রামুতে শ্রমিকলীগ সভাপতি কাজলের উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত

সোয়েব সাঈদঃ
জাতীয় শ্রমিকলীগ রামু উপজেলা সভাপতি শফিকুল আলম কাজল ও তার পরিবারের সদস্যদের উপর বর্বরোচিত সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে রামুতে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। জাতীয় শ্রমিকলীগ রামু উপজেলা শাখার উদ্যোগে সোমবার (২১ ডিসেম্বর) বিকালে এ প্রতিবাদ কর্মসূচি আয়োজন করা হয়।
রামু উপজেলা শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক সাহাব উদ্দিনের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিলে উপজেলা আওয়ামীলীগ, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের বিপুল নেতাকর্মী অংশ নেন। মিছিলটি রামু চৌমুহনী, বাইপাস সহ গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে চৌমুহনী স্টেশন চত্বরে প্রতিবাদ সমাবেশে মিলিত হয়।

রামু উপজেলা শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক সাহাব উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মো. আরিফুল ইসলামের সঞ্চালনায় প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন-রামু উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক নীতিশ বড়ুয়া, জেলা তাঁতীলীগের সহ সভাপতি আনছারুল হক ভূট্টো, রামু উপজেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক আপন বড়ুয়া, রামু উপজেলা তাঁতলীগের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাক আহমদ, বঙ্গবন্ধু সৈনিকলীগ রামু উপজেলা সভাপতি মিজানুল হক রাজা, সাধারণ সম্পাদক রাশেদুল হক বাবু, ফতেখাঁরকুল ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি আজিজুল হক আজিজ, রামু উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা তসলিম উদ্দিন সোহেল, রামু উপজেলা শ্রমিকলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি ফরিদুল আলম, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক বিবেকানন্দ শর্মা, কাজল ধর, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আমিন, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক ও কচ্ছপিয়া ইউনিয়ন সভাপতি আবুল তালেব, কাউয়ারখোপ ইউনিয়ন সভাপতি নুরুল হুদা, ঈদগড় ইউনিয়ন সভাপতি আবদুস সালাম, ট্রেড ইউনিয়ন সম্পাদক আজিজ প্রমূখ।

প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা বলেন- জাতীয় শ্রমিকলীগ রামু উপজেলা সভাপতি শফিকুল আলম কাজল ও তার মা, ভগ্নিপতি, ভাগনি সহ পরিবারের সদস্যদের উপর বর্বরোচিত সন্ত্রাসী হামলায় জড়িত সবাইকে অবিলম্বে গ্রেফতার করে শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। জড়িতদের বিচার না হওয়া পর্যন্ত শ্রমিকলীগসহ আওয়ামী পরিবারের নেতাকর্মীরা প্রতিবাদ-কর্মসূচি অব্যাহত রাখবে। বিভিন্ন ইউনিয়ন সভাপতির নেতৃত্বে শ্রমিকলীগের বিপুল নেতাকর্মী মিছিল-সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, রবিবার, ২০ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় রামুর ফতেখারকুল ইউনিয়নের লম্বরীপাড়ায় শ্রমিকলীগ সভাপতি কাজলের বোনের বাড়িতে হামলায় চালায় স্থানীয় একটি চক্র। এসময় বোনের পরিবারকে বাঁচাতে গিয়ে শফিকুল আলম কাজল এবং তার বৃদ্ধ মা সহ ৪ জন সন্ত্রাসী হামলার শিকার হন।