রামুর রশিদনগরে ক্রিকেট খেলায় বিরোধের জের ধরে একই পরিবারের ৪ জনকে ছুরিকাঘাত

রামু প্রতিনিধি :
রামুর রশিদনগরে ক্রিকেট খেলায় বিরোধের জের ধরে একই পরিবারের ৪ জনকে ছুরিকাঘাত করা হয়েছে। শুক্রবার (২২ এপ্রিল) সন্ধ্যা ৬টার রামুর রশিদনগর ইউনিয়নের জেটিরাস্তা লম্বাঘোনা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এতে আহতরা হলেন- ছৈয়দ হোছনের ছেলে হাবিব উল্লাহ (৪০), হাবিব উল্লাহর স্ত্রী রেহেনা আকতার (৩৫), মেয়ে আসমা আকতার (২০) ও ছেলে রিদুয়ান (১৮), ভারুয়াখালী ইউনিয়নের গোলাম হোছনের ছেলে কামাল হোসেন (৪৫)। আহতদের ঘটনার পরপরই রামু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ঘটনায় গুরতর আহত হাবিব উল্লাহ বলেন- বিকালে বাড়ির পার্শ্ববর্তী মাঠে ক্রিকেট খেলাকে কেন্দ্র করে তার জামাতার সাথে স্থানীয় আহমদ হোছেনের ছেলে রিয়াদ এর কথা কাটাকাটি হয়। ওই ঘটনার জের ধরে ইফতারের আগমূহুর্তে শামসুল আলমের ছেলে মারুফ, আহমদ হোছেনের ছেলে রিয়াদ, মোহাম্মদ হোছেনের ছেলে আসিফ, আবদুর রহিমের ছেলে মোস্তফা, মোকতার আহমদের ছেলে শওকত এর নেতৃত্বে ১০/২০ জনের বখাটে ছুরি, দা, লাটি-সোটা নিয়ে তার বাড়িতে হামলা চালায়। হামলাকারিরা তাকে এবং বাড়ির প্রত্যেক সদস্যকে ছুরিকাঘাত এবং লাটি-সোটা দিয়ে পিটিয়ে আহত করে।

গ্রামের সর্দার ওসমান গনি জানান- পবিত্র রমজান মাসে তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে একটি পরিবারের উপর এমন বর্বরোচিত হামলার ঘটনা দুঃখজনক। হামলাকারিরা ইতিপূর্বে এলাকায় এ ধরনের অনেক মারধরসহ অপরাধমূলক কর্মকান্ড সংগঠিত করেছে। তাদের অপকর্মে এখন পুরো এলাকার মানুষ অতিষ্ঠ এবং সাধারণ মানুষ জান-মাল নিয়ে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে।
হামলার শিকার হাবিব উল্লাহর ভাই শহিদ উল্লাহ জানিয়েছেন- হামলার পরই তারা বিষয়টি রামু থানাকে অবহিত করেছেন। এ ব্যাপারে তারা মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

রশিদনগর ইউপি চেয়ারম্যান এমডি শাহ আলম বলেন- শুনেছি ক্রিকেট খেলা নিয়ে বিরোধের জের ধরে দু’পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়েছে। এতে দুপক্ষের লোকজনও আহত হয়েছে। এরমধ্যে হাবিব উল্লাহ, তার মেয়ে সহ কয়েকজন আহত হয়েছে। আবার অন্যপক্ষের শওকত সহ কয়েকজন আহত হয়েছে। দুপক্ষই হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।