নাইক্ষ্যংছড়িতে উপজাতীয় সন্ত্রাসীদের হাতে ৩ ব্যক্তি অপহৃত

স্টাফ রিপোর্টার :
নাইক্ষ্যংছড়ির বাইশারী ইউনিয়নের দুর্গম হায়দারঝিরি এলাকা থেকে ৩ ব্যক্তিকে অপহরণ করেছে উপজাতীয় সন্ত্রাসী ইউপিডিএপ এর অস্ত্রধারী দল। গত শনিবার রাতে অস্ত্রের মূখে খামারঘর থেকে তাঁদেরকে গহীন পাহাড়ে নিয়ে যাওয়া হয়।

অপহৃতরা হলেন- রামুর গর্জনিয়া ইউনিয়নের জাউচপাড়া গ্রামের মোঃ হোসাইনের ছেলে আলী আহমদ (৬২), ফুরুখ আহমদের ছেলে আবদুল আলী (২৫) ও থোয়াংগেরকাটা গ্রামের মকবুল আহমদের ছেলে শামশুল আলম (৩১)।

তৎমধ্যে রোববার সকালে সন্ত্রাসীদের বন্ধিদশা থেকে কৌশলে আবদুল আলী প্রাণে রক্ষা পেয়েছে। অপহৃতরা ওই এলাকায় তামাক ক্ষেতে দিনমজুরের কাজ করত।

unnamedঅপহৃতদের কবল থেকে প্রাণে রক্ষা পাওয়া আবদুল আলী জানান-আট সদস্যের একটি অস্ত্রধারী দল শনিবার রাতে খামার বাড়ি থেকে তাদেরকে পাহাড়ের এক আস্তানায় তোলে নিয়ে যায়। সন্ত্রাসীদের পোষাক প্রায় বিজিবির মত। তবে সবাই উপজাতী। তারা আবার বাংলা ভাষায়ও কথা বলতে পারে। ওই আস্তানায় সন্ত্রাসীরা খাবারসহ নানা জিনিস মজুদ রেখেছে। তারা প্রতিজন থেকে এক লাখ টাকা করে মুক্তিপণ দাবী করেছিল। রোববার সকালে শিলেরঝিরি নামক এলাকা থেকে সে কৌশলে পালিয়ে আসে বলে জানায়।

নাইক্ষ্যংছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তৌহিদ কবির ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে আমাদের রামু কে বলেন, পালিয়ে আসা দিনমজুর পুলিশী হেফাজতে রয়েছে। বাকি দুজনকে উদ্ধারে তৎপরতা চালানো হচ্ছে। উদ্ধার না হওয়া পর্যন্ত অভিযান চলবে।

উল্লেখ্য, এর আগে ২০১৪ সালের ১২ এপ্রিল বাইশারী ইউনিয়নের লংদুরমুখ এলাকা থেকে একই কায়দায় ফরিদুল আলম ও নুরুল আলম নামে দুই তামাক চাষীকে অপহরণ করা হয়েছিল। পরে তারাও পালিয়ে রক্ষা পায়।