আসাদের ‘জয় বাংলা’ স্লোগানে মুগ্ধ প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক :
২০২০ সালের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে আজীবন সম্মাননা পেয়েছেন বর্ষীয়ান অভিনেতা রাইসুল ইসলাম আসাদ। বুধবার (২৩ মার্চ) বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে পুরস্কার গ্রহণ করেছেন তিনি।

আজীবন সম্মাননা গ্রহণ করে মঞ্চে অনুভূতি ব্যক্ত করতে গিয়ে ‘জয় বাংলা’ স্লোগান দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে মুগ্ধ করেছেন তিনি।

মঞ্চে রাইসুল ইসলাম আসাদ বলেন, ‘যুদ্ধ ফেরত আসাদকে জোরজবরদস্তি করে চলচ্চিত্রে ঠেলে দেওয়া হয়েছিল। ১৯৭২ বেতার-মঞ্চ, ৭৩ সালে চলচ্চিত্র। যারা ঠেলা-ধাক্কা দিয়ে এ পর্যায়ে নিয়ে এসেছেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা। বাদ পড়ার ভয়ে তাদের কারও নাম স্মরণ করছি না। তবে একজনের কথা বলতেই হয়- সোহেল সামাদ, সহযোদ্ধা। ১৯৭১ সালে ডিসেম্বরের ২৫ বা ২৬ তারিখে প্রথম সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ঢাকায়। সোহেল সামাদ আমাকে মঞ্চে তুলে দেয়। ব্যস শুরু হয়ে গেল। ’

একই সঙ্গে এই সম্মাননা দেওয়ার জন্য তিনি প্রধানমন্ত্রী ও তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

রাইসুল ইসলাম আসাদ তার বক্তব্যে স্মরণ করেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। এরপর সেলিম আল দীনের লেখা জ্বালাময়ী একটি সংলাপের পর ‘জয় বাংলা’ স্লোগানে বক্তব্য শেষ করেন তিনি।

আসাদের কণ্ঠে ‘জয় বাংলা’ শুনে মুগ্ধ হয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘জয় বাংলা স্লোগান অনেকদিন হারিয়ে গিয়েছিল। যে স্লোগান দিয়ে লাখো মানুষ বুকের রক্ত দিয়েছেন, মুক্তিযুদ্ধ করেছেন, তেমনই একজনের মুখে স্লোগানটি শুনে সত্যিই আবারো মুগ্ধ হয়েছি। তাকে আমি আন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি। ’

উল্লেখ্য, ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে আসাদ ঢাকায় গেরিলা যুদ্ধে অংশ নিয়েছিলেন। মুক্তিযুদ্ধের পর ১৯৭২ সালে আসাদ প্রথম ‘আমি রাজা হব না’ এবং ‘সর্পবিষয়ক’ নামের দুইটি মঞ্চ নাটকে অভিনয় করেন। ১৯৭৩ সালে ‘আবার তোরা মানুষ হ’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে বড় পর্দায় যাত্রা শুরু করেন তিনি। গুণী এই অভিনেতা একাধারে বেতার, মঞ্চ, টেলিভিশন এবং চলচ্চিত্রে অভিনয় করে যাচ্ছেন। তিনি এর আগে ৬ বার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন। পেয়েছেন একুশে পদক। এবার তার প্রাপ্তিতে যুক্ত হলো নতুন পালক।

সূত্রঃ বাংলানিউজ