রামুতে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে যুবককে ছুরিকাঘাত

রামু প্রতিনিধি :
কক্সবাজারের রামুতে যুবকের মুখের ভিতর ও শরীরের একাধিক স্থানে ছুরিকাঘাত করেছে সন্ত্রাসীরা। এতে গুরুতর আহত শরীফুল ইসলামকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শনিবার (২ মার্চ) রাত সাড়ে ৯ টায় রামু উপজেলার কাউয়ারখোপ ইউনিয়নের বাজার সংলঘ্ন কেজি স্কুলের সামনে এ ঘটনা ঘটে। শরিফুল ইসলাম (২৫) কাউয়ারখোপ মধ্যম পাড়া এলাকার মৃত বেলাল আহম্মদের ছেলে। এ ঘটনায় রবিবার (৩ মার্চ) রাতে রামু থানায় লিখিত এজাহার দিয়েছেন- হামলার শিকার যুবকের বড় ভাই মো. সাহেদুল ইসলাম রায়হান।
এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে- তাদের সাথে চাচা আবদুস ছালামের জমি নিয়ে দীর্ঘদিন বিরোধ চলছে। এরই জের ধরে বিভিন্ন সময়ে তারা মারধর ও প্রাণনাশের হুমকী দিয়ে আসছিলো। শনিবার রাতে আবদুস ছালামের ছেলে মুবিন ফোন করে শরিফুল ইসলামকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যান। পথিমধ্যে কাউয়ারখোপ বাজারের পাশর্^বর্তী কেজি স্কুলের সামনে পৌঁছলে পূর্বে থেকে উৎপেতে থাকা তারই চাচা আবদুস ছালাম, চাচাতো ভাই মো. মুবিন, ওই এলাকার মো. আলম, আজিজুল হক ও কোরবান আলী ধারালো ছুরি, লাটি-সোটা নিয়ে শরিফুল ইসলামের উপর হামলা শুরু করে। এসময় হামলাকারিরা শরিফুলের মুখের ভিতর এবং শরীরের আরও একাধিক স্থানে ছুরিকাঘাত করে। এতে শরিফুলের মুখের ভিতরে ও ঠোটের একাংশ কেটে গেছে।

ঘটনার পরপরই পথচারি ও স্বজনরা শরিফুল ইসলামকে মূমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে রামু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে রাতেই তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরন করা হয়।

শরিফুলের বড় ভাই মো. সাহেদুল ইসলাম রায়হান জানান- হামলাকারিরা হত্যার উদ্দেশ্যে এ হামলা চালিয়েছে। এখনও তার অবস্থা আশংকাজনক। চিকিৎসকরা তার মুখের ভিতরে এবং শরীরের বিভিন্নস্থানে ৫২ টি সেলাই দিয়েছেন।

তিনি আরো জানান- এ ঘটনার পরও হামলাকারিরা তাদের মামলা না করার জন্য বিভিন্নভাবে হুমকী-ধমকি দিচ্ছে। এতে তার পরিবারের সদস্যরা চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন।

পুলিশ জানিয়েছে- এ ব্যাপারে জড়িতদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।