রামুতে চালককে হাত-পা বেঁধে উপর্যূপুরি ছুরিকাঘাতে হত্যা করে টমটম ছিনতাই

সোয়েব সাঈদ, রামু :
কক্সবাজারের রামুতে চালককে হাত-পা বেঁধে উপর্যূপুরি ছুরিকাঘাতে হত্যা করে টমটম ছিনতাই করেছে সংঘবদ্ধ চক্র। বুধবার (২৭ এপ্রিল) দিবাগত রাতে রামুর জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নের রাবার বাগান ফ্যাক্টরীর পাশে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে ছিনতাই ও হত্যার ঘটনা ঘটে।

হত্যাকান্ডের শিকার টমটম চালক জাফর আলম (৪০) কক্সবাজার সদর উপজেলা ভারুয়াখালী ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের করিম সিকদারপাড়া এলাকার মৃত আবদুল গনির ছেলে।

জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল শামসুদ্দিন আহমেদ প্রিন্স জানিয়েছেন- বুধবার সকাল ১১ টার দিকে প্রধান সড়কের পাশর্^বর্তী ঝোপের মধ্যে একটি মৃতদেহ দেখতে পেয়ে তাকে অবহিত করে স্থানীয় লোকজন। পরে চেয়ারম্যান প্রিন্স এবং রামু থানার ওসি (তদন্ত) অরূপ কুমার চৌধুরী, এসআই নাজমুল ঘটনাস্থলে যান।

রামু থানার ওসি (তদন্ত) অরূপ কুমার চৌধুরী জানান- নিহত জাফর আলম ইজিবাইক (টমটম) চালাতেন। সংঘবদ্ধ চক্র গাড়িটি ছিনতাইয়ের উদ্দেশ্যে তাকে হত্যা করেছে মর্মে প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে। তিনি আরো জানান- মৃতদেহ ময়না তদন্তের প্রক্রিয়া চলছে। এ ব্যাপারে পুলিশ জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেবে।

নিহত জাফর আলমের ভাতিজা জায়তুন নুর জানান- জাফর আলম কিস্তিতে নেয়া একটি মিনি টমটম (ইজিবাইক) চালিয়ে সংসার চালাতেন। তিনি ২ ছেলে, ১ মেয়ের জনক। পরিবারের উপার্জনক্ষম ব্যক্তিকে হারিয়ে পরিবারটি এখন একেবারেই নিঃস্ব হয়ে পড়লো। তিনি এ ঘটনায় জড়িতদের অবিলম্বে চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনার জোর দাবি জানান।

উল্লেখ, এ ঘটনার মাসখানেক পূর্বে রামুর খুনিয়াপালংয়ে এক কিশোর চালককে হত্যা করে টমটম ছিনতাই করে সংঘবদ্ধ চক্র। পরে র‌্যাবের অভিযানে ওই হত্যাকান্ডে জড়িতরা ধরা পড়লেও বন্ধ হয়নি ছিনতাই আর চালককে হত্যার মতো বর্বর ঘটনা। এছাড়াও গত ১ সপ্তাহ পূর্বে রামু উপজেলার ঈদগড়ে শহিদুল ইসলাম নামক এক মোটর বাইক চালকের মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। একের পর নির্মম হত্যাকান্ড, ছুরি- ছিনতাইয়ের ঘটনায় জনমনে বিরাজ করছে উদ্বেগ-উৎকন্ঠা।