ঢাবির শিক্ষকতার চাকরি থেকে অবসর চাইছেন সামিয়া রহমান

অনলাইন ডেস্ক :
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক সামিয়া রহমান শিক্ষকতার চাকরির মেয়াদ শেষ হওয়ার ১৬ বছর বাকি থাকতেই অবসরে যাওয়ার আবেদন করেছেন। সপ্তাহখানেক আগে বিভাগের চেয়ারপারসন বরাবর তিনি এই আবেদন করেন। বিভাগ থেকে আবেদনটি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রারের কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম সিন্ডিকেট।

এ বিষয়ে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারম্যান আবুল মনসুর আহাম্মদ বলেন, ‘সপ্তাহখানেক আগে সামিয়া রহমান আর্লি রিটায়ারমেন্টের (আগাম অবসর) আবেদন করেছেন। আবেদনটি বিভাগ থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রারের কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার এখতিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেটের।’
বর্তমানে দেশের বাইরে অবস্থান করায় সামিয়া রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। তবে রেজিস্ট্রার কার্যালয়ের একাধিক কর্মকর্তা জানান, চার মাসের অর্জিত ছুটি (আর্নড লিভ) নিয়ে গত বছরের শেষ দিকে সামিয়া রহমান বিদেশে যান। এই ছুটির মেয়াদ শেষ হয় গত ৩১ মার্চ। মার্চের শুরুতে বিনা বেতনে আরও এক বছরের ছুটি চেয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে তিনি আবেদন করেন। কিন্তু কর্তৃপক্ষ এই ছুটি অনুমোদন করেনি। এরপরই সামিয়া রহমান আগাম অবসর চেয়ে আবেদন করেন।

২০০০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগে প্রভাষক হিসেবে যোগ দেন সামিয়া রহমান। পদোন্নতি পেয়ে সহকারী অধ্যাপক এবং পরে সহযোগী অধ্যাপকও হন। তবে একাডেমিক গবেষণায় চৌর্যবৃত্তির অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় গত বছরের জানুয়ারিতে তাঁকে পদাবনতি দিয়ে সহকারী অধ্যাপক করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের চাকরির বয়স ৬৫ বছর। সামিয়া রহমানের জন্ম ১৯৭৩ সালের ২৩ জুন। সেই হিসাবে তাঁর চাকরির মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা ২০৩৮ সালে। সামিয়া রহমান টেলিভিশনের পরিচিত মুখ। সংবাদ পাঠক ও উপস্থাপক হিসেবে তিনি সুপরিচিত।

সূত্র : প্রথম আলো