সর্বশেষ সংবাদঃ

শিল্প-সাহিত্য

এম সুলতান আহমদ মনিরীর কবিতা

মনিরঝিল তার নাম কালের বক্ষে কাজল রেখা, ছবির মত গ্রাম। মনি রাজার স্মৃতি ধন্য, মনিরঝিল তার নাম।। বাঁকে বাঁকে বাঁকখালী নদ,সোনাইছড়ি খাল। খরস্রোতা দুই তটিনী, বয় অনাদি কাল।। বিলে ঝিলে শাপলা-শালুক, লক্ষ হাজার কোটি। জোস্নারাতে রুপালী চাঁদ, হাসে কুটি কুটি।। গাছে গাছে কিচির মিচির, পাখ-পাখালির গান। শির শির শির নরম বায়ে, মিষ্টি ফুলের ঘ্রাণ।। নদীর বুকে পণ্য বোঝাই, নৌকা অগনন। ...

বিস্তারিত »

নঈম আল ইস্পাহানের কবিতা

বৃষ্টি একবার ভিজিয়েছিলো আনমনা কোন এক রাত্রিবেলা তুমি,আমি, নেই কেউ,শূন্য নদীর পাড়,বিচিত্র ভূমি; অলৌকিক ভাবে এলো হঠাৎ দমকা হাওয়া, ভাবলাম এলো বুঝি বৃষ্টি, এলে তা এক বিরাট পাওয়া হবে। তুমি বৃষ্টি খুব ভালবাসতে, এবং ভিজতে, আমিও অনেক ভালোবাসি, তোমার সঙ্গ পেতে। তোমার মোলায়েম কন্ঠস্বর, সামান্য পরশের; সর্বদা পাগল আমি, মুগ্ধকর কোন আবেগের। তুমি কখনো কখনো পাগল ডাকো আমায়, খুব ভালবাসি ...

বিস্তারিত »

সালাহ উদ্দিন সিকদারের কবিতা

জাগো মানুষ জাগো শকুন সেজেছে ধর্মের সাজ হিংস্র দন্ত বিকশিত করে, ধর্ম ধর্ম জিকির করে রক্ত নেশায় জ্বলে মরে। ধর্মের আড়ালে নরপশু ওরা আছে কেবল রক্তের নেশা, খুন-খারাবি যত অপকর্ম করে বেড়ায় তারা। জাতের নামে বজ্জাতি সব ভুলিনি আমরা শহীদদের কথা, ভুলে গেছে ওরা শুধু জন্মভূমিকে মানেনা যারা। ওরে নরপশু, ওরে শকুনের দল সাঙ্গ হবে এবার তোদের নির্দয় খেলা, মানুষ ...

বিস্তারিত »

ভাগ্যধন বড়ুয়ার দুইটি কবিতা

ঘর ও আয়না শূন্যের মাঝে যারা ঘর বানায়; যেখানে নিজেরে দেখার জন্য, সাজার জন্য আয়না রাখে তাদের কথা জানানোর জন্য এই প্রসঙ্গের অবতারণা । আয়নায় মুখ দেখে, চোখ দেখে, মন বুঝে আর বিম্বিত প্রতিবিম্ব নিয়ে খেলা করতে করতে ফিরিয়ে দেয় পূর্বেকার দৃশ্যাবলি। আয়নায় নিজের মুখের মাঝে ভেসে উঠে পূর্বের আদল কিংবা মিলে যায় পরিচিত মানুষের কায়া ও মায়া। কখনো রঙিন, ...

বিস্তারিত »

নাসিম শোভনের দুইটি কবিতা

না ফেরার যাত্রী ছোপ ছোপ রক্তের মাঝে নিয়তির নির্মমতা জড়িয়ে প্রত্যেক ফোটা রক্তের বিন্দুতে হাহাকারের লুকায়িত প্রতিচ্ছবি কলমের কালি হতে আজ রক্তের ফোয়ারা বৃষ্টির জলে রক্ত গড়িয়ে নর্দমায় স্রোতধারা। পাষাণ হৃদয়ও গলে কুসুমিত প্রাণহীন দেহ অপূর্ণতায় লোহিত দিবালোকে চেনা পথে নেমে এলো রাত্রি অন্য পথে হারিয়ে গেলে না ফেরা যাত্রী। ********************************************************************************************** জিয়ন যাত্রা গড়িয়ে চলো মোটর গাড়ি তামার ডানায় চড়ে ...

