বিএনপি নির্বাচনী ভীতিতে আক্রান্ত: হাছান মাহমুদ

অনলাইন ডেস্কঃ
আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ এমপি বলেছেন, বিএনপি আসলে নির্বাচনকে ভয় পায়। তারা নির্বাচনী ভীতিতে আক্রান্ত হয়ে পড়েছে। বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ৪২তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় হাছান মাহমুদ এসব কথা বলেন।

বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত এ সভায় তিনি আরও বলেন, ‘নির্বাচনে অংশ নিতে বিএনপি মহাসচিব সাতটি শর্ত দিয়েছেন। তবে দেশের মানুষের এমন কোনো দায় পড়েনি, বিএনপিকে ক্ষমতায় বসিয়ে দেবে। নির্বাচন কখনও সরকারের অধীনে হয় না, নির্বাচন কমিশনের অধীনে হয়। তাই বিএনপি নেতাদের বলব, নির্বাচনে অংশ নিয়ে জনপ্রিয়তা যাচাই করুন।’

হাছান মাহমুদ বলেন, বিএনপি দেশটকে নিয়ে ষড়যন্ত্র করছে। এই ষড়যন্ত্রের সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন বুদ্ধিজীবী লেবাসধারীরা। তারা দেশে গণতন্ত্র ও আইনের শাসন টিকে থাকুক, তা চান না। তারা অবৈধভাবে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা দখল করতে চান।

সম্প্রতি শিক্ষার্থী আন্দোলনকালে উস্কানি দেওয়ার অভিযোগে গ্রেফতার আলোকচিত্রী শহিদুল আলমের সমালোচনা করে তিনি বলেন, শহিদুল আলমের মুক্তি চেয়ে বুদ্ধিজীবীরা বিবৃতি দিয়েছেন- এটা রাজনৈতিক সংস্কৃতি। তবে শহিদুল আলম যে কাজ করেছেন, তাকে দেশদ্রোহী বলা যায়। তিনি দেশ ও রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করেছেন। আর তার মুক্তি দেওয়ার বিষয়টি সরকার নয়, সম্পূর্ণ আদালতের বিষয়।

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম সম্পর্কে আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, কাজী নজরুল ইসলাম অসাম্প্রদায়িক চেতনা রক্ষায় সাহিত্য, গান রচনা করে গেছেন। আজ নজরুলের এই চেতনা খুব প্রয়োজন। কারণ দেশে আজ ষড়যন্ত্র হচ্ছে। বিএনপি অসাম্প্রদায়িক চেতনা চায় না। তারা সাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র বানাতে চায়।

বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের উপদেষ্টা চিত্তরঞ্জন দাসের সভাপত্বিতে সভায় আরও বক্তব্য দেন অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ, মোল্লা জালাল, আবু জাফর সূর্য, অ্যাডভোকেট বলরাম পোদ্দার, শাহ আলম, অরুণ সরকার রানা, ফেরদৌস আরা, সমীরণ রায়, মানিক লাল ঘোষ, ড. আমিনুর রহমান সুলতান, বৃষ্টি রানী সরকার প্রমুখ।