হ্লা নু প্রু চাকের অপহরণ চেষ্টাকারী সেই সিএনজি চালকের শেষ রক্ষা হলনা

প্রজ্ঞানন্দ ভিক্ষু:
হ্লা নু প্রু চাকের অপহরণ চেষ্টার মুল আসামী সেই সিএনজি চালক পুলিশের কাছে ধরা পড়েছেন। পালিয়ে গিয়ে বেশিক্ষণ অধরা থাকতে পারলেন না তিনি। অল্প সময়ের মধ্যে পুলিশ তাকে পাকড়াও করল।

রামু থানার ওসি তদন্ত আমাদের রামু কে জানান, আজ দুপুরে সেই সিএনজি চালক মিজানকে রামু থেকেই আটক করা হয়েছে। তাকে আদালতে প্রেরণ করা হবে।

হ্লা নু প্রু চাকের বাবা ক্যউচিং চাক আমাদের রামু কে বলেন, ‘আমার মেয়েকে অপহরণ করতে চাওয়ার পেছনে আরো কার কার হাত আছে জানা দরকার। আমি সেই সিএনজি চালক মিজানকে জিজ্ঞাসাবাদ করার দাবি জানাচ্ছি।’

wounded-copy
হ্লা নু প্রু চাক

উল্লেখ্য, হ্লা নু প্রু চাক গত ২৭ অক্টোবর বিকেলে চট্রগ্রাম থেকে সন্ধ্যা সাতটার পরে তার খালুকে নিয়ে রামু বাইপাস নামেন। সেখান থেকে রিক্সাযোগে চৌমুহনী স্টেশনে আসেন। এসে একটা সিএনজি রিজার্ভ করেন।কিশোরী হ্লা নু প্রু চাক তার ব্যাগ নিয়ে সিএনজিতে বসেন। চোখের পাতা ফেলতে না ফেলতে ড্রাইভার মিজান অতি দ্রুত তার সিএনজি চালিয়ে নিয়ে যান।সিএনজি চালক ওই কিশোরী মেয়েকে অপহরণের উদ্দেশ্যে গাড়িযোগে দ্রুত সটকে পড়েন।

একপর্যায়ে দ্রুতগামি গাড়িটি স্টেশন থেকে কিছু দূরে গ্রামীণ ব্যাংকের কাছাকাছি গেলে নিজেকে রক্ষার উদ্দেশ্যে চলন্ত গাড়ি থেকে লাফ দেন হ্লা নু প্রু চাক। এতে শরীরের বিভিন্ন অংশে মারাত্নক জখমপ্রাপ্ত হন হ্লা নু প্রু চাক। তিনি বর্তমানে কক্সবাজার সেন্ট্রাল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

এদিকে সিএনজি চালক মিজান আটক হওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়লে সর্বস্তরের মানুষ আনন্দ প্রকাশ করেন।