মুক্তিযোদ্ধা মোজাফফর আহমদের খামারে দুর্ধর্ষ ডাকাতিঃ রামুতে এক সপ্তাহের ব্যবধানে ১৩টি গরু ডাকাতি !

আমাদের রামু প্রতিবেদকঃ
রামুর মুক্তিযোদ্ধা মোজাফফর আহমদের খামার থেকে ৫ টি গরু, ৩টি মোবাইল ফোন সেট ও অফিসের টেলিভিশন লুট করেছে দুর্ধর্ষ ডাকাতদল। অস্ত্রের মুখে খামারের দুই কর্মচারিকে মারধর ও বেধে রেখে লুটতরাজ চালায় ডাকাতরা।

শনিবার দিবাগত (২ মে) রাত ২টায় রামুর ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের হাইটুপী বুথপাড়া এলাকায় চৌমুহনী-উখিয়ারঘোনা সড়কের পার্শ্ববর্তী খামারে এ ডাকাতির ঘটনা ঘটে।

খবর পেয়ে রামু থানার ওসি আবুল খায়ের ডাকাতিস্থলে যান। তিনি (ওসি) এ ঘটনায় জড়িতদের চিহ্নিত করে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নেবেন বলে জানান।

মুক্তিযোদ্ধা মোজাফফর আহমদ আমাদের রামু ডটকম কে জানান, তাঁর খামারের কর্মচারী নেওয়াজ ও ইয়াসির আরাফাতকে প্রথমে অস্ত্রের মুখে জিম্মি ও পরে পার্শ্ববর্তী খামার অফিসে বেধে রেখে লুটপাট চালায় ডাকাতদল। ডাকাতরা কর্মচারি ও অফিসে ব্যবহৃত ৩টি মোবাইল ফোন সেট এবং ১ টি এলইডি টেলিভিশন লুট করে। লুট হওযা ৫টি গরুর মূল্য ৪ লাখ টাকা। সবমিলিয়ে তাঁর ক্ষয়ক্ষতির পরিমান ৫ লাখ টাকা।

এরআগে গত সোমবার রামুর ফতেঁখারকুল ইউনিয়নের সাতঘরিয়া পাড়ায় ২ গৃহকর্তার ৫টি এবং রবিবার রাতে ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের সিপাহীরপাড়া এলাকার জাফর আলমের বাড়ি থেকে একই স্টাইলে ৩টি গরু লুট করে সশস্ত্র ডাকাতদল।

এনিয়ে ৬ দিনের ব্যবধানে রামুতে ২ বসত বাড়ি ও ১টি খামার থেকে ১৩টি গরু ডাকাতি হলো।

রাতের পর রাত অব্যাহত ডাকাতির ঘটনায় গরু খামারী ও প্রান্তিক চাষিদের মাঝে চরম আতংক বিরাজ করছে।