অনূর্ধ্ব-১৪ জাতীয় মহিলা ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনালে কক্সবাজার ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা অনূর্ধ্ব-১৪ মহিলা ফুটবল দল

নিজস্ব প্রতিবেদক, রামু:
রামুতে অনুষ্ঠিত জেএফএ অনূর্ধ্ব-১৪ জাতীয় মহিলা ফুুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের চট্টগ্রাম অঞ্চলের খেলায় ফাইনাল নিশ্চিত করেছে কক্সবাজার ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা অনূর্ধ্ব-১৪ মহিলা ফুটবল দল।

          চট্টগ্রাম অঞ্চল জেএফএ অনূর্ধ্ব-১৪ জাতীয় মহিলা ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনালে কক্সবাজার জেলা দল

বুধবার রামুর জোয়ারিয়ানালায় ‘বিকেএসপি আঞ্চলিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র কক্সবাজার’ মাঠে অনুষ্ঠিত দিনের প্রথম খেলা দুপুর আড়াইটায় প্রথম সেমিফাইনালে মুখোমুখি হয় কক্সবাজার জেলা অনূর্ধ্ব-১৪ মহিলা ফুটবল দল বনাম রাঙামাটি জেলা অনূর্ধ্ব-১৪ মহিলা ফুটবল দল। খেলায় কক্সবাজার জেলা দল ৩-০ গোলে রাঙামাটি জেলা দলকে হারিয়ে ফাইনালে খেলা নিশ্চিত করে। বিকাল চারটায় দ্বিতীয় সেমিফাইনালে মুখোমুখি হয় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা অনূর্ধ্ব-১৪ মহিলা ফুটবল দল বনাম ফেনী জেলা অনূর্ধ্ব-১৪ মহিলা ফুটবল দল। দ্বিতীয় সেমিফাইনালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা দল ৫-০ গোলে ফেনী জেলা দলকে পরাজিত করে।

বৃহস্পতিবার একই মাঠে চট্টগ্রাম অঞ্চলের খেলায় জেএফএ অনূর্ধ্ব-১৪ জাতীয় মহিলা ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে মুখোমুখি হবে কক্সবাজার জেলা অনূর্ধ্ব-১৪ মহিলা ফুটবল দল বনাম ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা অনূর্ধ্ব-১৪ মহিলা ফুটবল দল। গত সোমবার বিকাল ৪টায় রামুর ‘বিকেএসপি আঞ্চলিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র কক্সবাজার’ মাঠে জেএফএ অনূর্ধ্ব-১৪ জাতীয় মহিলা ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের চট্টগ্রাম অঞ্চলের খেলা উদ্বোধন করেন, বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে) সদস্য বিজন বড়ুয়া।

বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের অর্থায়নে ও কক্সবাজার জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনের সহযোগিতায় এই টুর্ণামেন্ট কক্সবাজার, রাঙামাটি, বান্দরবান, ফেনী, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও সিলেট জেলা অনূর্ধ্ব-১৪ মহিলা ফুটবল দল অংশ নেয়। ।

বুধবার দিনের প্রথম খেলায় কক্সবাজার জেলা দলের সপ্তবর্ণা চাকমা (৯নং জার্সি) দুইটি ও শারমিন ফেরদৌসি রুহি (১০নং জার্সি) একটি গোল করে। দ্বিতীয় খেলায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা দলের ছাদিয়া আকতার (১১নং জার্সি) দুইটি ও রিয়া আকতার (১৬নং জার্সি), বর্ষা রানী দাস (১৩নং জার্সি), ইসরাত জান্নাত (১৫নং জার্সি) একটি করে গোল করে। প্রথম খেলায় তাহমিনা আকতার রেফারী, খুশি চাকমা, নুনু মারমা ও নুসরাত জাহান সহকারি রেফারী এবং দ্বিতীয় খেলায় খুশি চাকমা রেফারী, মোবাশ্শেরা বেগম, লালা কিং ও তাহমিনা আকতার সহকারি রেফারীর দায়িত্ব পালন করেন।

প্রথম খেলায় অংশ নেয়া দল:

কক্সবাজার জেলা অনূর্ধ্ব-১৪ মহিলা ফুটবল দল:
সুমাইয়া আকতার (অধিনায়ক ও গোলরক্ষক), শারমিন ফেরদৌসি রুহি, চিন্তা দেবী ত্রিপুরা, রিফা, সাক্রই মারমা মায়া, মেয়ইচিং মারমা, পাইনুচিং মারমা, সপ্তবর্ণা চাকমা, তাসমিন ফেরদৌসী, সোহানা আকতার, রোহানা বেগম।

অতিরিক্ত খেলোয়াড় ছিলেন, শোকরানা।

রাঙামাটি জেলা অনূর্ধ্ব-১৪ মহিলা ফুটবল দল:
সুইসাং মং মারমা (অধিনায়ক), কেমি মারমা (গোলরক্ষক), মেথুইচিং মারমা-১, মাসাচিং রোয়াজা, মাসাউ মারমা, মামুনি চাকমা, মিমিপ্রু মারমা, যুইমেনু মারমা, মাসিং উ মারমা, মিনুচিং মারমা, মেথুইচিং মারমা-২।

অতিরিক্তি খেলোয়াড় ছিলেন, মেশিথুই মারমা, থিথিচিং মারমা, ক্রানুচিং মারমা, উথোয়াই মি মারমা, পাইনুম্য মারমা, মাস্যাউ মারমা, মাথুই সিং মারমা।

দ্বিতীয় খেলায় অংশ নেয়া দল:

ফেনী জেলা অনূর্ধ্ব-১৪ মহিলা ফুটবল দল:
তানিয়া আকতার (অধিনায়ক), ঝর্ণা মার্মা (গোলরক্ষক), পূজা চাকমা, অর্পিতা খীসা, অচিনা চাকমা, পুনির্তা ত্রিপুরা, তাহমিনা আকতার, পহেলা আকতার, দিলনাহার বেগম, পুর্না চাকমা, নুসরাত জাহান তিসা।

অতিরিক্ত খেলোয়াড় ছিলেন, সুবাহা ইকবাল, ইফরাত জাহান প্রাচী, ইসরাত জাহান, শাহারিয়া সুলতানা, শাহরিয়া সুলতানা মিম, উমাচিং মারমা, প্রশিকা চাকমা।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা অনূর্ধ্ব-১৪ মহিলা ফুটবল দল:
মাকছুদা আকতার (অধিনায়ক), নিজুম আকতার (গোলরক্ষক), ফাহমিদা, অনুশ্রী রানী দাস দিপা, তানজিনা আকতার, রিয়া আকতার, ইসরাত জান্নাত, নুর নাহার, ছাদিয়া আকতার, বর্ষা রানী দাস, মনিকা আকতার।

অতিরিক্ত খেলোয়াড় ছিলেন, মাবিয়া আকতার, কহিনূও আকতার।