রামুতে ইউপি মেম্বারকে হত্যা চেষ্টার প্রতিবাদে এলাকাবাসীর মানববন্ধন

রামু প্রতিনিধিঃ
রামু উপজেলার ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আলহাজ্ব নুরুল ইসলামকে গাড়িচাপা দিয়ে হত্যার চেষ্টার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বিকেল তিনটায় উখিয়ারঘোনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে টিলাপাড়া-নাপিতাঘোনা সড়কে দুপাশে এলাকার হাজারো নারী-পুরুষ এ মানববন্ধনে অংশ নেন।
সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- সাবেক ইউপি সদস্য আবছার কামাল ও আবুল হোসেন, মাওলানা শফিকুর রহমান, স্কুলপাড়া আজিজুল উলুম মাদ্রাসার পরিচালক মাওলানা মো. ইসমাইল, সাইমুম সরওয়ার কমল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আতিকুর রহমান, সহকারি শিক্ষক মিজানুর রহমান, ছাবের আহমদ, রফিকুল ইসলাম, ছৈয়দ আকবর, মোবারক, আবু ছৈয়দ, জলিল কাদের, বিমল বড়ুয়া, মকতুল হোসেন, শওকত আলী, নজির আহমদ কোম্পানী, দিদারুল আলম প্রমূখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন- কাউয়ারখোপ ইউনিয়নের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মরহুম হাজী গোলাম বারীর সুযোগ্য সন্তান, কাউয়ারখোপ ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের মেম্বার নুরুল ইসলামকে এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী হাবিব উল্লাহ ও তার সহযোগিরা দীর্ঘদিন হত্যার হুমকী দিয়ে আসছিলো। এরই অংশ হিসেবে গত ১৯ ফেব্রুয়ারি বিকালে মোটর সাইকেল যোগে বাড়ি ফেরার পথে নুরুল ইসলামকে মিনিট্রাক (ডাম্পার) গাড়ি দ্বারা পূর্ব পরিকল্পনামতে হত্যার উদ্দেশ্যে চাপা দেয়া হয়। ওইদিন নুরুল ইসলামের পায়ের হাড় ভেঙ্গে যায় এবং শরীরের বিভিন্নস্থানে অসংখ্য জখমপ্রাপ্ত হন। একজন জনপ্রিয় জনপ্রতিনিধিকে এভাবে হত্যা চেষ্টায় এলাকাবাসী হতবাক ও মর্মাহত হয়েছেন। অবিলম্বে এ ঘটনায় জড়িত হাবিব উল্লাহ ও তার সহেযাগিদের অনতিবিলম্বে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনতে হবে। সভায় বক্তারা আরো বলেন- নুরুল ইসলামকে হত্যা চেষ্টায় অভিযুক্তরা এলাকায় দীর্ঘদিন ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে নিরীহ লোকজনকে নানাভাবে হয়রানি করে আসছে।

এদিকে বর্বরোচিত এ হামলায় ঘটনায় রামু থানায় লিখিত এজাহার দিয়েছেন -গাড়ি চাপায় গুরতর আহত নুরুল ইসলাম মেম্বার। এতে ৪ জনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে। এরা হলেন- রামুর কাউয়ারখোপের উখিয়ারঘোনা গ্রামের ছালেহ আমদের ছেলে হাবিব উল্লাহ, আবদুর রহিমের ছেলে গাড়ি চালক মো. আবদুল্লাহ, লট উখিয়াঘোনা এলাকার আলী আহমদের ছেলে দানু মিয়া ও উখিয়ারঘোনা তচ্ছাখালী এলাকার আমির হোসেন ভান্ডারীর ছেলে মো. ফোরকান।

উল্লেখ্য, গত ১৯ ফেব্রæয়ারি বিকাল ৩টায় রামুর ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের মেরংলোয়া দুবাই ফিউচার পার্ক এলাকায় চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে মোটর সাইকেল চালিয়ে বাড়ি ফেরার পথে তাকে পিছন থেকে আসা একটি মিনিট্রাক সজোরে ধাক্কা দেয়। পথচারিরা তাকে উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করান।