রামুর বঙ্গবন্ধু উৎসবে কউক চেয়ারম্যান ফোরকান আহমদ : বঙ্গবন্ধুকে যারা দেখে নাই, বঙ্গবন্ধু কে তাদের জানাতে হবে

খালেদ শহীদ, রামুঃ
কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ চেয়ারম্যান ফোরকান আহমদ বলেছেন, বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধু। সেটা আমাদের নতুন প্রজন্মের কাছে পৌঁছাতে হবে। যদি আমরা পৌঁছাতে না পারি, তাহলে আমরা ব্যর্থ হয়ে যাবো। বঙ্গবন্ধুকে যারা দেখে নাই, তাদের বঙ্গবন্ধুকে জানাতে হবে। সেটা বই-পুস্তকের মাধ্যমে, কাজের মাধ্যমে। বাংলাদেশ একটা উন্নত সমৃদ্ধ দেশ, পৃথিবীর বুকে এই জায়গায় নিয়ে যেতে হবে। এই উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু না হতো, এই স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ আমরা পেতাম না। বঙ্গবন্ধু ৭ই মার্চের ভাষণের মাধ্যমে এই দেশের সবাইকে ঐক্যবদ্ধ করে, দেশটা স্বাধীন করে আমাদেরকে দিয়েছেন। আমরা যদি বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ না করি, বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে আলোচনা না করি, তাহলে জাতি হিসেবে আমরা পরিচয় দিতে পারবো না। গত সোমবার (১৪ মার্চ) রাত ১০টায় রামু স্টেডিয়ামের বঙ্গবন্ধু উৎসবের চতুর্থ দিনের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বাংলা বিজয়ের ৫০ বছর ও জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে রামুতে বঙ্গবন্ধু উৎসবের চতুর্থ দিনের অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, প্রবীন আওয়ামী লীগ নেতা মাষ্টার ফরিদ আহমদ।

প্রধান অতিথি কউক চেয়ারম্যান লে. কর্ণেল (অব:) ফোরকান আহমদ বলেন, কক্সবাজার এখন উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের আওতাধীন এলাকা। কক্সবাজারের উন্নয়নের জন্য মহা পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। কক্সবাজার জেলাকে আধুনিক, আকর্ষনীয় ও পরিকল্পিত নগরি হিসেবে গড়ে তোলতে, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে কাজ করে যাচ্ছি।

ছাত্রলীগের উদ্দেশ্যে কউক চেয়ারম্যান বলেন, ছাত্রলীগের কর্ণধার বঙ্গবন্ধু। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে ছাত্রলীগের ধারণ করতে হবে। শুধু বক্তৃতা-শ্লোগানে হবে না। কাজের মাধ্যমে সেটা প্রমাণ করতে হবে। এই কারণেই বঙ্গবন্ধু উৎসব অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বঙ্গবন্ধুর বিভিন্ন ধরণের কার্যাবলি, বঙ্গবন্ধুর দর্শন-চিন্তা, বঙ্গবন্ধুর জীবন-যৌবনকাল সম্পর্কে জানতে হবে। তোমাদেরকে দেশের জন্য, রাজনীতির জন্য, দেশের মানুষের সুখী-সমৃদ্ধির জন্য কষ্ট করতে হবে। আমাদের চেতনার মধ্যে মুক্তিযুদ্ধ থাকবে। মুক্তিযুদ্ধকে, বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারন করে, দেশটাকে সোনার বাংলায় পরিণত করতে হবে। ভালো নাগরিক হিসেবে নিজেকে গড়ে তোলতে হবে।

বঙ্গবন্ধু উৎসবের কো-চেয়ারম্যান নীতিশ বড়ুয়া ও সৈয়দ মোহাম্মদ আবদু শুক্কুরের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত বঙ্গবন্ধু উৎসবের চতুর্থ দিনে বিশেষ অতিথি ছিলেন, রামু সরকারি কলেজের অধ্যাপক মোবারক হোসেন, বাঁচা মিয়া চৌধুরী ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান রুস্তম আলী চৌধুরী, কক্সবাজার জেলা বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগ সভাপতি তৈয়ব উল্লাহ মাতবর, সাধারণ সম্পাদক মুফিজুর রহমান প্রমুখ। সভা মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন, বঙ্গবন্ধু উৎসব পরিষদের প্রধান পৃষ্ঠপোষক তথ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য আলহাজ¦ সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি, চেয়ারম্যান পলক বড়ুয়া আপ্পু, কো-চেয়ারম্যান তপন মল্লিক, মহাসচিব মো. সালাহ উদ্দিন প্রমুখ।

রামুতে বঙ্গবন্ধু উৎসবের চতুর্থ দিনে রাতের অনুষ্ঠানে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশ নেয়, চকরিয়া অন্তরা সাংস্কৃতিক শিক্ষা কেন্দ্র, রামুর দরিয়া খেলাঘর আসর, উখিয়ার শ্যামল প্রকৃতি আর্ট স্কুল। একক গানে সমরজিৎ রায়, সামিরা সুলতানা, ইশমাম কবির সহ স্থানীয়শিল্পীরা অংশ নেন।