চোখ থাক সুস্থ

লাইফস্টাইল ডেস্কঃ
কম্পিউটার, স্মার্ট ফোন, ট্যাব— যাপিত-জীবনে জড়িয়ে থাকা এইসব যন্ত্রগুলো ব্যবহার করতে গিয়ে চাপ পড়ছে চোখে। তাই দরকার বাড়তি সতর্কতা।

নানান কাজে কম্পিউটারের দিকে তাকিয়ে থাকা, টিভি দেখা বা গেইমস খেলা। এসব কারণে খুব কম বয়সেই চোখে সমস্যা দেখা দিতে পারে।

অধিকাংশ কম্পিউটার ব্যবহারকারী কম্পিউটার ভিসন সিন্ড্রোম বা সিভিএস’য়ে আক্রান্ত। একটি স্বাস্থ্য বিষয়ক ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানা যায়, নিয়মিত চোখের পলক ফেলা এবং কাজের ফাঁকে বিরতি নেওয়া চোখের জন্য খুবই উপকারী।

প্রতিবেদনে জানানো হয় এক নাগাড়ে অনেকক্ষণ মনিটরের সামনে বসে থাকলে হৃদরোগ, ডায়াবেটিস বা স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ে।

যারা নিয়মিত কম্পিউটারে কাজ করেন বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই তারা কম্পিউটার ভিসন সিন্ড্রোমের কারণে কাজ ছেড়ে দেন। কিছু সহজ পদক্ষেপ মেনে চললে এই সমস্যা এড়ানো সম্ভব।

লন্ডন ভিসন ক্লিনিকের অধ্যাপক ড্যান রেইনস্টাইন বলেন, “স্বাভাবিক অবস্থায় প্রতি মিনিটে ১৮ থেকে ২০ বার চোখের পলক পড়ে। তবে আমরা যখন দীর্ঘ সময় ধরে কম্পিউটারে কাজ করি তখন প্রতি মিনিটে চার থেকে সাতবার চোখের পলক পড়ে। এ কারণে চোখে শুষ্কভাব হওয়ার পাশাপাশি দূরের জিনিস ঝাপসা লাগাতে পারে।”

এছাড়াও চোখ লাল হয়ে যাওয়া, চোখব্যথা, মাথাব্যথা, একটি জিনিস দুটি দেখা ইত্যাদি সিভিএস’য়ের কিছু সাধারণ উপসর্গ।

সিভিএস প্রতিরোধ এবং চোখ সুস্থ রাখার বিষয়ে অধ্যাপক রেইনস্টেইন কিছু উপায় জানান।

– কম্পিউটারে কাজ করার সময় প্রতি ঘণ্টায় অন্তত একবার বিরতি নিতে হবে। বিরতির সময় কম্পিউটার মনিটর থেকে দূরে থাকা উচিত।

– নিয়মিত চোখের পলক পড়ছে কিনা সে সম্পর্কে সচেতন থাকতে হবে।

– কম্পিউটারের মনিটর নিয়মিত পরিষ্কার রাখুন।

– দেহের আদ্রতা ধরে রাখতে বেশি পরিমাণে পানি পান করতে হবে।

– কম্পিউটার এমন স্থানে রাখতে হবে যেন জানালা, ঘরের বাল্ব বা বাতির আলো সরাসরি মনিটরে বা চোখে না পড়ে।

– এসি ও ফ্যান চোখ শুষ্ক করে ফেলে যা সিভিএস’য়ের ঝুঁকি বাড়ায়। এজন্য পরিবেশগত ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে।

– কম্পিউটার ব্যবহারের সময় কন্ট্যাক্ট লেন্স ব্যবহার না করাই ভালো।

– নিয়মিত চোখ পরীক্ষা করাতে হবে।

সূত্রঃ বিডিনিউজ