তৌহিদুল ইসলাম রবিনের কবিতা

সৌভাগ্য কড়া নাড়েনা দরজায়:
দূর্ভাগার দুয়ারে সৌভাগ্যের কড়া
নাড়ানো হয়নি কখনো!
একবার তো একটা সাদা কবুতর
বন্ধুকের গুলির আঘাতে রক্তাক্ত হয়ে
আমার দরজায় এসে পড়েছিলো।
আমি কড়া নাড়ার শব্দ ভেবে
দৌঁড়ে গিয়ে দরজা খুললাম।
তাজা লাল রক্ত দেখে
নিজের বাকশক্তি হারিয়ে ফেললাম।
এখন শব্দ পেলেই আতংকে কেঁপে উঠি।

দূর্ভাগার দুয়ারে সৌভাগ্যের কড়া
নাড়ানো হয়নি কখনো!
এরপর অনেকবার দরজা খুলে বুক ভরে
নিঃশ্বাস নিতে চেয়েছিলাম।
সাহস পাইনি দরজা খোলার,
ছোট্ট একটি ছিদ্র দিয়ে বাইরের
আলোছায়ার খেলা দেখতাম।

পঁচিশটি বছর তো শেষ হলো!
বুঝ হবার পর থেকেই অপেক্ষায় ছিলাম
এই বুঝি আজই সৌভাগ্য আমার
দরজায় এসে কড়া নাড়বে।

ছুঁইছুঁই ছাব্বিশে ভাবনাগুলো নিজে থেকেই
পরিবর্তন হওয়া শুরু করেছে।
আর নয় অপেক্ষা
সৌভাগ্য আমার দুয়ারে নিজ থেকে আসবেনা,
দরজা ভেঙ্গে এবার বেরিয়ে দেখবো
কোথায় সৌভাগ্যের বসবাস।
একটা সৌভাগ্য ধরে নিজের করে
এরপরই ঘরে ফিরবো।

ইস্ বুঝতে অনেক দেরী হয়ে গেলো
সৌভাগ্য কড়া নাড়েনা দরজায়
একে নিজ থেকেই জয় করে নিতে হয়।

*****************************************************************************************************

[email protected]
লাকসাম,কুমিল্লা।