সাফল্যের পথ ধরে এগিয়ে যাচ্ছে টেকনাফ বর্ডারগার্ড পাবলিক স্কুল

গিয়াস উদ্দিন ভুলু, টেকনাফ:
শিক্ষার হার থেকে পিছিয়ে পড়া টেকনাফ উপজেলার শিক্ষার উন্নয়ন, শিক্ষার মান, শিক্ষার হারকে আরো বাড়িয়ে আনতে লেখাপড়ার গুনগত মান নিশ্চিত করতে নিরলসভাবে প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড বিজিবি সদস্যদের আদলে গড়া টেকনাফ বর্ডার গার্ড পাবলিক স্কুল।

বিজিবি স্কুল সুত্রে জানা যায়, প্রায় ১৮ বছর আগে ১৯৯৮সালে প্রতিষ্টিত হয়েছিল এই স্কুলটি। সেই ধারাবাহিকতায় বিজিবি সদস্যদের সহযোগীতায় দীর্ঘ বছরে পর বছর ধরে টেকনাফ উপজেলার শিক্ষার হার ও সফলতা বয়ে আনার জন্য নিরলসভাবে অভিজ্ঞ শিক্ষক ধারা ছাত্র-ছাত্রীদের পাঠদান দিয়ে যাচ্ছে এই বর্ডার গার্ড স্কুলটি। প্রতি বছর এই স্কুল থেকে গড়ে উঠছে অনেক মেধাবী ছাত্র-ছাত্রী।

বিজিবি ও এলাকাবাসী সুত্রে আরো জানা যায়, ২ বিজিবি অধিনায়ক আবুজার আল জাহিদ উক্ত ব্যাটেলিয়নে দায়িত্ব গ্রহন করার পর থেকে এই স্কুটির ছাত্র-ছাত্রী ও শিক্ষকদের গুনগত পরিচালনার মাধ্যমে শিক্ষার হারকে আরো বাড়াতে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। তার এই সফলতা, দক্ষতা, অক্ষুন্ন থাকলে টেকনাফ উপজেলায় শিক্ষার পরিবেশ আরো পাল্টে যাবে। ২ বিজিবি অধিনায়ক এই স্কুলটিকে আরো আধুনিক মানের লেখাপড়া উপহার দিতে বিভিন্ন প্রকার কর্মসুচি হাতে নিয়েছেন।

৮ সেপ্টেম্বর সকাল সাড়ে ১০টার দিকে টেকনাফ ২ বিজিবি সদর দপ্তর হলে টেকনাফ বর্ডারগার্ড পাবলিক স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের অভিভাবকদের সম্মানে আয়োজন করে এক মতবিনিময় সভা।

teknaf
বক্তব্য রাখছেন লে: কর্ণেল আবুজার আল জাহিদ

উক্ত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন টেকনাফ ২ বিজিবির অধিনায়ক এবং স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি লে: কর্ণেল আবুজার আল জাহিদ। তিনি অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে বলেন, লেখাপড়ার গুনগত মান, স্কুলের নিয়ম শৃংখলার গতি আরো বাড়াতে নিরলসভাবে প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে টেকনাফ বর্ডারগার্ড পাবলিক স্কুল। এই স্কুলটি প্রতিষ্ঠার পর থেকে মানসম্মত পাঠদান, কাংখিত ফলাফলের পাশাপাশি সর্বোত্তম শৃংখলা প্রতিষ্ঠায় আমাদের স্কুল টেকনাফ উপজেলার অনুকরণীয় এক উদাহরণ।

তিনি আরো বলেন, আপনার সন্তানকে আদর্শ ও যোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে হলে শিক্ষক ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের দায়িত্ব পালনই যথেষ্ট নয়। এ জন্য অভিভাবকদেরও অগ্রনী ভুমিকা পালন করতে হবে। স্কুল ম্যানেজমেন্ট, শিক্ষক ও অভিভাবক এ তিন উপকরণের সমন্বয়ই পারে একটি ভালমানের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান উপহার দিতে। অবকাঠামো উন্নয়ন, উন্নত শিক্ষা ক্রমাগত আরো বৃদ্ধি করতে হবে। পাশাপাশি, স্কুলের উন্নয়ন, আগামীতে লেখাপড়ার মান ও বিভিন্ন প্রকার চাহিদা পুরণের আশ্বাসসহ স্কুলের নানা সমস্যা, সীমাবদ্ধতা, ও পরিকল্পনার কথা উপস্থিত অভিভাবকদের সামনে তুলে ধরেন।

উক্ত সভায় স্কুলের লেখাপড়ার মান, বিভিন্ন প্রকার সাময়িক ক্রটিগত সমস্যা গুলো সমাধান করার জন্য গঠন মুলক বক্তব্য তুলে ধরেন অত্র স্কুলের অভিভাবক যথাক্রমে- ম্যানেজিং কমিটির সদস্য মোহাম্মদ আজিজ, কাউন্সিলর একরামুল হক, ব্যবসায়ী মোহাম্মদ হাশেম, প্রফেসর সন্তোষ কুমার শীল, মোহাম্মদ আলম মেম্বার, সাংবাদিক মমতাজুল ইসলাম মনু, জেড করিম জিয়া, গিয়াস উদ্দিন ভুলু, মো: হারুনসহ অন্যান্য অভিভাবকরা।