রামুর আওয়ামী লীগ নেতা নজিবুল আলমের ইন্তেকাল : জানাযা সম্পন্ন

                           এমপি কমল ও বিভিন্ন নেতৃবৃন্দের শোক

নীতিশ বড়ুয়া :
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ রামু উপজেলার সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক নজিবুল আলম ইন্তেকাল করেছেন। তিনি রবিবার (১৯ এপ্রিল) রাত সাড়ে ১১ টার দিকে হৃদ রোগে আক্রান্ত হয়ে নিজ বাড়িতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।

তিনি স্ত্রী, ১ মেয়ে ২ ছেলেসহ অসংখ্য আত্মীয় স্বজন রেখে যান। ২০ এপ্রিল সোমবার জুহরের নামাজের পর পশ্চিম মেরংলোয়া জামে মসজিদ মাঠে মরহুমের জানাযার নামাজ শেষে স্থানীয় কবরস্থানে তাঁকে দাফন করা হয়।

নজিবুল আলম রামু ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের পশ্চিম মেরংলোয়া মুন্সিপাড়ার বাসিন্দা সাবেক প্রধান শিক্ষক মরহুম সিরাজুল ইসলাম এর প্রথম পুত্র ও রামু উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক শামসুদ্দিন হারুন, সড়ক পরিবহণ শ্রমিকলীগ নেতা শহিদুল আলম সাজু ও ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের মেম্বার রোকন উদ্দিন এর বড় ভাই।

নজিবুল আলমের ভাইপো, ছাত্রলীগ নেতা নাহিদুল ইসলাম নাহিদ জানান, রাতে তিনি হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে স্থানীয় ডাক্তার সুজিত কুমার শর্মা তাকে মৃত ঘোষনা করেন। নাহিদ জানান, নজিবুল আলম দীর্ঘদিন ধরে হৃদরোগে আক্রান্ত ছিলেন।

এদিকে স্বৈরচার বিরোধী আন্দোলনের রাজপথ কাঁপানো জননেতা, রামু উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক নজিবুল আলমের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন কক্সবাজার- ৩ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল। এক শোক বার্তায় এমপি কমল মরহুম আওয়ামী লীগ নেতা নজিবুল আলমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে শোক সন্তপ্ত পরিবার পরিজনের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

এ ছাড়াও রামু উপজেলা আওয়ামী লীগের দু:সময়ের সাংগঠনিক সম্পাদক নজিবুল আলমের মত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন রামু উপজেলা যুবলীগের সভাপতি, উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান রিয়াজ উল আলম, সাধারণ সম্পাদক নীতিশ বড়ুয়া, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ সাধারণ সম্পাদক তপন মল্লিক প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।