‘থলের বিড়াল’ বেরিয়ে গেছে সিইসির কথায়: রিজভী

অনলাইন ডেস্কঃ
একাদশ সংসদ নির্বাচনে ভোট ডাকাতির যে অভিযোগ জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট তুলেছে, প্রধান নির্বাচন কমিশনারের সাম্প্রতিক বক্তব্যকে তার প্রমাণ হিসেবে দেখাচ্ছে বিএনপি।

দলটির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, সিইসির বক্তব্যে ‘থলের বিড়াল’ বেরিয়ে গেছে।

একাদশ সংসদ নির্বাচনে শোচনীয়ভাবে হারা বিএনপি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অভিযোগ, ভোটের আগের রাতেই ব্যালটবাক্স ভর্তি করে রাখা হয়েছিল।

সিইসি কে এম নূরুল হুদা শুক্রবার এক অনুষ্ঠানে ভোটে অনিয়ম এড়াতে ইভিএমের গুরুত্ব তুলে ধরে বলেন, “আগামীতে ভোটে ইভিএম শুরু করে দেব, তাহলে সেখানে আর রাতে বাক্স ভর্তি করার সুযোগ থাকবে না।”

তার ওই বক্তব্য ধরে রিজভী বলেন, “প্যান্ডোরার বাক্স থেকে এখন আসল ঘটনাগুলো বের হতে শুরু করেছে। থলের বেড়ালকে আর বেশিদিন আটকে রাখতে পারলেন না তিনি। মিডনাইট নির্বাচনের আসল সত্যটি এখন সিইসি মুখ ফসকে বলে ফেলেছেন।

“আপনার (সিইসি) এই বক্তব্যটি গুরুত্বপূর্ণ দলিল হয়ে থাকল জাতির কাছে যে, একজন প্রধান নির্বাচন কমিশনার একটি নির্বাচনে জনগণের ভোটাধিকার বঞ্চিত করে কী করে মধ্যরাতে ব্যালট বাক্স পূর্ণ করার অনুমতি দিয়েছিলেন।”

বিএনপির অভিযোগ নাকচ করে ইসি বলেছিল, ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নির্বাচনে এই ধরনের কোনো অনিয়ম হয়নি।

রিজভী বলেন, “আমরা বলতে চাই, মিডনাইট নির্বাচনের হোতা আপনি (সিইসি)। একটি অবৈধ সরকারের ক্ষমতা চিরস্থায়ী করতেই আপনি মহাভোট কেলেঙ্কারির মাধ্যমে দেশের ভবিষ্যৎ রাজনীতিকে অন্ধকারাচ্ছন্ন করলেন।

“তবে সিইসি মনে রাখবেন, পাপ কখনও বাপকেও ছাড়ে না। আম-জনতার কাছে আপনাকে জবাবদিহি করতেই হবে।”

সাংবাদিকদের প্রশ্নে রিজভী বলেন, “মিডনাইট নির্বাচন যে হয়েছে, তা উনার (সিইসি) কথার মধ্য দিয়েই বেরিয়ে এসেছে। অর্থাৎ ইভিএম নেই বলে মিডনাইট নির্বাচন তো হয়েছে এটাই তো স্পষ্ট।

“উনার মুখ দিয়ে এবং উনার আরেক কমিশনারের মুখ দিয়ে অজান্তে সত্য কথাটাই বেরিয়ে এসেছে। সত্যকে চাপা রাখা যায় না।”

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য প্রসঙ্গে

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি নেতা রিজভী বলেন, “গতকাল (শুক্রবার) প্রধানমন্ত্রী বলেছেন যে, পঁচাত্তরের পরে জিয়াউর রহমান খলনায়ক। ইতিহাস কিন্তু মানুষের মনেই রচিত হচ্ছে। আপনার হাতে বন্দুক আছে বলে আপনি জোর করে ইতিহাস রচনা করবেন। ওই ইতিহাস একদিন মানুষ টুকরো টুকরো করে বাতাসে ছুড়ে ফেলে দেবে।

“তখন যে ব্যক্তিটি মানুষের কাছে স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়ে হৃদয়ের তন্ত্রীতে তন্ত্রীতে রক্তের শ্বেত-লৌহ কনিকার মধ্যে স্বাধীনতার অভয় মন্ত্র যিনি শুনালেন তিনি খলনায়ক!”

অসুস্থ কারাবন্দি নেত্রী খালেদা জিয়াকে অবিলম্বে গুলশানের ইউনাটেড হাসপাতালে ভর্তির দাবিও জানান বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব।

ঢাকা বারের নির্বাচনের ফল প্রত্যাখ্যান

রিজভী বলেন, “নানাভাবে অনিয়মের আশ্রয় নিয়ে একরতফাভাবে ঢাকা জেলা বার সমিতির এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সরকার এখন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের নির্বাচনেও মিডনাইট ভোটের পদ্ধতি অবলম্বন করছে। সাধারণ জনগণের মতো বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠনের নেতারাও এখন বঞ্চিত ও লাঞ্ছিত।

“প্রহসনের পর প্রহসন এবং তামাশার নানা অভিনবত্ব অবলোকন করছে দেশবাসী। আমরা ঢাকা আইনজীবী সমিতির এই নির্বাচন প্রত্যাখান করছি।”

ঢাকা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থকরা বেশিরভাগ পদে জয়ী হয়েছে।

রিজভী বলেন, “গত পরশুদিন ঢাকা আইনজীবী সমিতির দ্বিতীয় দফা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রথম দফা সাত দিন আগে হয়েছে। জালভোট প্রদানের উদ্দেশ্য নিয়েই প্রথম দফা ও দ্বিতীয় দফা নির্বাচনে সাত দিনের ব্যবধান করা হয়েছে।

“দ্বিতীয় দফার দিন সন্ত্রাস সৃষ্টি করে বিএনপির প্যানেলের কমিশনার যিনি ভোট গণনার দায়িত্বে ছিলেন তাকে প্রচণ্ড মারধর করা হয়েছে। তাছাড়া প্রধান নির্বাচন কমিশনার করা হয়েছে তিনি একজন কট্টর আওয়ামীপন্থি আইনজীবী।”

সূত্রঃ বিডিনিউজ