চকরিয়া একের পর এক ঘটছে অপহরণ: পৌর কাউন্সিলর নজরুল অপহরণের পর উদ্ধার

এ.এম হোবাইব সজীব:
কক্সবাজারের চকরিয়ায় একের পর এক ঘটছে অপহরণ। অপহরণের পর আদায় করা হচ্ছে মুক্তি পণ। সম্প্রতি অপহরণের ঘটনায় চকরিয়া থানা পুলিশ পালাকাটা মাছঘাট এলাকা থেকে যুবলীগ নেতা কাউন্সিলর নজরুল ইসলামকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করেছে। অপহরণকারকারীরা তাকে ফাঁসিয়াখালীর পশ্চিম পাশ্বের রাস্তা দিয়ে নিয়ে যাওয়ার সময় গর্তের মধ্যে জীপ গাড়ি আটকে যায়। রাত ১টা ৪০মিনিটে ওসি কামরুলের নেতৃত্বে পুলিশের একাধিক টিম তাকে উদ্ধার করেছে। বুধবার রাত ১২টায় তাকে অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা পৌর বাসটার্মিনাল এলাকায় তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। বর্তমানে পুলিশের হেফাজতে রয়েছে এবং সুস্থ আছে কাউন্সিলর নজরুল।

চকরিয়া পৌরসভা ৯নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি নজরুল ইসলামকে গত ২৮সেপ্টেম্বর রাত ১২টার দিকে শহীদ আবদুল হামিদ পৌর বাসটার্মিনালের দক্ষিণ পাশে তার ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান নজরুল ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কসপ থেকে মুখোশ পরিহিত একদল অপহরণকারী চক্র অপহরণ করে নিয়ে গেছে। অপহরণকারীরা তাকে একটি শর্টবডি (জীপ) গাড়ীতে অস্ত্রের মুখে মহাসড়কের দক্ষিণ দিকে নিয়ে যায়। অপহৃত কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম জানিয়েছেন, তিনি অপহরণকারীদের মধ্যে কয়েকজনকে চিনতে পেরেছেন। এঘটনায় তিনি বাদী হয়ে থানায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।

চকরিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো.কামরুল আজম শুক্রবার বলেন, চকরিয়া পৌরসভার কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম অপহৃরণের ঘটনা শোনার সাথে সাথে মহাসড়কে বিভিন্ন গাড়িতে তল্লাশি চালানো হয়। পাশাপাশি উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় পুলিশি অভিযান শুরু করি। পরে অপহরণকারীরা পুলিশি অভিযান টের পেয়ে অপহৃত নজরুল ইসলামকে উপজেলার চিরিংগা ইউনিয়নের চরণদ্বীপস্থ ছইগ্যাখাল এলাকায় ফেলে চলে যায়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে।

তিনি আরো বলেন, এসময় অপহরণ কাজে ব্যবহৃত একটি জীপ গাড়ি জব্দ করা হয়েছে। এছাড়া কি কারণে কাউন্সিলরকে অপহরণ করা হয়েছে তাও তদন্ত করে দেখা হবে।