রামুর সাবেক ইউপি সদস্যসহ নিরীহ ব্যক্তিদের মামলায় ফাঁসানোর অপচেষ্টার প্রতিবাদে মানববন্ধন

রামু প্রতিনিধিঃ
রামুর কাউয়ারখোপ ইউনিয়নের উখিয়ারঘোনা গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য ও কাউয়ারখোপ ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক হাবিব উল্লাহসহ নিরীহ লোকজনকে মিথ্যায় মামলায় ফাঁসানোর অপচেষ্টার প্রতিবাদে বিশাল মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। মানববন্ধনে বক্তারা একটি সড়ক দূর্ঘটনাকে পূঁজি করে মামলা দিয়ে পূর্ব শত্রæতা ও রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের অপচেষ্টাকে নিন্দনীয় উল্লেখ করে এমন ন্যাক্কারজনক মামলা না নিতে পুলিশ প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানানো হয়।

সোমবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) বিকাল ৪ টায় রামুর উখিয়ারঘোনা টিলাপাড়ায় আয়োজিত এ মানবন্ধনে এলাকার সর্বস্তুরের নারী-পুরুষ অংশ নেন। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন- নুরুল ইসলাম মেম্বার সড়ক দূর্ঘটনায় আহত হওয়ার বিষয়টি এলাকার সবার জন্য বেদনাদায়ক ঘটনা। কিন্তু দূর্ঘটনার কয়েকদিন পর নুরুল ইসলাম মেম্বার ও তার স্বজনরা এ দূর্ঘটনাকে পূঁজি করে বিগত নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী হাবিব উল্লাহসহ এলাকার একাধিক নিরীহ ব্যক্তিকে হত্যা প্রচেষ্টার মামলায় জড়িয়ে হয়রানির করার জন্য উঠে-পড়ে লেগেছেন। যা এলাকাবাসীকে মর্মাহত করেছে।

বক্তারা আরো বলেন- নুরুল ইসলাম মেম্বার সড়ক দূর্ঘটনার শিকার হন গত ১৯ ফেব্রæয়ারি রাতে রামুর মেরংলোয়া এলাকায়। দূর্ঘটনার সময় হাবিব উল্লাহ এলাকায় অবস্থান করছিলেন। থানার এজাহারে আরও যাদের নাম জড়ানো হয়েছে তারাও এলাকায় অবস্থান করছিলেন। যার তথ্য প্রমানও রয়েছে। এরপরও তাদের উদ্দেশ্যমূলকভাবে মামলায় জড়িয়ে হয়রানির চেষ্টা চলছে।

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- কাউয়ারখোপ ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি তারেক আহমদ, কাউয়ারখোপ ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি নুরুল ইসলাম নাহিদ, সাবেক ইউপি সদস্য ও কাউয়ারখোপ ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক হাবিব উল্লাহ, কাউয়ারখোপ ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল মনছুর, সমাজসেবক নুর আহমদ সওদাগর, মুহিদুল্লাহ সওদাগর, ৭নং ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম, আবদুল কাদের, হাজ¦ী ছালেহ আহমদ, চৌকিদার মো. ফোরকান, আবদুল্লাহ ড্রাইভার, আল মামুন, আলী আহমদ সওদাগর প্রমূখ।

সাবেক ইউপি সদস্য ও কাউয়ারখোপ ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক হাবিব উল্লাহ বলেন- ইতিপূর্বে নুরুল ইসলাম তাকে অসংখ্য মামলায় জড়িয়ে হয়রানি করেছে। এখনও করে যাচ্ছে। অথচ তিনি নিজে কখনো কারো বিরুদ্ধে মামলা করেননি। তিনি আরো বলেন- নুরুল ইসলাম চিহ্নিত বিএনপি নেতা। তিনি রাজনৈতিক অপকৌশল হিসেবে সরকার দলীয় নেতাকর্মীদের একের পর এক মামলায় জড়িয়ে এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েমের চেষ্টা চালাচ্ছে। যা কখনো সফল হবে না।

উল্লেখ্য, গত ১৯ ফেব্রæয়ারি রাতে রামুর ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের মেরংলোয়া দুবাই ফিউচার পার্ক এলাকায় চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে মোটর সাইকেল চালিয়ে বাড়ি ফেরার পথে ইউপি সদস্য নুরুল ইসলামে পিছন থেকে আসা একটি মিনিট্রাক সজোরে ধাক্কা দেয়। পথচারিরা তাকে উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করান। পরে এ ঘটনাকে পরিকল্পিত হত্যাচেষ্টা অভিযোগ এনে ৪জনকে অভিযুক্ত করে রামু থানায় লিখিত এজাহার দায়ের করেন আহত নুরুল ইসলাম মেম্বার।