রামুতে বর্ণাঢ্য আয়োজনে ‘বঙ্গবন্ধু উৎসব’ উদ্বোধনে ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া : বঙ্গবন্ধুর খুনিরা তিনটি দশক প্রজন্মকে ভুল তথ্য দিয়েছে

খালেদ শহীদ, রামুঃ
প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর জন্ম হয়েছে বলেই আমরা পেয়েছি বাংলাদেশ। বিশ্বের বুকে বাংলাদেশের মানচিত্র অংকিত হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছিল। স্বাধীন বাংলাদেশের পঞ্চাশ বছরের ত্রিশটি বছর বঙ্গবন্ধুর খুনি গোষ্ঠী রাষ্ট্র পরিচালনা করেছে। সত্য ইতিহাসকে গোপন করে, মিথ্যা অপপ্রচারে বঙ্গবন্ধুর প্রতি অবজ্ঞা, অপমান সূচক তথ্য দিয়ে, বঙ্গবন্ধুর মহান রাজনৈতিক অবস্থানকে খাটো করার ষড়যন্ত্র করেছে। বঙ্গবন্ধুকে খুনের যে নষ্ট রাজনীতি সে্ই রাজনীতিকে তারা মিথা তথ্য দিয়ে, বৈধ বলার চেষ্টা করেছে। তারা তাদের খুনকে জায়েজ করার চেষ্টা করেছে। এই বাংলাদেশের তিনটি দশক প্রজন্মের পর প্রজন্মকে ভুল তথ্য দিয়েছে বঙ্গবন্ধুর খুনিরা।

শুক্রবার (১১ মার্চ) মধ্যরাতে রামু স্টেডিয়ামে বঙ্গবন্ধু উৎসবের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বাংলা বিজয়ের ৫০ বছর ও জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে রামুতে বঙ্গবন্ধু উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, সাবেক কৃতিফুটবলার ও শিক্ষক কিশোর বড়ুয়া। বঙ্গবন্ধু উৎসব পরিষদ ২০২২ চেয়ারম্যান পলক বড়ুয়া আপ্পুর স্বাগত বক্তব্যে ও কো-চেয়ারম্যান তপন মল্লিকের শুভেচ্ছা বক্তৃতায় বঙ্গবন্ধু উৎসবের উদ্বোধনী দিনের আলোচনা সভায় উদ্বোধকের বক্তৃতা করেন, কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) এড. ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী ।

শুক্রবার মধ্যরাতে রামুতে বঙ্গবন্ধু উৎসব উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বক্তৃতার শুরুর মূহুর্তে আতশবাজির গুচ্ছ আলো আর শব্দে উদ্ভাসিত হয়ে উঠে পুরো উৎসব প্রাঙ্গন। আতশবাজি ফোটানোসহ নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে রামুতে বঙ্গবন্ধু উৎসবের মূল আনুষ্ঠানিকতা শুরু করা হয়। ১১ মার্চ থেকে ১৭ মার্চ পর্যন্ত রামুতে সাত দিনব্যাপী ‘বঙ্গবন্ধু উৎসব’ অনুষ্ঠিত হবে। রাত ৯টায় ‘বঙ্গবন্ধু উৎসব’ মঞ্চে সাংস্কৃতিক উপ-পরিষদের শিল্পীদের জাতীয় ও উদ্বোধনী সংগীত পরিবেশনার মধ্যদিয়ে রামুতে সাত দিনব্যাপি বঙ্গবন্ধু উৎসবের সূচনা করা হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মুক্তিযোদ্ধা, আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী সহ উদযাপন পরিষদের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্মরণ করে বিপ্লব বড়ুয়া বলেন, সারা পৃথিবীর মুক্তিকামী মানুষের মহান নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। ইতিহাসের এমন এক মুহুর্তে আজ রামুতে এই বঙ্গবন্ধু উৎসব উদযাপিত হচ্ছে, যখন বাঙালী জাতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন করে যাচ্ছে। তিনি বলেন, যার নেতৃত্বে বাংলাদেশ সৃষ্টি হয়েছিলো, ত্রিশ লক্ষ বাঙালি আত্মাহুতি দিয়েছিলো, আড়াই লক্ষ মা-বোন সম্ভ্রম হারিয়েছে, মাতৃভূমির স্বাধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য লড়াই করেছিলো, সেই স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশে স্বাধীনতার ৩ বছর ৭ মাসের মাথায় জাতির বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হারিয়েছিলাম। সেদিন খুনিরা শুধু বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেনি। যে রাজনৈতিক দর্শনের ওপর ভিত্তি করে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ স্বাধীন করেছিলেন, সেই রাজনৈতিক দর্শনকেও হত্যা করা হয়েছিলো। তিনি বলেন, সেদিন মহান মুক্তিযুদ্ধের রাজনৈতিক চেতনাকে হত্যা করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর নাম নিশানা বাংলাদেশের ইতিহাস থেকে মুছে ফেলার জন্য রাষ্ট্রীয় মদদে সেদিন তারা ষড়যন্ত্র করেছিলো। তারা ভেবেছিলো, এই বাংলাদেশে আর কেউ কোন দিন বঙ্গবন্ধুর নাম উচ্চারণ করবে না। বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যা শেখ হাসিনা ও শেখ রেহেনা, সেদিন বাংলাদেশের বাইরে থাকায় পরম করুনাময়ের কৃপায় তাঁরা প্রাণে বেঁচে গিয়েছিলেন।

আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের আহ্বান জানিয়ে ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ যখন এগিয়ে যাচ্ছে, সারা বিশ্বে বঙ্গবন্ধুর মতো মাথা উঁচু করে দাঁড়াচ্ছে বাংলাদেশ। আসুন যতক্ষণ আমাদের দেহে প্রাণ আছে, মহান নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নীতি আদর্শ এবং তাঁর সুমহান আত্মত্যাগকে আমরা মনে ধারণ করে এবং তাঁর সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নীতি ও আদর্শের প্রতি অবিচল থেকে আমরা এই ষড়যন্ত্রকারীদের প্রতিরোধ করি। ষড়যন্ত্রকারীদের প্রতিরোধ করতে গিয়ে যেকোন ধরণের আত্মত্যাগ করতে আমরা সকলে প্রস্তুত থাকি।

বঙ্গবন্ধু উৎসব পরিষদ ২০২২ মহাসচিব মো. সালাহ উদ্দিন ও ছাত্রলীগ নেতা তসলিম উদ্দিন সোহেলের সঞ্চালনায় বঙ্গবন্ধু উৎসবের উদ্বোধনী দিনের আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন, কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সম্পাদক এড. রনজিত দাশ, রামু উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নুুরুল হক চৌধুরী, সাবেক ছাত্রনেতা রজত বড়ুয়া রিকু, কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি এসএম সাদ্দাম হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক মারুফ আদনান প্রমুখ। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, বঙ্গবন্ধু উৎসব পরিষদের প্রধান পৃষ্ঠপোষক তথ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি, কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সম্পাদক মাহাবুবুল হক মুকুল, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক মুসরাত জাহান মুন্নী, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সম্পাদক নাছির উদ্দিন পিন্টু, ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সহ-সভাপতি ওসমান গণি, কেচুয়া ইউপি চেয়ারম্যান ওসমান গণি প্রমুখ। আলোচনা সভায় আরও বক্তৃতা করেন, ছাত্রলীগ নেতা তছলিম উদ্দিন সোহেল, এনামুল হোসাইন রিয়াদ, রাজিবুল ইসলাম, আরিফুজ্জামান শুভ, মো. ফাওয়াজ, জাহেদুল কামাল, মেহেদি হাসান রিয়াদ প্রমুখ।

রামুতে বঙ্গবন্ধু উৎসব’ উদ্বোধন উপলক্ষে শুক্রবার বিকাল থেকে উৎসবমুখর হয়ে উঠে রামু স্টেডিয়াম। সন্ধ্যায় উদ্বোধন অনুষ্ঠানে ছাত্রলীগ নেতাকর্মী মিছিল-শ্লোগানে উৎসবস্থলে প্রবেশ করলে, রামু ষ্টেডিয়াম জনসমুদ্রের উৎসবে পরিণত হয়। মেলা প্রাঙ্গনে নানান রকমের পণ্য সামগ্রী নিয়ে বেচাবিক্রিতেও যেন উৎসব শুরু করে ব্যবসায়ীরা। মেলা প্রাঙ্গনে নৌকায় দোলা, চরকি ও নাগর দোলায় শিশু-কিশোররা চড়ে উৎসবে মেতে উঠেছে। উৎসবকে কেন্দ্র করে, বঙ্গবন্ধুর ছবি ও বঙ্গবন্ধু কথায় সাজানো হয়েছে মেলা প্রাঙ্গন। আয়োজন করা হয়েছে, বঙ্গবন্ধুর চিত্র ও বঙ্গবন্ধুর ভাষণ প্রতিযোগিতা। রাতে বঙ্গবন্ধু উৎসব মঞ্চে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করেন, স্থানীয়শিল্পীরা।