মাহফিলে: আবদুল আলী সিকদার বংশের মৃত পূর্বপুরুষের জন্য দোয়া প্রার্থনা

খালেদ শহীদ, রামুঃ
রামু-উখিয়ার প্রাচীন জনগোষ্ঠীর সংগঠন ‘আবদুল আলী সিকদার বংশ সংহতি সংঘ’র ১৮তম বার্ষিক ‘ইছালে ছওয়াব মাহফিল’ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (২৬ ডিসেম্বর) দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত ‘ইছালে ছওয়াব মাহফিলে’ দ্বীনি ইসলামে আত্মীয়তার সামাজিক বন্ধন সম্পর্কে আলোচনা করেন, আবদুল আলী সিকদার বংশ সংহতি সংঘের প্রধান উপদেষ্টা ও রামু উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এডভোকেট আবুল মনসুর। মাহফিলে দ্বীন ইসলামে আত্মীয়তার সম্পর্কে আলোচনা করেন, ইসলামীয়া এমদাদীয়া কাছেমুল উলুম মাদ্রাসার শিক্ষক হাফেজ মাওলানা ওবাইদুল গফুর, ধেচুয়াপালং কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা আবু তাহের। ‘আবদুল আলী সিকদার বংশ সংহতি সংঘ’র সভাপতি, ধেচুয়াপালং উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা আলহাজ্ব নুরুল ইসলাম চৌধুরীর সভাপতিত্বে ১৮তম ইছালে ছওয়াব মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

প্রধান আলোচক অ্যাডভোকেট আলহাজ্ব আবুল মনসুর বলেন, কক্সবাজার জেলার প্রথম শিক্ষিত পুরুষ আবদুল আলী সিকদার বংশের সন্তান। জেলার প্রথম আইনজীবি ও এমবিবিএস ডিগ্রীধারী চিকিৎসকও এই বংশের সন্তান। আমাদের পূর্বপুরুষরা রামু-কক্সবাজারের শিক্ষাব্যবস্থায় অগ্রগণী ভূমিকা পালন করেছেন। আমাদের প্রতেক্যের দায়িত্ব প্রজন্মকে শিক্ষিত করে গড়ে তোলা। আমাদের প্রত্যেক প্রজন্মকে শিক্ষিত করে, আবদুল আলী সিকদার বংশকে শিক্ষাবান্ধব করতে হবে। তিনি বলেন, অনেক আত্মীয়-পরিজন, আমাদের ছেড়ে পরপারে চলে গেছেন। আমরা তাদের জন্য এমন কিছু করতে চাই, যা হবে তাদের জন্য কল্যাণের ও শুভ পরিণতির বাহক। উপহার হিসেবে পৌঁছে যাবে তাদের রুহের কাছে। সে কাজই হলো ইছালে ছওয়াব মাহফিলের কোরআন খতম, তছবি তাহলীল। ইছালে ছওয়াব হল, মৃত আত্মীয়-স্বজনের কল্যাণের জন্য নেক আমল যা ইবাদত-বন্দেগী করা।

