বর্ণাঢ্য আয়োজনে শেষ হয়েছে রামুর বঙ্গবন্ধু উৎসব

                      মানুষের কাছে ভোটের অধিকার বিএনপির কোন নেতার নেই: সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি

খালেদ শহীদ, রামুঃ
বঙ্গবন্ধুর জীবনী ও মুক্তিযুদ্ধের আলোচনা, নাচ, গান, কবিতা, নাটক ও সম্মাননা স্মারক প্রদানের বর্ণাঢ্য আয়োজনে শেষ হয়েছে রামুর বঙ্গবন্ধু উৎসব। ১১ মার্চ থেকে ১৭ মার্চ সাত দিনব্যাপী রামু স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়েছে দেশের বৃহত্তর এ উৎসব। সাত দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত রামুর বঙ্গবন্ধু উৎসব পরিণত হয় জনসমুদ্রে।

১৭ মার্চ রাত সাড়ে ১১টায় বঙ্গবন্ধু উৎসবের সমাপনী দিনের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন, রামুর বঙ্গবন্ধু উৎসবের প্রধান পৃষ্ঠপোষক তথ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এমপি কমল বলেন, বঙ্গবন্ধুর অনবদ্য সাহসের কারণে আমরা একটি রাষ্ট্র পেয়েছি। আজকে যারা শেখ মুজিবের বিপক্ষে বলেন, তারা বাংলাদেশের স্বাধীনতার বিপক্ষের শক্তি। বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ডে জিয়াউর রহমান হত্যাকারীদের সহযোগিতা দিয়ে ছিলো। হত্যাকারীদের পুরস্কৃত করছিলো। যারা এখনও পঁচাত্তরের ১৫ আগস্টের স্বপ্ন দেখে, বাংলার মাটিতে যদি শেখ হাসিনাকে হত্যা করার স্বপ্ন দেখে। তাহলে হত্যার বদলা হত্যা দিয়ে নেয়া হবে। প্রয়োজনে আবার আমাদের সকলকে যুদ্ধে যেতে হবে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বাংলা বিজয়ের ৫০ বছর ও জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে রামুতে বঙ্গবন্ধু উৎসবের সমাপনি দিনের অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, রামুর বঙ্গবন্ধু পরিষদ ২০২২ চেয়ারম্যান পলক বড়ুয়া আপ্পু। স্বাগত বক্তৃতা করেন, মহাসচিব মো. সালাহ উদ্দিন।

বক্তৃতায় কক্সবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল বলেন, আমরা ভীরু-কাপুরুষ নয়। আমরা মানুষকে সেবা দিই, মানুষ আমাদের পক্ষে আছে। যারা বিএনপির রাজনীতি করে, করোনাকালে তাদেরকে কেউ দেখেননি। দুই বছর মানুষ কষ্ট পেয়েছে, তখন বিএনপির কোন নেতা মানুষের পাশে যায় নি। মানুষের কাছে ভোটের অধিকার বিএনপির কোন নেতার নেই। তিনি বলেন, যারা রামুবাসির পক্ষে ছিলোনা, রামুর মানুষ কখনও তাদের স্বাগত জানাবে না। কক্সবাজারের মানুষ কখনও তাদের সমর্থন করবে না।

বঙ্গবন্ধু উৎসবের প্রধান পৃষ্ঠপোষক আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি বলেন, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ১০২তম জন্ম বার্ষিকীতে রামুতে বর্ণাঢ্যভাবে বঙ্গবন্ধু উৎসব আয়োজন করা হয়। আবারও দেশের বৃহত্তর বঙ্গবন্ধু উৎসব রামুতে আয়োজন করা হবে। এমপি কমল অতীতের মতো সকলকে একমত হয়ে, কক্সবাজারের এই আসনটুকু শেখ হাসিনাকে উপহার দেয়ার আহ্বান জানান।

বঙ্গবন্ধু উৎসবের কো-চেয়ারম্যান তপন মল্লিক ও নীতিশ বড়ুয়ার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত বঙ্গবন্ধু উৎসবের সমাপনি দিনের আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন, রামু উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমন্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল হক চেয়ারম্যান, কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি জাফর আলম চৌধুরী, বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের সহ-সভাপতি সুপ্ত ভূষণ বড়ুয়া, কক্সবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক এড. জিয়া উদ্দিন আহমেদ, কক্সবাজার সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রুস্তম আলী চৌধুরী প্রমুখ।

রামুর বঙ্গবন্ধু উৎসবের সমাপনী দিবসের রাতের সংস্কৃতি কর্মী তাপস মল্লিক ও দীপক বড়ুয়ার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে দলীয় পরিবেশনায় অংশ নেয়, রামুর ব্যান্ড ‘রম্যভূমি রামু’, রামুর ‘কোমলমতি শিশু নিকেতন’, রামু উপজেলা শিল্পকলা একাডেমি ও বঙ্গবন্ধু উদযাপন পরিষদ। ‘মুক্তির মহানায়ক’ নাটক মঞ্চায়ন করে ‘কক্সবাজার থিয়েটার’। একক সংগীত পরিবেশন করে ইপশিতা, ইশমাম কবির, রোকসান সরওয়ার, রবিউল হাসান, নাজনীন সুলতানা জোনাকী, প্রতীক বড়ুয়া, চম্পক বড়ুয়া, সংগীত বড়ুয়া, এম সেলিম, ব্রুব রাসেল, মিনা মল্লিক, মানসী বড়ুয়া, বশিরুল ইসলাম, লালন শিল্পী আকাশ দাস রিংকু, ও আঞ্চলিক গানের শিল্পী গোলাম কবীর, পেঠান, সামিরা সুলতানা ও জাহাঙ্গীর।