কসবার সীমান্তে ৩১ রোহিঙ্গা: ঠাঁই হয়নি কোনো দেশে

অনলাইন ডেস্কঃ
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার সীমান্তের শূন্য রেখায় অবস্থান নেওয়া ৩১ রোহিঙ্গা তিন দিনেও কোনো দেশে ঢুকতে পারেনি।

কসবার গোপীনাথপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এস এম মান্নান জাহাঙ্গীরর বলেন, সোমবার বিএসএফ ওই রোহিঙ্গাদের দুটি তাঁবু টানিয়ে দিয়েছে থাকার জন্য। তিনবেলা খাবারেরও ব্যবস্থাও করছে।

ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ গত শুক্রবার সন্ধ্যায় কসবার গোপীনাথপুর ইউনিয়নের কাজিয়াতলী সীমান্তের ২০২৯ নম্বর পিলারের কাছে কাঁটাতারের মাঝখানের একটি পকেট গেট দিয়ে ১৭ শিশুসহ ৩১ রোহিঙ্গাকে বাংলাদেশে ঢোকানোর চেষ্টা করে।

ওই সময় বিজিবি বাধা দিলে তারা শূন্য রেখায় অবস্থান নিতে বাধ্য হয়। সেই থেকে প্রচণ্ড ঠাণ্ডার মধ্যে তারা সেখানে অবস্থান করছে।

মান্নান জাহাঙ্গীর বলেন, গত তিন দিনে একাধিকবার এ বিষয়ে বিজিবি-বিএসএফ বৈঠক করলেও কোনো সমাধানে পৌঁছতে পারেনি তারা।

এ ব্যাপারে ২৫ বিজিবির বক্তব্য জানতে চেয়ে একাধিকবার অধিনায়ককে ফোন করলেও তার বক্তব্য জানা সম্ভব হয়নি।

সম্প্রতি ১৩০০ রোহিঙ্গা সীমান্তের বিভিন্ন এলাকা দিয়ে ভারত থেকে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে।

ভারত থেকে জোর করে তাদের মিয়ানমার পাঠিয়ে দেওয়ার ভয়ে থাকা এসব রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশ করছে।

২০১৭ সালের অগাস্টের শেষ সপ্তাহে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী ও উগ্র বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের নিপীড়নের মুখে রাখাইনের মুসলিম রোহিঙ্গারা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিতে শুরু করে। সে থেকে সাত লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।

এর আগে থেকে চার লাখ রোহিঙ্গার ভার বহন করছে বাংলাদেশ।

সূত্রঃ বিডিনিউজ