পারিবারিক বিরোধে মামলায় মোকদ্দমায় নিঃস্ব দুই সহোদর পরিবার: কুপরামর্শে তুচ্ছ ঘটনায় মামলা

মোঃ নাজমুল হুদা,লামাঃ
বান্দরবানের লামা উপজেলার রুপসীপাড়া ইউনিয়নে নূর আলী মুন্সী পাড়ার (৬নং ওয়ার্ড) এ পারিবারিক,বিরোধপূর্ণ কিছু জমির বিরোধে মামলায় মোকদ্দমার খরচ যোগাতে নিঃস্ব দুই সহোদর (একই মায়ের ২ ভাই) দরিদ্র পরিবার। রয়েছে বাইরের লোকের কুপরামর্শে তুচ্ছ ঘটনায় মামলা করার অভিযোগও।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, বর্ণিত ইউনিয়নের (রুপসী পাড়া) বাসিন্দা দুই সহোদরের পাশাপাশি বাড়ির অবস্থান। সেক্ষেত্রে তাদের পিতা মৃত সৈয়দ আলীর স্ত্রী, ২ পুত্র ও ৭ কন্যা সন্তান। এর মধ্যে ১কন্যা মারা গেছে। দুই পুত্র মো: ওমর আলী (৪১) ও আশরাফ আলী চৌধুরী (৫৫) আর ৬ কন্যা সন্তান রয়েছে। পিতার সূত্রে পাওয়া ৫ একর তৃতীয় শ্রেনীর জায়গা ভাই -বোনদের মাঝে ভাগ বন্টনে দুই ভাই ৫০ শতক করে পায়। গত দুই বছর আগে গাছের আম কুড়ানো ও পালিত হাঁসে ক্ষেত নষ্টে বিরোধকে কেন্দ্র করে কথা কাটাকাটি ঝগড়া হয়। সেই থেকে সময়ে সময়ে ঝগড়াঝাটি লেগেই থাকে। সামান্য জমির বিরোধ হলেও আশরাফ চৌধুরী জমির পাওনার দাবী করে মামলায় করে এ পর্যন্ত ৪ টি মামলা করেছেন। সেখানে মিথ্যা মামলায় দুরে বসবাসরত বোনদের রেহাই নেই। এ নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদেও কয়েক বার মিমাংসার চেষ্টা করা হয়েছিল।

এদিকে মামলায় খরচ যোগাড় করতে দুই পরিবার জমি,গরু-ছাগল বিক্রি করে এখন নিঃস্ব প্রায় ঠিকমত দু,বেলা ভাতও খেতে পারছে না। তবুও মামলা করার নেশা পিছু ছাড়ে না আশরাফ আলীদের।

ওমর আলী ও স্ত্রী সালমা বেগম জানান,সর্বশেষ বুধবার (১৬ ফেব্রুয়ারি, ২২ ইং) সকাল ৯ টায় যে ঘটনার সূত্রপাত— সকালে নিজের মাথা নিজের বাড়ির দরজায় ঠোকা দিয়ে ফেটে রক্ত বের করে প্রতিপক্ষ হামলা করেছে বলে নাটকীয় ঘটনার সৃষ্টি করে।নিজের আপন ভাই ও তিন বোন কে ফাঁসানোর চেষ্টা করেন আশরাফ ও স্ত্রী খালেদা বেগম- বড় বোন গোলাপি বেগম (৫৭), অন্য বোন হাসিনা বেগম (৩৬), আনোয়ারা বেগম (৩৪) কে পৈত্রিক জায়গা জমি সংক্রান্ত বিরোধ ও মামলা জের ধরে তাদের বড় ভাই মো: আশরাফ আলী চৌধুরী(৫১) নিজের মাথা নিজে ফেঁটে নাটকীয় হামলা ঘটনার সৃষ্টি করেন।ভাই বোনদের ফাঁসাতে এবং বর্তমানে জায়গা জমি বিরোধ নিয়ে চলমান মামলার রায় নিজের পক্ষে নিতে মো: আশরাফ চৌধুরী(৫১) ও তার স্ত্রী খালেদা বেগম( ৪৮) সহ দুইজন মিলে। তবে এ বিযয়ে অস্পষ্ট বক্তব্য রয়েছে।

বুধবার সকালে মানুষের বিশ্বাস অর্জন করে নিজের ফাঁটানো মাথা নিয়ে চিকিৎসা নিতে লামা হাসপাতালে ভর্তি হয়। পরবর্তী সময়ে ছোট ভাই ও বোনেরা হামলা করে জখম করেছে বলে মানুষের কাছে গুজব ছড়াতে থাকেন ও স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীদের দারস্ত হয়েছেন।

ঘটনার প্রতোক্ষ্যদর্শী স্থানীয় বাসিন্দা মোঃ ইব্রাহিম বলেন,গত(১৫ ফেব্রুয়ারি) মঙ্গলবার সকাল ৯ টায় দিকে মো: আশরাফ চৌধুরী তার বন্ধকীয় জমিতে কাজ করতে গিয়ে তার স্ত্রী খালেদা বেগমসহ এই নাটকীয় ঘটনার পরিকল্পনা করেছে। উপস্থিত একজন তাদের পরিকল্পনা সময় ভিড়িও করে রাখেন। এটা প্রতিপক্ষকে হয়রানী করতে নাটকীয় হামলার ঘটনা।

এলাকাবাসী জানান,এটি সম্পূর্ণ নাটকীয় হামলার ঘটনা মো:আশরাফ আলী চৌধুরী, পিতার নামীয় সম্পত্তি গুলো একা ভোগ করতে ছোট ভাই ও বোনদের জায়গা জমি ভাগ না দিতে ষড়যন্ত্র করে মামলা দিয়ে হয়রানী করার চেষ্টা করে যাচ্ছেন। এই ঘটনায় স্থানীয় এলাকার লোকজন নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

ভুক্তভোগী মো: ওমর আলী জানান, তার বড় ভাই মো: আশরাফ চৌধুরী চিকিৎসা নিয়ে হাসপাতাল থেকে ফিরে আসার পর থেকে চার ভাই বোন কে বিভিন্ন মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে দিবে বলে নিয়মিত হুমকি-ধামকি দিয়ে যাচ্ছেন। তারা চার ভাই -বোন প্রশাসনের সহায়তা কামনা করেছেন।

বড় বোন গোলাপি বেগম জানান,আমাদের বাড়ি এদের থেকে দূর ও এতে জড়িত নই,তবুও মামলায় আমাকে জড়িয়ে হয়রানি ও অপমান করছে আশরাফ আলী পরিবার।

এ ব্যাপারে ৪,৫ ও ৬ ওয়ার্ডের মহিলা মেম্বার খালেদা বেগম বলেন, মামলা করা এদের স্বভাব। এ মামলার খরচ যোগাতে সহায় সম্বল হারিয়ে এখন নিঃস্ব হয়ে গেছে তারা।