বিস্তারিত »

‘ঐশ্বরিক আগুন’ শেখ মুজিব

অর্পন বড়ুয়া: ১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বপরিবারে নৃসংস ভাবে হত্যার প্রতিবাদে ঢাকার রাজপথে মুজাহিদুল ইসলাম সেলিমের নেতৃত্বে প্রথম যেই মিছিলটি বের হয়; সেটি ছাত্র ইউনিয়নের। মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম তৎকালীন ছাত্র ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ছিলেন। এ কারণে আমি ছাত্র ইউনিয়নের একজন কর্মী হিসেবে গৌরববোধ করি। বিশ্ব সংগ্রামের ইতিহাসে লেনিন, রোজালিনবার্গ, গান্ধী, নকুমা, লুমুমবা, ক্যাস্ট্রো ও আলেন্দের ...

বিস্তারিত »

আদর্শ ফেসবুকারের বৈশিষ্ট্য

নঈম আল ইস্পাহান: *একজন আদর্শ ফেসবুকার দিনে আঠারো ঘন্টা ফেসবুকে এ্যাক্টিভ থাকে।তবে এসময়ে খাওয়া,দাওয়া,স্কুল,কলেজ,ভার্সিটি সব চলে! *একজন আদর্শ ফেসবুকার একসাথে অনেকের সাথে চ্যাট করে।কাউকেই বিমুখ করেনা।তবে মেয়েদের মেসেজের রিপ্লে আগে দেয়,ছেলেদের পরে! *একজন আদর্শ ফেসবুকার হাজার,হাজার লাইক,কমেন্ট পায়।বিনিময়ে তিনি সুন্দরী মেয়েদের ছাড়া কাউকে লাইক,কমেন্টস করেননা! *একজন আদর্শ ফেসবুকার খুব স্টাইলিশ হয়।দিনে অন্তত দুই তিনটে ছবি আপলোড করে।সব মিলিয়ে বছর শেষে ...

বিস্তারিত »

সানজিদা তারিনের দুইটি কবিতা

উদ্ভ্রান্ত: আমার মনের মেঘে উথাল-পাথাল বিষ্টি সমুদ্র-গর্জনে সবিশেষে ডুবে আছে চিরশান্তি এলো না কোনো তুফান, হাহাকার-জুড়ে অস্তমিত ক্রন্দন, বিমূর্ত স্বপ্নগর্ভে প্রয়াত প্রেমিকার অশুভদৃষ্টি বর্তমান প্রেমিকা অবহেলিত হৃদয়কোণে; এক যুদ্ধজাহাজ কোটি কোটি বিচ্ছেদের চারণক্ষেত্র, অজাতশত্রু পথিকের প্রেমে নেই তিলপরিমাণ জায়গীর পঞ্চবৈরিতায় ঠাঁই হয় না কারো, ঠাঁসাঠাসিতে বহুনির্বাচনী প্রশ্নপর্ব উত্তরমালায় কুন্ঠিত যৌবন, অবগুন্ঠিত প্রলাপ এছাড়া অমার্জিত আচরণ। উদ্ভ্রান্ত তুমি ব্যূহের দ্বারে একা ...

বিস্তারিত »

আমার বাবা রবীন্দ্রনাথ || রথীন্দ্রনাথ ঠাকুর

অনুবাদ : কবির চান্দ: “বিখ্যাত বাবাদের নিয়ে সন্তানদের স্মৃতিকথা দুলর্ভ নয়। কিন্তু রবীন্দ্রপুত্র রথীন্দ্রনাথ যত দীর্ঘকালব্যাপী পিতাকে কাছ থেকে দেখেছেন, এমনটি আর কোনো সন্তানের ক্ষেত্রে ঘটেনি। পিতাকে কাছ থেকে দেখার টুকরো-টাকরো স্মৃতিস্মারক তার ‘On the edges of time’ গ্রন্থটি। যার বাঙলায়ন কবির চান্দ করেছেন ‘আমার বাবা রবীন্দ্রনাথ’। রবীন্দ্র প্রয়াণে শ্রদ্ধা জানাতে সেখান থেকে দু’টো অধ্যায় প্রকাশ করা হলো” বাবার লেখালেখি শিলাইদহের ...

বিস্তারিত »

ইয়াসির আবদুল্লাহ চৌধুরীর দুইটি কবিতা

নেফারতিতি আর বেসুরা দাঁড়কাক নেফারতিতি তোমার ঐ নগর আজ ছেয়ে আছে যান্ত্রিকতার বিষণ্ণতায়, আমি আর হেঁটে বেড়াই না আজ তোমার নগরের সেই রাস্তায়। নেফারতিতি এখনো কী তুমি ভেজা চুল শুকাও বারান্দায়, তোমার জন্য রক্ত গোলাপ নিয়ে কী কেউ আমার মতো রোজ দাঁড়ায়? তোমার সব স্মৃতি ছেড়ে আজ বহুদূর তবু অন্ধকারে আজও আমাকে ভাবায়, ব্যস্ততার সব সুর আজও অজানা কারণে তোমাতে ...

বিস্তারিত »