ইফতার নিয়ে খালেদা জিয়া অসন্তুষ্ট হলে ব্যবস্থা নেব: কাদের

অনলাইন ডেস্কঃ
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ইফতার নিয়ে আপত্তি থাকলে, খালেদা জিয়ার কষ্ট হলে আমরা অতিরিক্ত ব্যবস্থা করব। ইফতার নিয়ে রাজনীতি হবে, এটা প্রত্যাশা করা যায় না।

বুধবার দুপুরে আগারগাঁওয়ে মেট্রোরেল কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, রমজান মাসে ইফতার একটা ধর্মীয় বিষয়। ইফতারে খুব বেশি টাকার সামগ্রী মানুষ ব্যবহার করে বলে আমার জানা নেই। এটা নিয়ে একটা পলিটিকস হবে, প্রত্যাশা করা যায় না। তিনি বলেন, বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার ইফতার জেলকোড অনুযায়ী দেওয়া হচ্ছে। এখন জেলে থাকলে তো জেল কোড মেনে নিতে হবে। সে আমরা যে-ই হই না কেন। খালেদা জিয়া কয়েদি সুবিধা ও অসুবিধা জেল কোড অনুযায়ী পাবেন। এই ব্যবস্থা অনেক আগে থেকেই চালু, জেল যখন থেকে শুরু হয়েছে। তখন থেকেই জেল কোড অনুযায়ী রোজা ও ইফতার হচ্ছে। এটা নিয়ে বিতর্ক হতে পারে না। রাজনীতি হতে পারে না।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের উদ্দেশে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, আমি তারপরও বলি, এই ৩০ টাকার ইফতার খেতে খালেদা জিয়া যদি অসন্তুষ্ট হন, তাঁর চাহিদার তুলনায় একেবারেই কম হয়, তাহলে আমরা কর্তৃপক্ষকে বলতে পারি। তাঁর জন্য অতিরিক্ত ব্যবস্থা করতে। এটা নিয়ে রাজনীতি ও বিতর্ক করার কিছু নেই৷

দেশে ভয়াবহ পরিস্থিতি বিরাজ করছে, বিএনপির এমন অভিযোগের বিষয়ে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, সব সময় বিরোধী দলের চোখে দেশে ভয়াবহ পরিস্থিতি বিরাজ করে। দেশের জনগণ পরিস্থিতিটা কীভাবে মেনে নিচ্ছে, সেটা হলো বড় কথা। আজকে দেখুন রাস্তার অবস্থা, মানুষ যাত্রা নিরাপত্তা চায়, স্বস্তি চায়। এই বিষয়টা এই মুহূর্তে ঘাটতি হচ্ছে বলে জানা নেই। তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশে এমন কোনো ঘটনা বর্তমানে হচ্ছে না যেটার জন্য পরিস্থিতিটাকে ভয়াবহ বলা হবে। আমার বিশ্বাস দেশের অবস্থা আরও উন্নত হবে। আপনি একনায়ক কেন বলছেন? এক নায়কের শাসন চললে আপনি সংসদে থেকে এই কথাটা বলতেন। আপনি নিজেই তো দেশের গণতান্ত্রিক পরিবেশ বা বিরোধী দলের ভূমিকা রাখছেন না।

২০২১ সালের ডিসেম্বরে মেট্রোরেল চালু হবে

স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীর বছর ২০২১ সালের ১৬ ডিসেম্বর মেট্রোরেল চালু হবে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। আগারগাঁওয়ে মেট্রোরেল নির্মাণের অগ্রগতি বিষয়ক এক সভা শেষ তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, এ বছরের মধ্যে উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত মেট্রোরেলের কাজ শেষ হবে। আর মেট্রোরেলের মতিঝিল পর্যন্ত কাজ শেষ করতে ২০২০ সাল পর্যন্ত সময় লাগবে। এর বাইরেও আরও কিছু কাজ আছে। তিনি বলেন, ২০২১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবসে সম্পূর্ণ রুটের ট্রায়াল রান শেষে আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করবে দেশের প্রথম মেট্রোরেল।

দেশের প্রথম পাতাল রেল নির্মাণের প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রী কাদের বলেন, ২০ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের এই পাতাল রেলের দুটি অংশ থাকবে। প্রথম অংশটি বিমানবন্দর থেকে কমলাপুর পর্যন্ত, দ্বিতীয় অংশটি নতুন বাজার থেকে পূর্বাচল পর্যন্ত। তিনি বলেন, এরই মধ্যে এই পাতাল রেল বা আন্ডারগ্রাউন্ড মেট্রোরেলের সম্ভাব্যতা যাচাইসহ বিভিন্ন সার্ভে শেষ হয়েছে। মূল নকশা প্রণয়নের কাজও শেষের দিকে। এই প্রকল্পে ব্যয় হবে প্রায় ৫৩ হাজার কোটি টাকা। এর মধ্যে একটি অংশের প্রায় চার হাজার কোটি টাকার ঋণচুক্তি জাপানে প্রধানমন্ত্রীর সফরে সই হওয়ার কথা। সব মিলিয়ে দেশে ২০৩০ সালের মধ্যে ছয়টি মেট্রোরেল রুট চালু হবে।

সূত্রঃ প্রথম আলো