রামুর বিশিষ্ট আলেমেদ্বীন মাওলানা আবুল কাসেমের ইন্তেকাল : নেজামে ইসলাম পার্টি ও ইসলামী ছাত্রসমাজের শোক

প্রেস বিজ্ঞপ্তি :
রামু উপজেলার কাউয়ারখোপ ইউনিয়নের প্রবীণ আলেমেদ্বীন, কক্সবাজারের ঐতিহ্যবাহী দ্বীনি শিক্ষাকেন্দ্র জামেয়া দারুল উলুম চাকমারকুলের সাবেক শিক্ষক আলহাজ্ব মাওলানা আবুল কাসেম রহ. (৬৫) ইন্তেকাল করেছেন-ইন্না-লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। তিনি বুধবার (৩০ মার্চ) বেলা ১১ টায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে নেয়ার পথে ইন্তেকাল করেন। তিনি স্ত্রী, ৩ ছেলে, ৪ মেয়েসহ বহু ছাত্র, আত্মীয়-স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে যান। ।

কর্মজীবনে মেধাবী এ আলেমেদ্বীন ঐতিহ্যবাহী রামু চাকমারকুল মাদ্রাসায় কৃতিত্বের সাথে শিক্ষকতার মহৎ খেদমত আঞ্জাম দেন। ভিন্ন ভিন্ন সময়ে তিনি কাউয়ারখোপের প্রাচীন দ্বীনি শিক্ষাকেন্দ্র ইসলামিয়া তাজবীদুল কুরআন মাদ্রাসার নায়েবে মুহতামিম এবং উখিয়ারঘোনা লামার পাড়া দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম মাদ্রাসার মুহতামিম হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও তিনি মুত্যুর আগ পর্যন্ত উখিয়ারঘোনা লামার পাড়া দারুল উলুম মুঈনুল মাদ্রাসার ছদরে মুহতামিমের দায়িত্বে ছিলেন।

বুধবার (৩০ মার্চ) বাদ মাগরিব কাউয়ারখোপ কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ মাঠে মরহুমের নামাযে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়েছে। নামাযে জানাযায় বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বিশিষ্ট ওলামায়েকেরাম, রাজনৈতিক ও সামাজিক নেতৃবৃন্দসহ বিপুল সংখ্যক শোকার্ত তৌহিদী জনতা শরীক হন। বিশাল এ নামাযে জানাযায় ইমামতি করেন, মরহুমের জামাতা, রামু জামেয়াতুল উলুম মাদ্রাসার শিক্ষক মাওলানা মোজ্জাম্মেল হক।

নামাযে জানাযার পূর্বে মরহুম পিতার জন্য দু’আ কামনা করে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন, বড় ছেলে মুহাম্মদ রাশেদুল্লাহ।
জানাযার নামায শেষে স্থানীয় কবরস্থানে মরহুমকে দাফন করা হয়। রামুর বিশিষ্ট প্রতিনিধিত্বশীল এ আলেমেদ্বীনের ইন্তেকালে আলেমসমাজ ও এলাকাবাসীসহ দ্বীন অনুরাগী মহলে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

নেজামে ইসলাম পার্টি ও ইসলামী ছাত্রসমাজের শোক
রামুর বিশিষ্ট আলেমেদ্বীন, ঐতিহ্যবাহী রামু চাকমারকুল মাদ্রাসার সাবেক শিক্ষক, ইসলামী ছাত্রসমাজের আশির দশকের নিবেদিতপ্রাণ দায়িত্বশীল আলহাজ্ব মাওলানা আবুল কাসেম রহ. এর ইন্তেকালে গভীর শোক ও সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন, বাংলাদেশ নেজামে ইসলাম পার্টির কেন্দ্রীয় সিনিয়র নায়েবে আমীর মাওলানা আব্দুল মাজেদ আতহারী, নায়েবে আমীর মাওলানা আব্দুল খালেক নিজামী, কেন্দ্রীয় নায়েবে আমীর ও কক্সবাজার জেলা আমীর মাওলানা হাফেজ ছালামতুল্লাহ, নায়েবে আমীর মাওলানা আ. হ. ম নুরুল কবির হিলালী, মাওলানা হোসাইন আহমদ, সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মুহাম্মদ ইয়াছিন হাবিব, যুগ্ম-সম্পাদক মাওলানা আব্দুর রহমান জিহাদী, সহ-সাধারণ সম্পাদক মাওলানা ফরিদুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা মাহবুব উল্লাহ নোমানী, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা ডা. মঈন উদ্দীন গাজী, অর্থ সম্পাদক মাওলানা নুরুল হক চকোরী, রামু উপজেলা সভাপতি মাওলানা হাফেজ আব্দুর রহিম রাহী, সাধারণ সম্পাদক মাওলানক শহীদুল্লাহ, কক্সবাজার শহর আমীর মাওলানা মাওলানা খালেদ সাইফী, সাধারণ সম্পাদক মাওলানা সাইফুল ইসলাম সাইফী, বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রসমাজের কেন্দ্রীয় সিনিয়র সহ-সভাপতি হাফেজ মুহাম্মদ আবুল মঞ্জুর, কক্সবাজার জেলা সভাপতি হাফেজ শওকত আলী, সহ-সভাপতি মুহাম্মদ আব্দুল হামিদ, সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ দিদারুল আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক মুহাম্মদ আতাউল্লাহ, রামু উপজেলা সভাপতি মুহাম্মদ আব্দুল করিম, সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ অলিউল্লাহ আরজু, কাউয়ারখোপ ইউনিয়ন সভাপতি মুহাম্মদ কফিল উদ্দিন প্রমুখ।

এক শোক বার্তায় নেতৃবৃন্দ বলেন, মাওলানা আবুল কাসেম রহ. ছিলেন, অত্যন্ত ভদ্র, বন্ধুবৎসল, নিরহঙ্কারী ও গভীর ব্যক্তিত্বসম্পন্ন একজন বিজ্ঞ ও চৌকস আলেমেদ্বীন। আজীবন তিনি দ্বীনি শিক্ষা বিস্তারের খেদমত ও হালাল জীবিকা নির্বাহের জন্য ব্যবসা-বাণিজ্যের সাথে যুক্ত ছিলেন।
তিনি ইসলামী সমাজবিনির্মাণের লক্ষ্যে ছাত্রজীবন থেকেই আকাবিরে দেওবন্দের হাতে গড়া ঐতিহ্যবাহী দ্বীনি ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রসমাজের সাথে যুক্ত থেকে ঈমানী আন্দোলন-সংগ্রামে সরব ছিলেন। কর্মজীবনেও তিনি আকাবিরীনের স্মৃতিধন্য ঐতিহ্যবাহী ইসলামী রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ নেজামে ইসলাম পার্টির সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন। তিনি পার্টিকে মনেপ্রাণে ভালোবাসতেন এবং সাধ্যমত বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়নে গঠনমূলক পরামর্শ প্রদান ও আন্তরিক সহযোগিতা করতেন।

দ্বীনি শিক্ষা বিস্তার ও ইসলামী নেজাম প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে তাঁর নিষ্ঠাপূর্ণ অবদান চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে। বহু আলেম-ওলামার উস্তায, বিদগ্ধ এ আলেমেদ্বীনের ইন্তেকালে আমরা ঈমানী চেতনাদীপ্ত একজন অভিভাবককে চিরতরে হারালাম।

আমরা আল্লাহর দরবারে মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা করি এবং শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাই।