রামুতে নারী নির্যাতন বন্ধে জাগো নারী উন্নয়ন সংস্থার অবস্থান কর্মসূচি ও মোমবাতি প্রজ্জ্বলন

সোয়েব সাঈদঃ
দেশব্যাপী নারী ধর্ষণ ও নির্যাতনের প্রতিবাদে রামুতে জাগো নারী উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে অবস্থান কর্মসূচি ও মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করা হয়েছে। ‘নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ২০২০’ উদযাপন উপলক্ষে সোমবার (৩০ নভেম্বর) বিকাল ৫ টায় রামু উপজেলা পরিষদ সংলগ্ন কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বরে এসব কর্মসূচির আয়োজন করা হয়।
জাগো নারী উন্নয়ন সংস্থার নির্বাহী পরিচালক শিউলী শর্মার সভাপতিত্বে এ অবস্থান কর্মসূচি ও প্রতিবাদ সভায় বক্তারা বলেন, নারীরা পিছিয়ে গেলে দেশ পিছিয়ে যাবে। সাম্প্রতিক সময়ে দেশে চলমান নারী ধর্ষণ ও নির্যাতনের ভীবৎসতায় নারী সমাজ হতাশ ও বাকরুদ্ধ। এভাবে চললে নারীরা দেশের কল্যাণ দূরে থাক, নিজের বা পরিবারেরও কল্যাণে কাজ করতে পারবে না।

এতে বক্তব্য রাখেন, জাগো নারী উন্নয়ন সংস্থার প্রকল্প পরিচালক গৌতম বিশ্বাস, বিবিসি ১০০ প্রভাবশালী নারী হিসেবে নির্বাচিত জাগো নারী উন্নয়ন সংস্থার স্বেচ্ছাসেবী রিমা সুলতানা রিমু, স্বেচ্ছাসেবী উম্মে সালমা, মাথেনু রাখাইন, মাছেন হ্লা, রেশমি আকতার, শাহরিয়া মাহরিন মমতা। এতে সাংবাদিক নুরুল ইসলাম সেলিম, সোয়েব সাঈদ সহ সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সভাপতির বক্তব্যে জাগো নারী উন্নয়ন সংস্থার নির্বাহী পরিচালক শিউলী শর্মা সাম্প্রতিক সময়ে দেশে ভয়াবহ ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, একটি সভ্য দেশে এমন ভীবৎষ্যতা মেনে নেয়া যায়না। বাংলাদেশ যেন ধর্ষকদের স্বর্গরাজ্য। নারীরা চায় মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে। কিন্তু নরপশুদের বর্বরতা নারীর উন্নয়ন-অগ্রযাত্রায় এখন বড় বাঁধা হয়ে দাড়িয়েছে। আইনীভাবে শাস্তি নিশ্চিত না হওয়ার কারণেই মূলত ধর্ষণ-নির্যাতনের ঘটনা একের পর এক ঘটে যাচ্ছে। সরকারের উচিৎ এ ধরণের ঘটনা বন্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা। এছাড়া কর্মস্থল এবং সর্বত্র নারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করাও এখন সময়ের দাবি।

অবস্থান কর্মসূচি পালন শেষে বিকালে জাগো নারী উন্নয়ন সংস্থার পক্ষ থেকে নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন বন্ধের দাবিতে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন কর্মসূচি পালন করা হয়।