পিঠা উৎসব, আলোচনা ও কেক কেটে বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবর্ষ উদযাপন শুরু করল কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ

আমাদের রামু প্রতিবেদকঃ
পর্যটন রাজধানী কক্সবাজারে একমাত্র মেডিকেল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ আড়ম্বরপূর্ণ আয়োজনের মধ্যদিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শতবর্ষ পালন করেছে। মেডিকেল কলেজ ক্যাম্পাসে পতাকা উত্তোলনের মধ্যদিয়ে দিনের কর্মসূচি শুরু করা হয়।

পরে একে একে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে পুস্পস্তবক অর্পণ, কেক কেটে পিতা মুজিবের জন্ম শতবর্ষের আনন্দ উদযাপন, স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি, পিঠা উৎসব ও আলোচনা পর্বের মাধ্যমে দিনটিকে স্মরণীয় করে রেখেছেন মেডিকেল শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা।

কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ অধ্যক্ষ ও রক্তরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. অনুপম বড়ুয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বক্তাগণ বলেন, একজন মুজিবের জন্যই আজকে আমরা বাংলাদেশ পেয়েছি। তাঁর জন্ম না হলে হয়তো বাংলাদেশ নামের রাষ্ট্রটিরই জন্ম হতো না।

তারা বলেন, বঙ্গবন্ধু এই দেশ স্বাধীন করেছিলেন বলেই কক্সবাজারে মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠা পেয়েছে। আর তাঁরই যোগ্য উত্তরসূরী শেখ হাসিনা রাষ্ট্র ক্ষমতায় আছেন বলেই দেশ এগিয়ে যাচ্ছে।

বক্তাগণ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং তাঁর পরিবারের সদস্যদের দীর্ঘায়ূ কামনা করেন।

আলোচনা পর্বে অংশ নেন বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশনের (বিএমএ) কক্সবাজার জেলা শাখার সভাপতি ডা. পু চ নু, সাধারণ সম্পাদক ও জেলা আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. মাহবুবুর রহমান, কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. মহিউদ্দিন ও কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ডা. মো. সাখাওয়াত হোসেন।

বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবর্ষে মেডিকেল শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা স্বেচ্ছায় রক্ত দিয়ে জাতির পিতার প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। এছাড়াও প্রথাগত ভাবে কেক কেটে জন্ম উৎসব উদযাপন করা হয়। অনুষ্টানের ফাঁকে কলেজ শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে পিঠা উৎসবেরও আয়োজন করা হয়। এই উৎসব থেকে অনুষ্টানে অংশগ্রহণকারি সকলকে পিঠা খাইয়ে আপ্যায়ন করা হয়।

অনুষ্ঠানের ফাঁকে ফাঁকে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গবন্ধুর জীবনী নিয়ে কবিতা আবৃত্তি ও বক্তৃতা করেন মেডিকেল কলেজ শিক্ষার্থীরা।

কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. অনুপম বড়ুয়া জানান, আগামী একটি বছর বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবর্ষ নানা আয়োজনের মধ্যদিয়ে পালন করা হবে।