রামুর ফুটবলার বিজন বড়ুয়া বাফুফে’র তৃতীয়বারের মতো সদস্য নির্বাচিত

অনলাইন ডেস্কঃ
কক্সবাজারের রামু’র বাসিন্দা বিজন বড়ুয়া বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে) এর নির্বাহী সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। শনিবার ৩ অক্টোবর ঢাকাস্থ হোটেল সোনারগাঁর অনুষ্ঠিত বাফুফে’র নির্বাচনে কক্সবাজারের সন্তান সাবেক কৃতি ফুটবলার বিজন বড়ুয়া এই বিজয় লাভ করেন। এবার সহ বিজয় বড়ুয়া বাফুফে’র তৃতীয়বারের মতো নির্বাহী সদস্য নির্বাচিত হলেন। কক্সবাজার জেলা ক্রীড়া সংস্থার নির্বাহী সদস্য ও জেলা ফুটবল ফেডারেশনের সাবেক সভাপতি জাহেদ উল্লাহ জাহেদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বিজন বড়ুয়া (৪৯) রামু’র ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের হাইটুপী গ্রামের মহেন্দ্র বড়ুয়া ও আলোকময়ী বড়ুয়ার সন্তান। তিনি জাতীয় ফুটবল দলের গোলরক্ষক, ঢাকা মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের গোলরক্ষক, কক্সবাজার জেলা ফুটবল দলের অধিনায়ক, কক্সবাজার জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ সভাপতি, জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনের সিনিয়র সহ সভাপতি ছিলেন। জাতীয় যুব ফুটবল দলের প্রতিনিধি হয়ে বিজন বড়ুয়া বিশ্বের বিভিন্ন দেশ সফর করেছেন। বাফুফে’র আগের ২টি কার্যকরী কমিটিতেও কক্সবাজারের সন্তান বিজন বড়ুয়া নির্বাহী সদস্য হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন। এবারের নির্বাচনে তিনি সালাহউদ্দীন-সালাম মুর্শেদী প্যানেল থেকে নির্বাচন করে ১৫ জন সদস্যের মধ্যে বিজন বড়ুয়া তৃতীয় সর্বোচ্চ ৮৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। নির্বাচনে ১৩৯ জন ভোটারে মধ্যে ভোট দিয়েছেন ১৩৫ জন। নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার ছিলেন মেজবাহ উদ্দিন।

বাফুফে নির্বাচন ২০২০ নির্বাচিত হলেন যারা :
সভাপতি পদে কারা কত ভোট পেলেন:
কাজী সালাহউদ্দীন চতুর্থবারের মতো বাফুফে’র সভাপতি নির্বাচিত।
কাজী সালাহউদ্দীন ৯৪ ভোট,
বাদল রায় ৪০ ভোট, শফিকুল ইসলাম মানিক ১ ভোট।

সিনিয়র সহ সভাপতি পদে কে কত ভোট পেলেন : আব্দুস সালাম মুর্শেদী নির্বাচিত।
আব্দুস সালাম মুর্শেদী ৯১ ভোট, শেখ মোহাম্মদ আসলাম ৪৪ ভোট।

সহ সভাপতি পদে কে কত ভোট পেলেন :
১. ইমরুল হাসান ৮৯ (নির্বাচিত)
২. কাজি নাবিল এমপি ৮১ (নির্বাচিত)
৩. আতাউর রহমান মানিক ৭৫ (নির্বাচিত)
৪. মহিউদ্দিন মহি ৬৫ (পেন্ডিং)
৫. তাবিথ আউয়াল ৬৫ (পেন্ডিং)
৬. শেখ মারুফ ৬১
৭. আমিরুল ইসলাম বাবু ৫৬
৮. আব্দুল্লাহ আল ফুয়াদ ৪৮

বাফুফের কার্যনির্বাহী সদস্য পদে নির্বাচিত ১৫ সদস্যরা হলেন :
জাকির হোসেন (৮৭), আব্দুল ওয়াদুদ পিন্টু (৮৬), বিজন বড়ুয়া, কক্সবাজার (৮৫), আরিফ হোসেন মুন (৮৫), নুরুল ইসলাম নুরু (৮৪), মাহিউদ্দিন আহমেদ সেলিম (৮৪), টিপু সুলতান (৮১), সত্যজিৎ দাস রুপু (৭৬), মোঃ ইলিয়াস হোসেন (৭৪), ইমতিয়াজ হামিদ সবুজ (৭১), মাহফুজা আক্তার কিরন (৭০), হারুনর রশীদ (৭০), আমের খান (৬৯), মোঃ সাইফুল ইসলাম (৬৯), মহিদুর রহমান মিরাজ (৬৮)।