আন্তর্জাতিক বন দিবস : বন ধ্বংস বন্ধ করাই এই মুহূর্তে জরুরি

অনলাইন ডেস্কঃ
শিল্পায়ন, পরিবেশবিরোধী উন্নয়ন কর্মকাণ্ড, দখলদারদের দখলে সুন্দরবনসহ দেশের বেশিরভাগ বন। বন ধ্বংস বন্ধ করার আহ্বান জানিয়েছেন পরিবেশবাদীরা। এমন এক পরিস্থিতিতে দেশে পালিত হতে যাচ্ছে আন্তর্জাতিক বন দিবস।

‘বন সংরক্ষণের অঙ্গীকার টেকসই উৎপাদন ও ব্যবহার’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে আজ সোমবার (২১ মার্চ) আন্তর্জাতিক বন দিবস পালিত হবে। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশে নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দিবসটি পালিত হবার কথা রয়েছে।

১৯৯২ সালে ‘রিও ঘোষণা’য় বন সৃজন ও রক্ষার্থে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেয় জাতিসংঘ। এরপর ২০১২ সালে অনুষ্ঠিত জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের সভায় বন ও বনভূমির নিরাপত্তা রক্ষার্থে ২১ মার্চকে আন্তর্জাতিক বন দিবস ঘোষণা করা হয়। সেই থেকে ২১ মার্চকে আন্তর্জাতিক বন দিবস হিসেবে পালন করা হচ্ছে।

বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনের (বাপা) সাধারণ সম্পাদক শরীফ জামিল বলেন, ‘শুধু সুন্দরবন নয়, দেশের সব বনই এখন অরক্ষিত। নানাভাবে দখল, গাছ কাটা, বন উজাড় করা এখন খুবই স্বাভাবিক ঘটনার মতো হচ্ছে। আমরা বারবার বনায়নের কথা বলি, আসলে এখন বন ধ্বংস বন্ধ করাই এই মুহূর্তে সবচেয়ে জরুরি। সরকারকে দ্রুত এই বিষয়ে উদ্যোগ নিতে হবে। কঠোর পদক্ষেপ ছাড়া এই ধ্বংস বন্ধ করা যাবে না’।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলনের (পবা) চেয়ারম্যান আবু নাসের খান বলেন, সুন্দরবনের নদীগুলোতে অনেকগুল বাঁধ দেওয়া হয়েছে। এতে পানি প্রবাহ কমে এসেছে। এদিকে বিদ্যুৎ কেন্দ্রসহ নানা স্থাপনায় ক্ষতি হচ্ছে বনের। উন্নয়নের নামে শুধু সুন্দরবন নয় দেশের বেশিরভাগ বনাঞ্চল এখন হুমকির মুখে। এই বন ধ্বংস বন্ধ করা না গেলে দ্রুত আরো বন উজাড় হয়ে যাবে।

এদিকে দিবসটি উপলক্ষ্যে বন ভবনে এক আলোচনা সভার আয়োজন করেছে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন। এছাড়া বিভিন্ন পরিবেশবাদী সংগঠন নানা কর্মসূচির আয়োজন করেছে।

সূত্রঃ বাংলা ট্রিবিউন