হাফেজ মাওলানা ওবাইদুল গফুর বলেন, আল্লাহ আমাদের মৃত স্বজনদের ইহকালিন পাপ মোচন করবেন। এ উদ্দেশ্যে কিছু সৎকর্ম ও ইবাদত-বন্দেগী এবং আল্লাহর কাছে নিবেদন করতে আমাদের আগ্রহের কমতি নেই। মহৎ এ উদ্দেশ্যে ‘আবদুল আলী সিকদার বংশ সংহতি সংঘ’র প্রজন্ম সন্তানরা ১৮ বছর ধরে ইছালে ছওয়াব মাহফিল আয়োজন করছেন। এই রেওয়াজ প্রজন্ম থেকে প্রজন্ম চালু রাখতে হবে। এ ধরনের কাজ বা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে, মরহুম পিতা-মাতা সহ সকল মৃত আত্মীয়-স্বজনের আত্মার মাগফিরাত কামনা করা হয়। তাদের জন্য দোয়া করা এবং ওয়াজ নসিহতের মাধ্যমে মানুষকে ইছালে ছওয়াব মাহফিলের দিকে আকৃষ্ট করা হয়। তিনি বলেন, আত্মীয়তার সম্পর্ক ছিন্নকারীরা জান্নাতে যাবে না।
‘আবদুল আলী সিকদার বংশ সংহতি সংঘ’র সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ খালেদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বক্তৃতা করেন, সংগঠনের সহ-সভাপতি ও উখিয়া উপজেলার হলদিয়াপালং ইউনিয়ন কমিউনিটি পুলিশিং সভাপতি মাহমুদুল হক সিকদার, যুগ্ম-সম্পাদক ডা. এম এম আবদুল গফুর, চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয়ের এডমিনিষ্ট্রেশন অফিসার শফিউল আলম চৌধুরী সোহাগ, কাউখারখোপ হাকিম রকিমা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আলী হায়দার, রামু কালারপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. রেজাউল করিম চৌধুরী, হলদিয়াপালং পাতারবাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক মো. ইসলাম সিকদার, রুস্তম আলী সিকদার প্রজন্ম কমিটি’র আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট ইছহাক শাহরিয়ার নিক্সন, হোছন আলী সিকদার প্রজন্ম কমিটি’র আহ্বায়ক ফরিদুল আলম, ফতেখাঁরকুলস্থ হায়দার আলী সিকদার প্রজন্ম কমিটির সদস্য এডভোকেট তানভীর শাহ, মাগনআলী সিকদার প্রজন্ম কমিটি’র সদস্য মো. সাইফুল ইসলাম, হলদিয়াপালংস্থ শমশের আলী সিকদার প্রজন্ম কমিটির আহ্বায়ক মোজাম্মেল হক সিকদার, ফতেহ আলী মাতবর প্রজন্ম কমিটির সদস্য মো. জয়নাল আবেদীন বাবু প্রমুখ।
রামু উপজেলার খুনিয়াপালং ইউনিয়নের দক্ষিণ ধেচুয়াপালং এলাকাস্থ বংশের রুস্তম আলী সিকদার প্রজন্ম পুরুষ ডা. এম এন আবদুল গফুরের গৃহাঙ্গনে অনুষ্ঠিত দিনব্যাপী ‘ইছালে ছওয়াব মাহফিলে’ ‘আবদুল আলী সিকদার বংশ সংহতি সংঘ’র প্রয়াত আত্মীয়-স্বজনদের স্মরণে খতমে কোরআন, তছবিহ তাহলীল ও দোয়া মাহফিল শেষে মেজবানে অংশ নেন প্রজন্ম সদস্যরা। আবদুল আলী সিকদার বংশ সংহতি সংঘের যুগ্ম সম্পাদক ডা. এম এম আবদুল গফুর ও রুস্তম আলী সিকদার প্রজন্ম কমিটি’র আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট ইছহাক শাহরিয়ার নিক্সনের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ‘আবদুল আলী সিকদার বংশ সংহতি সংঘ’র ১৮তম বার্ষিক ‘ইছালে ছওয়াব মাহফিল’ সম্পন্ন করা হয়।

‘আবদুল আলী সিকদার বংশ সংহতি সংঘ’র সাধারন সম্পাদক মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ খালেদ জানান, মানব সভ্যতা গড়ে উঠার সাথে সাথে রচিত হয় ইতিহাস। ঠিক তেমনি ভাবে প্রাচীন ইতিহাস ঐতিহ্য ও পারিবারিক ইতিকথা প্রজম্মের কাছের যুগ যুগ ধরে চালু রাখার প্রয়াসে ইছালে ছওয়াব মাহফিল আয়োজন করে ‘আবদুল আলী সিকদার বংশ সংহতি সংঘ’। সম্প্রীতি, ভ্রাতৃত্ব, আন্তরিকতা ও শ্রদ্ধার সম্মিলনে ১৮ বছর ধরে কক্সবাজারের রামু-উখিয়ার প্রাচীন জনগোষ্ঠীর এই সংগঠন প্রতিবছর বার্ষিক ইছালে ছওয়াব মাহফিল আয়োজন করছে।