তৈয়ব উল্লাহ চৌধুরী অসুস্থ হয়ে আবারও হাসপাতালে ভর্তি : দোয়া কামনা (আপডেট)

হাফিজুল ইসলাম চৌধুরী :
কক্সবাজারের রামুর গর্জনিয়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সফল চেয়ারম্যান তৈয়ব উল্লাহ চৌধুরী বুধবার গভীর রাতে আবার হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, তিনি দীর্ঘ এক বছরের অধিক সময় ধরে, কিডনি রোগ শনাক্ত হওয়ার পর থেকে ডায়ালাইসিস (কৃত্রিম উপায়ে রক্ত পরিশোধন) করে আসছেন।

প্রাণের প্রিয় গর্জনিয়া ছেড়ে তৈয়ব উল্লাহ চৌধুরীর ঠাঁই হয়েছে চট্টগ্রাম শহরের একটি ফ্ল্যাটবাড়িতে। ওই বাড়ি আর হাসপাতালেই দিন অতিবাহিত হচ্ছে উনার। বুধবার রাতে আবার অসুস্থতা বেড়ে গেলে তাঁকে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

৭০ বছর বয়সী তৈয়ব উল্লাহ চৌধুরী রামুর রাজনৈতিক অঙ্গনে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একজন ব্যাক্তি। কক্সবাজার সরকারি কলেজ ছাত্র সংসদের ভিপি থাকাকালিন ১৯৭১ সনের ৩মার্চ কলেজ ক্যাম্পাসে সর্বপ্রথম তিনিই জেলার মধ্যে বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করেন। আ স ম আব্দুর রবের একনিষ্ট সৈনিক ছিলেন তিনি। পালন করেছেন স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনের অন্যতম নেতার ভূমিকা। একাধারে ছিলেন মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক। মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী অল্প বয়সেই স্বাধীন বাংলাদেশের গর্জনিয়া ইউপির চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন তিনি। এর পর একে একে চার বার ছিলেন ইউপি চেয়ারম্যান। এরশাদ সরকারের আমলে লড়াই করেছিলেন রামু উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে। উপজেলা চেয়ারম্যান পদে জয় লাভের পরও তৎকালিন স্বৈরাচারি সরকার উনাকে হারিয়ে দিয়েছিলো। তিনি বর্তমান সময়েও শিক্ষার জন্য বিশেষ ভূমিকা রেখে চলেছেন।

বর্তমানে অসুস্থ তৈয়ব উল্লাহ চৌধুরীর সঙ্গে হাসপাতালে আছেন তাঁর সহধর্মীনি গর্জনিয়া উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কায়ছার জাহান চৌধুরী, ছোট ছেলে আলিফ মাহমুদ আশিক চৌধুরী, পুত্রবধু সাজনীন জাহান সামিয়া এবং ভাতিজা ইনজামাম উল হক চৌধুরী। তাঁরা তৈয়ব উল্লাহ চৌধুরীর সুস্থ্যতা কামনায় সর্বমহলের কাছে দোয়া প্রার্থনা করেছেন।