বুদ্ধির জোরে রক্ষা পেল তৃতীয় শ্রেণীর শিক্ষার্থী

 হাফিজুল ইসলাম চৌধুরী :

কক্সবাজারের রামুর গর্জনিয়া ও কচ্ছপিয়া ইউনিয়নে দুইটি ইস্যুকে সামনে রেখে সার্বিক আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটানোর চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে সন্ত্রাসীরা।

এরই অংশ হিসাবে ১৯ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যা ৭টায় একই সময়ে শিশু অপহরণ ও ডাকাতির চেষ্টা করা হয়েছে। গর্জনিয়ার থোয়াংগেরকাটা এবং কচ্ছপিয়ার দক্ষিণ মৌলভিকাটা গ্রামে পৃথক এ ঘটনা ঘটে।

এর আগে গত ১৭ জানুয়ারি গর্জনিয়ার বড়বিল এলাকা থেকে অপহরণ করে হত্যা করা হয় শিশু শিক্ষার্থী দুই সহোদর মোহাম্মদ হাসান শাকিল (১০) ও মোহাম্মদ হোসাইন কাজলকে (৮)।

ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ড ইউপি সদস্য আবু তাহের জানিয়েছেন, শুক্রবার সন্ধ্যায় বাড়ির উঠান থেকে মুখোশ পরিহিত এক ব্যাক্তি স্থানীয় ফেরদৌস আলীর শিশু ছেলে থোয়াংগেরকাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্র মোহাম্মদ খোকনকে কোলে তুলে নিয়ে অপহরণের চেষ্টা করে। এসময় সে তাৎক্ষণিক বুদ্ধি খাটিয়ে চিৎকার করার সাথে সাথে প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসলে মুখোশ পরিহিত ব্যাক্তিটি শিশুটিকে রেখে সাবেক চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলামের একাশি বাগানের গহীন পাহাড়ি এলাকা দিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়।

ঘটনার পর থেকে ওই এলাকায় ফের আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে বলে স্বীকার করেছে ইউপি সদস্য আবু তাহের। এদিকে একই সময়ে কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের দক্ষিণ মৌলভিকাটা গ্রামে ডাকাতির চেষ্টা করেছে বাকী সন্ত্রাসীরা। তবে জনতা ও পুলিশের ধাওয়া খেয়ে তারা পালিয়ে গেছে বলে স্থানীয়রা নিশ্চিত করেছেন।

গর্জনিয়া পুলিশ ফাঁড়ীর ইনচার্জ এএসআই পলাশ চন্দ্র সিংহ এসবের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পুলিশ অপরাধীদের প্রতিরোধে সজাগ রয়েছে। শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টায় এ প্রতিবেদন লিখা পর্যন্ত মৌলভিকাটার বিভিন্ন পাহাড়ে অভিযান চালাচ্ছিল পুলিশ।